ঢাকা     সোমবার   ১৫ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ৩১ ১৪৩১

লোহাগড়ায় মাংস কাটার গুঁড়ির দাম ৪০০ টাকা

নড়াইল প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:২২, ১৫ জুন ২০২৪  
লোহাগড়ায় মাংস কাটার গুঁড়ির দাম ৪০০ টাকা

মাংস কাটার জন্য গাছের গুঁড়ি বা খা্ইট্টা

কোরবানির ঈদের আর মাত্র দুই দিন বাকি। নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার বিভিন্ন বাজারে কোরবানির পশুর মাংস কাটার জন্য গাছের গুঁড়ি বা খা্ইট্টার চাহিদা বেড়েছে। হাটে-বাজারে বিক্রি হচ্ছে মাংস কাটার অন্যতম এই সরঞ্জাম। প্রকারভেদে তা ৩০০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 

কোরবানির ঈদে এই গাছের গুঁড়ির চাহিদা বেড়ে যায়। এটি তৈরিতে তেঁতুল গাছের কাঠ প্রাধান্য দেওয়া হয়। অন্য কাঠের তুলনায় তেঁতুল কাঠের গুঁড়ি দা-ছুরির আঘাতে নষ্ট হয় না। তেঁতুল গাছের গুঁড়ির চাহিদাও বেশি। গুঁড়ি সব কাঠ দিয়ে তৈরি করা যায় না। এটি তৈরি করতে হয় এমন কাঠ দিয়ে, যাতে চাপাতির (মাংস কাটার যন্ত্র) কোপে কাঠের গুঁড়া না ওঠে। তেঁতুল গাছের কাঠ দিয়ে গুঁড়ি বানানোর কারণ হিসেবে ব্যবসায়ী পান্নু শেখ বলেন, তেঁতুল কাঠে সহজে চাপাতির কোপ বসবে না। তাই কাঠের গুঁড়াও উঠবে না। ফলে মাংস নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

কযেক দিন ধরে লোহাগড়ার লক্ষীপাশা, দিঘলিয়া, লাহুড়িয়া, ইতনা বাজার, এড়েন্দা বাস স্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন স্থানে কাঠের গুঁড়ি বিক্রি হতে দেখা যায়। কাঠের গুঁড়ি ব্যবসায়ী খায়ের কাজী বলেন, সব জিনিষের দাম বাড়ায় কাঠের দামও বেড়েছে। বিশেষ করে কোরবানির ঈদ এলে তেঁতুল ও বেলের গাছের কাঠের দাম বাড়ে। বেল ও তেঁতুল গাছের কাঠের গুঁড়ির দামও বেড়েছে। গত বছর যে গুঁড়ি ২৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে, সেটা এবারে ৩০০ টাকায় বিক্রি করছেন। বেশি দামে কেনা, তাই বেশি দামে বিক্রি করছেন। 

লোহাগড়া উপজেলার চরকালনা গ্রামের আবদুল্লাহ আল-মারজান বলেন, কোরবানির ঈদের আগে পশু জবাই ও মাংস তৈরির উপকরণ হিসেবে দেশীয় ধারালো অস্ত্র ও গাছের গুঁড়ি কিনতে হয়। চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় মৌসুমি এসব পণ্যের দাম বাড়িয়ে দেন বিক্রেতারা। 

তিনি আরও বলেন, ঈদের নামাজ আদায় করে পশু কোরবানি দেওয়ার পর গোসত ও হাড় কাটতে এসব কাঠের গুঁড়ি লাগে। তখন খোঁজাখুঁজি করা বা অন্যের কাছ থেকে নেওয়া বিড়ম্বনা হয়ে দাঁড়ায়। তাই কিনতে এসেছেন।
 

শরিফুল/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়