Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৫ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১০ ১৪২৮ ||  ১৩ জিলহজ ১৪৪২

বিড়াল কার, বছর পেরিয়েও বিবাদ মেটেনি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:০১, ১৭ জুন ২০২১   আপডেট: ২২:০২, ১৭ জুন ২০২১
বিড়াল কার, বছর পেরিয়েও বিবাদ মেটেনি

বিড়ালবিষয়ক কর্মকাণ্ড নিয়ে ফেসবুক-ইউটিউবে আলোচিত ‘পুচি ফ্যামিলি’র তাপসী দাশের বিরুদ্ধে বিড়ালের ওপর নির্যাতনসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। একটি বিড়ালের মালিকানা নিয়ে তার সঙ্গে বিবাদে জড়িয়েছেন রাজধানীর শাহজাহানপুরের বাসিন্দা মুনিরা আক্তার। মুনিরার অভিযোগ, তাপসী দাশকে একটি বিড়াল লালন-পালন করতে দিয়েছিলেন তিনি। ওই বিড়ালের ওপর নির্যাতন চালিয়েছেন তাপসী। এখন বিড়ালটি ফেরত চাইলে তা দেওয়া হচ্ছে না। এদিকে, বিড়ালের প্রকৃত মালিক দাবিদার মুনিরা আক্তারকে আদালতের দ্বারস্থ হতে পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ। মুনিরা আক্তারের পক্ষে আইনি লড়াই করছে পশু অধিকারবিষয়ক সংগঠন এএলবি এনিম‌্যাল শেল্টার।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) বিকেলে পল্লবী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পারভেজ ইসলাম রাইজিংবিডিকে জানিয়েছেন, উভয় পক্ষ আজ থানায় এসেছিল। তাপসী দাশ দাবি করেছেন, বিড়ালের ওপর কোনো নির্যাতন হয়নি। আরেক পক্ষ, বিড়ালের মালিকানা দাবি করলেও এ বিষয়ে কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেনি। তাদেরকে আদালতের দ্বারস্থ হতে বলা হয়েছে।

এনিম‌্যাল শেল্টারের প্রতিষ্ঠাতা দীপান্বিতা রিদি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ১২ জুন পল্লবী থানায় করা লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে তাপসী দাসের বাসায় অভিযান চালিয়ে নির্যাতনের শিকার বিড়াল উদ্ধার করার কথা ছিল। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে সেখানে পুলিশ অভিযান চালায়নি।

পুলিশ জানতে পেরেছে, থানায় অভিযোগ দায়েরের পর তাপসী দাস বাসা থেকে ওই বিড়াল নিয়ে বেরিয়ে যান। পরে তাপসী সামাজিক যোগাযোগ মাধ‌্যমে জানান, তিনি বিড়াল নিয়ে ঘুরতে বের হয়েছেন।

থানায় মুনিরা আক্তারের অভিযোগে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি পুচি ফ্যামিলি নামের ফেসবুক পেজের মালিক মিরপুরের ডিওএইচএসের বাসিন্দা তাপসীর কাছে আমার এক মাস বয়সী বিড়ালছানাকে লালন-পালনের জন্য দিই। তাপসী ফেসবুক লাইভে এসে আমার বিড়ালছানাসহ অন্য বিড়ালছানাদের মারধর করে আসছেন। বিষয়টি দেখে তাপসীর কাছে আমার বিড়ালছানাটি ফেরত দিতে বলি। তিনি তা ফেরত না দিয়ে ফেসবুক লাইভে এসে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং চরিত্র নিয়ে বাজে মন্তব্য করেন।

ঢাকা/মাকসুদ/রফিক

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়