ঢাকা, শুক্রবার, ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

প্রিয়াঙ্কার উত্তেজক পোশাক নিয়ে বিতর্ক থামছেই না

বিনোদন ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২৮ ৬:৪৩:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২৯ ১২:২৮:০৭ এএম

সম্প্রতি স্বামী নিক জোনাসকে নিয়ে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের লাল গালিচায় হাজির হন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সাদা বুক খোলা গাউন, নাভির উপর থাকা একটি উজ্জ্বল পাথর সকলের চোখ ধাঁধিয়ে দেয়।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রিয়াঙ্কার এই পোশাকের ছবি প্রকাশের পর তোলপাড় শুরু হয়েছে। অনেকেই ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। তবে নিন্দুকেরা মুখ বুজে নেই। বাক্যবাণে বিধ্বস্ত করছেন এই অভিনেত্রীকে।

ফটো শেয়ারিং সাইট ইনস্টাগ্রামে ভারতীয় ফ্যাশন ডিজাইনার ওয়েন্ডেল রড্রিকস প্রিয়াঙ্কার ছবি পোস্ট করে লিখেছেন: ‘গ্র্যামি ২০২০-তে বাজিমাত করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া! তার রালফ অ্যান্ড রুসো গাউনের নেকলাইন লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে কিউবা পর্যন্ত ছড়িয়েছে। সত্যিই সাহসী এবং সুন্দর। বেশ ভালো লেগেছে।’

তবে প্রশংসার আড়ালে রন্ড্রিকস যে প্রিয়াঙ্কাকে কটাক্ষ করেই কথাগুলো লিখেছেন তা কারো বুঝতে বাকি নেই। এই ডিজাইনারকে পাল্টা জবাব দিয়েছেন অভিনেত্রী সুচিত্রা কৃষ্ণমূর্তি। 

প্রিয়াঙ্কার ছবি পোস্ট করে এই অভিনেত্রী লিখেছেন: ‘ওয়েন্ডেল রড্রিকের কাজের প্রতি আমার সামান্য পরিমাণ হলেও শ্রদ্ধা ছিল, কিন্তু ইনস্টাগ্রামে তার পোস্ট দেখে হতাশ হয়েছি। আমার মনে হয়েছে প্রিয়াঙ্কা ক্লাচ (ব্যাগ) দিয়ে পেট ঢাকার কোনো চেষ্টাই করেননি। এ কারণেই ছবিটি আরো সুন্দর হয়েছে। তিনি যে রকস্টার তার প্রমাণ মিলেছে।’

তিনি আরো লিখেছেন, ‘তার এই আত্মবিশ্বাসই অন্য নারীদের অনুপ্রেরণা জোগায়। নারীদের সৌন্দর্য কী তা এতদিন পুরুষরাই শুধু বলে এসেছে। কিন্তু পৃথিবীর অন্যতম সেরা এই আসরে প্রিয়াঙ্কার এই ছবি প্রমাণ করে তিনি কতটা স্বাধীনচেতা। আমি কোনোদিনই তার ভক্ত ছিলাম না, কিন্তু এই ছবি আমাকে তার ভক্ত হতে বাধ্য করেছে।’

সুচিত্রা লিখেছেন, ‘পুরুষদের উদ্দেশ্যে বলছি- আমরা তোমাদের বিকৃত কল্পনার বস্তু নই, অথবা সমকামী বালকের মতো আমাদের বুক সমানও নয়। আমরা প্রকৃত নারী। আমাদের স্তন রয়েছে। ফ্যাট আছে, ওয়াটার রিটেনশনও হয়। এরপরও আমরা ‘রক অ্যান্ড রোল’ করি। কারণ অবশেষে সৃষ্টিকর্তা যে উদ্দেশ্যে আমাদের পাঠিয়েছেন তা করছি। পুরুষরা যেভাবে আমাদের দেখতে চায় সেভাবে নয়।’

‘আমরাও রক্ত মাংসের তৈরি এবং এর মহৎ উদ্দেশ্য রয়েছে। যখন আমাদের সন্তান হয় সবকিছু আরো সুন্দর হয়ে ওঠে— এই বিষয়গুলো আদি মনোভাবাপন্ন মস্তিষ্কের অন্ধকার অংশে বোধগম্য হবে না। সুতরাং কুচিন্তাগ্রস্ত পুরুষরা বোঝার চেষ্টা করো- শুধু শরীর দিয়ে নয়, দক্ষতা, প্রতিভা দিয়ে আমাদের বিচার করতে হবে। আমরা সবাই নিজেদের কাছে রকস্টার। কেউ কি পুরুষের শরীর অথবা এই ধরনের পোশাক নিয়ে কখনো মন্তব্য করে? সৃষ্টিকর্তা জানেন, প্রতিনিয়ত তাদের কত অদ্ভুত ছবি আমাদের দেখতে হয়। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া আরো সাহসী হয়ে ওঠো। আমি আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে আমার ‘বেবি স্ট্রেচ মার্ক’ প্রকাশ করব, যেন ভবিষ্যতে সব সন্তানরাই আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বেড়ে উঠতে পারে। তোমার সঙ্গল হোক।’

তবে প্রিয়াঙ্কাই যে প্রথম এ ধরনের পোশাক পরেছেন তা কিন্তু নয়। এর আগে ২০০০ সালে একই রকম পোশাক পরেছিলেন গায়িকা জেনিফার লোপেজ। এছাড়া কিম কার্দাশিয়ান, দিশা পাটানি, মালাইকা আরোরা, বিয়ন্সে এই ধরনের পোশাক পরেন।

** সাহসী পোশাকে ভাইরাল প্রিয়াঙ্কা


ঢাকা/মারুফ/তারা