ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

যে গ্রামে এক স্বামীর দুই বউ

শাহিদুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-২২ ৮:৩০:১৮ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-২২ ১১:৪৭:২০ এএম

একজন পুরুষের একের অধিক বিয়ে করা সামাজিক রীতিবিরুদ্ধ কাজ নয়। পৃথিবীর অনেক ধর্মেই শর্তসাপেক্ষে পুরুষদের একের অধিক বিয়ে করার অনুমতি দেয়া হয়েছে। তাই বলে সমাজের সব পুরুষই যে একের অধিক বিয়ে করেন তা নয়। তবে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের রাজস্থানের বারমার জেলার এমন একটি গ্রাম আছে যেখানে প্রত্যেক পুরুষের দু’টি স্ত্রী আছে। অর্থাৎ এই গ্রামের প্রত্যেক পুরুষ দু’টি বিয়ে করে।

পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী এই গ্রামের নাম ড্রিসার। গ্রামে প্রায় ছয়শ লোকের বসবাস। এক অদ্ভুত বিশ্বাসের কারণে গ্রামের পুরুষেরা দুই বিয়ে করেন। তাদের বিশ্বাস দুই বিয়ে না করলে তারা সন্তান লাভ করবে না। তাছাড়া গ্রামে দুই বিয়ে করাটাকে পারিবারিক আশীর্বাদ হিসেবেও বিবেচনা করা হয়।

তবে এই বিশ্বাস যে একেবারেই অমূলক তা কিন্তু নয়। কারণ গ্রামে এমনও বয়স্ক পুরুষ আছেন যারা এক বিয়ে করেছেন এবং দীর্ঘদিন অপেক্ষা করেও তাদের কোনো সন্তান হয়নি। ফলে তারা একরকম বাধ্য হয়েই আবার বিয়ে করেছেন। বিয়ের পর নিঃসন্তান দম্পত্তির তিন বাচ্চা হওয়ারও উদাহরণ আছে।

এই অদ্ভুত বিশ্বাসের পাশাপাশি পুরুষের দুই বিয়ে করার একটি অন্য কারণও আছে। কারণটি হচ্ছে- এই গ্রাম থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার হেঁটে মেয়েদের খাওয়ার পানি সংগ্রহ করতে হয়। একটি গর্ভবতী নারীর পক্ষে এতো দূর হেঁটে পানি সংগ্রহ করা সম্ভব নয়। ফলে পুরুষেরা এই পানি সংগ্রহের কাজ এবং ঘরের নিত্যনৈমিত্তিক কাজের জন্য হলেও দ্বিতীয় বিয়ে করেন।

অদ্ভুত বিশ্বাস বা দৈনন্দিন কাজের সুবিধা- যাই হোক না কেন- এই গ্রামের পুরুষেরা বংশানুক্রমে দুই বিয়ে করে আসছে। সম্ভবত কোনো বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা না পাওয়া পর্যন্ত তাদের এই ধারা সামনের দিনগুলোতে অব্যাহত থাকবে। অথবা এগিয়ে আসতে হবে অক্ষয় কুমারের মতো কোনো নায়ককে। যিনি ‘টয়লেট- এক প্রেমকথা’ বা ‘প্যাডম্যান’-এর মতো সিনেমা বানিয়ে মানুষকে সচেতন করবেন।

 

ঢাকা/তারা

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন