Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৭ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ১১ ১৪২৮ ||  ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

Risingbd Online Bangla News Portal

ছয় সপ্তাহ স্থগিত হলো রাবির সাবেক উপাচার্যের অনিয়মের তদন্ত

রাবি সংবাদদাতা: || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:২৬, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১  
ছয় সপ্তাহ স্থগিত হলো রাবির সাবেক উপাচার্যের অনিয়মের তদন্ত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ১৩৮ জন অ্যাডহকে নিয়োগে উপাচার্য প্রফেসর ড. এম আব্দুস সোবহানের করা অনিয়ম ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগের তদন্ত ছয় সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্ট।

রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) কনজিউমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) করা রিটের শুনানি শেষে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের চেম্বার জজ বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এ স্থগিতাদেশ দেন।

শুনানিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহানের পক্ষে আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক এবং রিট আবেদনকারীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী হাসান দে আজিম।

আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক বলেন, ‘হাইকোর্ট বিভাগ রাবির সাবেক উপাচার্যকে জড়িয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনকে যে আদেশ দিয়েছিল, তা স্থগিত চেয়ে আমরা আপিল বিভাগের চেম্বার জজের আদালতে আবেদন করেছিলাম। আবেদনের ওপর শুনানি শেষে আদালত দুর্নীতি দমন কমিশনের ওপর হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশনা ছয় সপ্তাহের জন্য স্থগিত রাখার কথা বলেছেন।'

৫ মে রাবির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহানের ১৩৮ শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারী নিয়োগ এবং ২০১৭ সালের শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা বাতিল চেয়ে সুপ্রীমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে কনজিউমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) পক্ষে মোবাশ্বের চৌধুরীর রিট (৭১২৩/২০২১) আবেদন করেন।  

রিটে বিবাদী করা হয়, সরকারের পক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান, দুদকের চেয়ারম্যান, রাবির বর্তমান উপাচার্য ও সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহান এবং রেজিস্ট্রারকে। এছাড়া পিটিশনারের পক্ষে ১৩৮ নিয়োগ এবং ২০১৭ সালের শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা বাতিল চাওয়া হয়।

গত ৬ সেপ্টেম্বর রিটের ওপর শুনানী শেষে দুদক চেয়ারম্যানকে রাবিতে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম ও ক্ষমতার অপব্যবহার হয়েছিল কিনা, তা তদন্ত করে ৬০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশনা দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে অ্যাডহকে ১৩৮ জনের নিয়োগ এবং ২০১৭ সালের শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা তিন মাসের জন্য স্থগিত ঘোষণা করা হয়।  সে সময় হাইকোর্ট ১৪ নভেম্বরের মধ্যে একটি কমপ্লায়েন্স রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

সাইফুর/মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়