ঢাকা     শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯ ||  ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

‘তারকাদের নাম ভাঙিয়ে প্রোডাকশন বিক্রি বন্ধ হোক’

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:০৩, ২৯ জুন ২০২১   আপডেট: ২০:০৯, ২৯ জুন ২০২১
‘তারকাদের নাম ভাঙিয়ে প্রোডাকশন বিক্রি বন্ধ হোক’

দুই পর্দার গুণী অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। একাধারে নাটক, চলচ্চিত্র এবং ওটিটি প্ল‌্যাটফর্মের কাজ নিয়ে ব‌্যস্ত সময় পার করছেন। মাঝে মধ‌্যে দেশের নাটক-চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রির নানা অসঙ্গতি নিয়ে কথা বলতেও দেখা যায় তাকে। এবার যার যার প্রাপ্তি তার তার হোক এমন দাবি তুলেছেন এই তারকা। এ নিয়ে তার ভেরিফায়েড ফেসবুকে একটি স্ট‌্যাটাস দিয়েছেন।

চঞ্চল চৌধুরী লিখেন, ‘একটা সময় পর্দায় লেখা হতো সত্যজিৎ রায়ের ‘পথের পাঁচালী’ বা হুমায়ূন আহমেদের ‘শঙ্খনীল কারাগার’ বা মামুনুর রশীদের নাটক বা মোস্তফা সরোয়ার ফারুকীর ‘ডুব’ বা সালাউদ্দিন লাভলুর নাটক। এ রকম মেনে নিতে আপত্তি নেই। কারণ যার লেখা তারই ডিরেকশন হলে এটা লেখা যায়। কিন্তু ইদানীং দেখি, দেশি-বিদেশি ওটিটি প্ল‌্যাটফর্মগুলোতে শিল্পীর নামে লেখা হয় অমুকের নাটক বা ওয়েব সিরিজ। যেহেতু শিল্পীদেরকেই দর্শকরা বেশি চেনেন, সেই ব্যবসায়ীক সুযোগটা নেবার জন্য এ রকম লেখা হচ্ছে।’

প্রশ্ন ছোড়ে দিয়ে চঞ্চল চৌধুরী লিখেন, ‘‘এবার বলুন তো একটি নাটক বা সিনেমার মালিকানা কার? আসলে প্রডিউসারের। প্রচারের সার্থে যদি ডিরেক্টরের নাম যায়, তাও মেনে নেওয়া যায়। যেমন: গিয়াস উদ্দিন সেলিমের সিনেমা ‘মনপুরা’ বা অমিতাভ রেজার ‘আয়নাবাজি’। কিন্তু যদি লেখা হয় চঞ্চল চৌধুরীর ‘তাকদীর’? আমি বলব, এটা ঠিক নয়। ‘তাকদীর’ সৈয়দ শাওকীর বা হইচইয়ের। আমি এতে অভিনয় করেছি মাত্র। লিখলে এটুকুই লিখবেন—চঞ্চল চৌধুরী অভিনীত ‘তাকদীর’।’’

নাটক-চলচ্চিত্রের চিত্রনাট‌্যকাররা বরাবরই আড়ালে থেকে যান। বিষয়টি স্মরণ করে এই অভিনেতা লিখেন, ‘চিত্রনাট‌্যকারদের কথা কী বলব? তারা তো সর্বদাই অবহেলিত। যার যার প্রাপ্তি তার তার হোক। নাম বেচা বন্ধ হোক। তারকাদের নাম ভাঙিয়ে প্রোডাকশন বিক্রি বা প্রচার বন্ধ হোক। নাটক বা সিনেমা টিম ওয়ার্ক। এটা মনে রাখলেই চলবে।’

ঢাকা/শান্ত

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়