ঢাকা     শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ১৭ ১৪২৯ ||  ০১ জিলহজ ১৪৪৩

দাবানলের সামনে টিকটক করে তোপের মুখে পাকিস্তানি তারকা

অন্য দুনিয়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৬, ১৮ মে ২০২২   আপডেট: ২০:০৫, ১৮ মে ২০২২
দাবানলের সামনে টিকটক করে তোপের মুখে পাকিস্তানি তারকা

পাকিস্তানের জনপ্রিয় মডেল ও টিকটক তারকা হুমাইরা আসগর। টিকটকে তার ফলোয়ার সংখ্যা ১ কোটিরও বেশি। সুন্দরী এই মডেলের দারুণ সব টিকটক ভিডিও নিয়ে প্রশংসার প্রতিযোগিতা চলে নেটিজেনদের মধ্যে।

তবে এবার তার একটি ভিডিও সমালোচনার ঝড় তুলেছে। আগুন লেগে বন পুড়ে যাচ্ছে আর তার সামনেই পোজ দিয়ে সম্প্রতি একটি টিকটক ভিডিও বানিয়েছিলেন হুমাইরা। ১৫ সেকেন্ডের ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে ঠিকই, কিন্তু তীব্র সমালোচনার কারণে।

ভিডিওর ক্যাপশনে হুমাইরা লিখেছেন, ‘আমি যেখানেই যাই আগুন ধরে যায়’। ভিডিওতে দেখা যায়, পেছনে পাহাড়ে আগুন জ্বলছে তার সামনে অভিনয় করে চলেছেন তিনি। প্রাকৃতিক এই বিপর্যয় নিয়ে মজা করা মোটেও হালকাভাবে নেননি তার ভক্তরা। এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন ভিডিও নিয়ে এখন সমালোচনার ঝড় চলছে।

বর্তমানে পাকিস্তান জুড়ে দাবদাহ চলছে। দেশটির অনেক অঞ্চলে তীব্র গরমে হাঁসফাঁস অবস্থা বাসিন্দাদের। এর মধ্যে হুমাইরার এমন ভিডিও দেখে ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা। সাধারণ নাগরিক থেকে শুরু করে পরিবেশবিদ- সবাই তার সমালোচনায় মুখর হয়েছেন। এ প্রসঙ্গে পাকিস্তানের এক সংবাদমাধ্যমকে ইসলামাবাদ ওয়াইল্ডলাইফ ম্যানেজমেন্ট বোর্ডের চেয়ারপার্সন ও পরিবেশকর্মী রিনা সইদ খান সাট্টি বলেন, ‘বনের মধ্যে আগুন লাগাকে গ্লামারাইজ করার বদলে সেই আগুন নেভানোর জন্য তার এক বালতি পানি হাতে দাঁড়ানো উচিত ছিল।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই ভিডিওগুলো খুবই খারাপ বার্তা দিচ্ছে জনগণকে। পরিবেশ কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা বোঝানোর চেষ্টা করা হচ্ছে না।’

হুমাইরার ফলোয়াররাও তার ওই ভিডিওর কমেন্ট বক্সে সমালোচনায় মুখর হয়েছেন। প্রবল সমালোচনার মুখে পড়ে ভিডিও ক্লিপটি সরিয়ে নিয়েছেন হুমাইরা। যদিও সেই ক্লিপের কিছু অংশ টুইট করেছেন অনেকে। টুইটারে অনেকেই লিখেছেন ‘যদি কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নেয় তাহলে তাকে অন্তত সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্লক করতে পারেন।’ এর পাশাপাশি তার কঠোর শাস্তির দাবিও উঠেছে। 

হুমাইরার বিরুদ্ধে ইচ্ছে করে আগুন লাগিয়ে দাবানলের মতো পরিবেশ তৈরি করে ভিডিওটি বানানোর অভিযোগও করেছেন কেউ কেউ। তবে হুমাইরার দাবি, আগুন তিনি জ্বালাননি। শুধু ভিডিওটি রেকর্ড করেছেন। আর ভিডিও রেকর্ড করা কোনো অপরাধ হতে পারে না।

/ফিরোজ/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়