ঢাকা     শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৯

নারী ফুটবলারদের সঙ্গে ভাবনার আনন্দঘন মুহূর্ত

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:২৪, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১৪:২৮, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
নারী ফুটবলারদের সঙ্গে ভাবনার আনন্দঘন মুহূর্ত

নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। গত ১৯ সেপ্টেম্বর নেপালের কাঠমান্ডুর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে নেপালকে উড়িয়ে ৩-১ গোলে প্রথমবার সাফের শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দল। দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট নিয়ে ২১ সেপ্টেম্বর দুপুরে বাংলাদেশে পা রাখেন নারীরা। এ বিজয়ের উল্লাসে মেতে উঠে সব শ্রেণি-পেশার মানুষ।

এখনো এই প্রাপ্তির অনুভূতিতে ভাটা পড়েনি। তাই তো অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা ছুটে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের সদস্যদের কাছে। মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে বাফুফে ভবনে যান ভাবনা। সেখানে আঁখি-সাবিনাদের সঙ্গে কেক কেটে আনন্দঘন সময় পার করেন এই অভিনেত্রী। খেলোয়াড়দের মধ্যে এসময় উপস্থিত ছিলেন—সাবিনা খাতুন, আঁখি খাতুন, সোহাগী, ঋতুপর্ণা চাকমা, শিউলী আজিম, মাসুরা পারভীন প্রমুখ।

এদিকে মাসুরা পারভীন তার ফেসবুকে এ সময়ের কয়েকটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন—‘চিত্রনায়িকা ভাবনা আপু আমাদের বাফুফে ভবনে এসে আমাদের সাথে কিছু সময় কাটান, গল্প করেন এবং কেক কাটেন। খুব সুন্দর সকাল শুরু করলাম।’ অন্যদিকে ভাবনাও তার ফেসবুক পেজে এ মুহূর্তের একটি ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করেছেন।

নারী ফুটবল দলের বিজয়, পুরুষতান্ত্রিক নৃশংসতার জবাব বলে মনে করেন ভাবনা। তার ভাষায়, ‘আমাদের মেয়েরা সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী হয়েছেন। এ শুধু একটি টুর্নামেন্টে বিজয় নয়, নারীর প্রতি অবমাননা, নারীকে হেয় করার প্রবণতা, পুরুষতান্ত্রিক নৃশংসতা—এর সবকিছুরই জবাব বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের এই বিজয়।’

‘কত বড় বড় বাধার প্রাচীর দুমড়েমুচড়ে নারী খেলোয়াড়দের এগিয়ে যেতে হয়, তা সবাই জানে। ক্রীড়াঙ্গনে পা ফেলতে হলে নারীদের কত দিকের, কত প্রতিবন্ধকতা পার হতে হয়, সে ব্যাপারও কারো অজানা নয়। রক্ষণশীল, পশ্চাৎপদ পুরুষতান্ত্রিক মানসিকতা ভাবনাজগতকে গ্রাস করতে থাকলে মুক্তি মেলে না। আমরা এখনো সেই মানসিকতার বিরুদ্ধে জয়ী হতে পারিনি।’ বলেন ভাবনা।

নারী খেলোয়াড়দের জড়িয়ে ধরার জন্য অপেক্ষায় ছিলেন ভাবনা। তা জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘এরকম পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের মেয়েরা দেশের জন্য বয়ে এনেছেন বিশাল সম্মান। আমি অপেক্ষায় ছিলাম কবে তাদের জড়িয়ে ধরবো, একসাথে চিৎকার করে বলব- দাবায় রাখতে পারবা না।’

ঢাকা/শান্ত

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়