ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২১ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

গঙ্গা-যমুনা উৎসবের শেষ দিনে ৩ নাটক

বিনোদন ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১০-২০ ১১:১৭:১০ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১০-২০ ১১:১৭:১০ এএম

গত ১০ অক্টোবর শিল্পকলা একাডেমিতে শুরু হয়েছে ১০ দিনব্যাপী ‘গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৯’। আজ রোববার এ উৎসবের পর্দা নামতে যাচ্ছে।

উৎসবের শেষ দিন মঞ্চস্থ হবে তিনটি নাটক। এগুলো হলো—‘ময়ূর সিংহাসন’, ‘ভাগের মানুষ’ ও ‘নননপুরের মেলায় একজন কমলাসুন্দরী ও একটি বাঘ আসে’। আজ সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা, এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হল ও স্টুডিও থিয়েটার যথাক্রমে প্রদর্শিত হবে এসব প্রযোজনা।

ময়ূর সিংহাসন

আরণ্যক নাট্যদলের দর্শকপ্রিয় প্রযোজনা ‘ময়ূর সিংহাসন’। ১৯৯৯ সালে প্রথম মঞ্চে আনা হয় নাটকটি। ২০০৯ সালে নাটকটির শততম মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হয়। শততম মঞ্চায়নের পর অনেকটা অনিয়মিতভাবেই প্রদর্শিত হয়ে আসছে এটি। মান্নান হীরা রচিত নাটকটির নির্দেশনায় রয়েছেন শাহ আলম দুলাল।

নাটক প্রসঙ্গে নির্দেশক বলেন, আমাদের সমাজে একটি প্রচলিত ধারণা আছে, ক্ষমতার নিকটবর্তী মানুষেরাই দেশপ্রেমিক হয়ে থাকে। কিন্তু দল, ক্ষমতা এ সবের বাইরেও বিশাল জনগোষ্ঠীর মধ্যে কোথায় কীভাবে দেশপ্রেমের অগ্নিশিখা প্রজ্বলিত রয়েছে তা দেখার অভ্যাস আমাদের গড়ে উঠেনি বললেই চলে। অথচ কত নিভৃত পল্লীতে দেশপ্রেমকে বুকে বেঁধে কত বীর নীরবে শাসকের হাতে নিগৃহীত হয়েছে, আজও হচ্ছে, তার হিসাব আমরা ক’জন রাখি?

নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন— মামুনুর রশীদ, মান্নান হীরা, মোমেনা চৌধুরী, তমালিকা কর্মকার, আমানুল হক হেলাল, পরিমল মজুমদার, আমিনুল হক, আমিন আজাদ প্রমুখ।

ভাগের মানুষ

সময় নাট্যদলের আলোচিত প্রযোজনা ‘ভাগের মানুষ’। পাকিস্তানের বিখ্যাত লেখক সা’দত হাসান মান্টো’র ছোট গল্প ‘টোবাটেক সিং’ অবলম্বনে ‘ভাগের মানুষ’ নাটকের নাট্যরূপ দিয়েছেন মান্নান হীরা। নির্দেশনা দিয়েছেন আলী যাকের। সময় নাট্যদলের ২৬তম প্রযোজনাটি ১৯৯৭ সাল থেকে মঞ্চস্থ হয়ে আসছে এটি।

নাটকটির গল্পে দেখা যায়—১৯৪৭ সালের দেশ বিভাগের কয়েক বছর পরের ঘটনা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের উত্তেজনা যেমন কমেনি, সাম্প্রদায়িক বিষ বাষ্পের তেজ তখনো নিভে যায়নি। কিন্তু ভৌগলিক সীমাবদ্ধতায় মানুষকে বেঁধে ফেলে এক ধরনের নাগরিক স্বস্তি দেবার প্রয়াস শুরু হয়েছে মাত্র।

হতাশা, ক্ষোভ, যন্ত্রণা, প্রিয়জন হারানোর বেদনা তখনও জ্বল জ্বল করছে মানুষের বুকে। মানুষের ভলোবাসা, বন্ধুত্ব, প্রেমকে দ্বিখণ্ডিত করে উপমহাদেশের এই মাটিতে রচিত হয় পাকিস্তান ও ভারত নামের দুটি রাষ্ট্র। অথচ দেশ ভাগ মানেই তো মানুষের ভাগ, মানচিত্রের ভাগ, ভূগোলের ভাগ। শুরু হয় দুই দেশের মধ্যে বিনিময় বিনিময় খেলা। মানুষের বিনিময়ে মানুষ, ধর্মের বিনিময়ে ধর্ম, পাগলের বিনময়ে পাগল।

নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন পাভেল ইসলাম, আকতারুজ্জামান, রেজাউর রহমান রিজন, ফখরুল ইসলাম মিঠু, মানসুরা রশীদ লাভলী, মাহমুদুল আলম, তোফায়েল সরকার, সুনিতা বড়ুয়া, মাকসুদুল বারী টিপু, আনোয়ার, মৌসুমী, সানী, মাসুম প্রমুখ।

নননপুরের মেলায় একজন কমলাসুন্দরী ও একটি বাঘ আসে

থিয়েটার-৫২ এর প্রথম প্রযোজনা ‘নননপুরের মেলায় একজন কমলাসুন্দরী ও একটি বাঘ আসে’। নাটকটি রচনা করেছেন বদরুজ্জামান আলমগীর। নির্দেশনা দিয়েছেন তরুণ নির্দেশক জয়িতা মহলানবীশ। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন—নূরে খোদা মাসুক সিদ্দিক, রবিন বসাক, রুবাইয়াত মনজুর পিপ, সুরভী রায়, মো. নজরুল ইসলাম, আদিব মজলিশ খান, মো. রাসেল, ইব্রাহীম তারেক, শাহিনূর শিকদার পাখি, আদ্রিতা রহমান, রামিম হাসান তপু, মোহাম্মদ নাদিম হাসান, মো. রিফাত সরকার, রায়হান খান, নূপুর শর্মা, দিপু আহমেদ প্রেম, রুদ্র রায় অপু, রাহাত ও সানি।

নাটকের সেট ডিজাইন করেছেন পলাশ হেনড্রি সেন। লাইট ডিজাইন করেছেন আসলাম অরণ্য, প্রপস পলাশ হেনড্রি সেন ও রবিন বসাক। কোরিওগ্রাফার হিসেবে কাজ করেছেন কামরুল হাসান ফেরদৌস, রবিন বসাক, নূরে খোদা মাসুক সিদ্দিক। নাটকের পোশাক ডিজাইন করেছেন আফছান আনোয়ার। প্রচ্ছদ ডিজাইন করেছেন, শাহীনুর রহমান। সংগীত পরিচালনায় এবিএস জেম। নাটকের বিভিন্ন গানে কণ্ঠ দিয়েছন চেতনা রহমান ভাষা, গোপী দেবনাথ, সুরভী রায়, মো. নজরুল ইসলাম, রতন হক ও জয়িতা মহলানবীশ। গানে সুর দিয়েছেন রতন হক। নাটকে ব্যবহৃত পাহাড়ি সুর, কীর্তনের সুর ও বিয়ের গীত সংগৃহীত।



ঢাকা/শান্ত

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন