ঢাকা     রোববার   ০৩ মার্চ ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৯ ১৪৩০

খুকৃবি শিক্ষকদের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৮, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩  
খুকৃবি শিক্ষকদের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা বাস্তবায়নের দাবিতে খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (খুকৃবি) শিক্ষক সমিতি মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) থেকে ফের আন্দোলনে নেমেছে। এর মধ্যে শিক্ষকরা ক্লাস-পরীক্ষা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিরত রয়েছেন। এছাড়া বিভাগীয় প্রধানসহ প্রশাসনের সঙ্গে দায়িত্বরত শিক্ষকগণ পদত্যাগ করেছেন।

এদিন সন্ধ্যায় খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক, ড. মোহাম্মদ আশিকুল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে নিয়োগ বাণিজ্য ও স্বজনপ্রীতিসহ নানা ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়ায় খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রহমান খানের পরিবারের ৯ সদস্যসহ ৭৩ শিক্ষকের নিয়োগ বাতিলের নির্দেশ দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপ-সচিব মো. মাহমুদুল আলম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত নির্দেশনাপত্র গত বছরের ৩ আগস্ট প্রেরণ করা হয়। যদিও গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বর উপাচার্য হিসেবে শহীদুর রহমানের মেয়াদ শেষ হয়।

পরবর্তীতে নিয়োগ বাণিজ্যসহ নানা অনিয়মের সত্যতা মেলায় খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক মো. শহীদুর রহমান খানের ছেলেমেয়েসহ ছয় স্বজনের নিয়োগ বাতিলের নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে তৎকালীন উপাচার্যের মেয়ে শিক্ষক এবং অন্যরা কর্মকর্তা-কর্মচারী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন। এছাড়া ত্রুটি থাকায় ২৪ শিক্ষকের পদোন্নতি স্থগিত করা হয়েছে। বাতিল হয়েছে এক শিক্ষকের পদোন্নতি। গত ৬ নভেম্বর  শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ-সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়।

এদিকে মঙ্গলবার শিক্ষক সমিতির এক বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে যে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে তাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনার কোন কিছুই বাস্তবায়িত হয়নি। ফলে গত ১ বছরের বেশি সময় ধরে ঝুলে থাকা শিক্ষকগণের পর্যায়োন্নয়ন আরও দীর্ঘায়িত হবে।

এর প্রেক্ষিতে গতকাল সোমবার (৪ ডিসেম্বর) ক্যাম্পাস-১ এ অনুষ্ঠিত শিক্ষক সমিতির  জরুরি সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রদান করা নির্দেশনা বাস্তবায়ন (আদালতে বিচারাধীন বিষয় ব্যতীত) করার দাবিতে মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) থেকে শিক্ষকগণ ক্লাস পরীক্ষা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিরত থাকবেন। এছাড়া বিভাগীয় প্রধানসহ প্রশাসনের সাথে দায়িত্বরত শিক্ষকগণ পদত্যাগ করেছেন।

/নুরুজ্জামান/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়