ঢাকা     বুধবার   ১৭ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ২ ১৪২৯ ||  ১৮ মহরম ১৪৪৪

পদ্মা সেতু: পরিবহনে সৃষ্টি হবে নব জাগরণ

বেলাল রিজভী, মাদারীপুর || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৪১, ৯ জুন ২০২২   আপডেট: ১১:৪৬, ৯ জুন ২০২২
পদ্মা সেতু: পরিবহনে সৃষ্টি হবে নব জাগরণ

আগামী ২৫ জুন যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের বহুল প্রত্যাশিত স্বপ্নের পদ্মা সেতু। উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই সেতুকে ঘিরে মানুষের দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন। এর ফলে ২১ জেলার যোগাযোগের দ্বার উন্মোচিত হবে। গাড়ির চাকার সঙ্গে ঘুরবে অর্থনীতিরও চাকা।

এক সময় মাদারীপুর থেকে যাত্রীবাহী বাসে রাতে ঢাকায় যাওয়া যেতো না। সন্ধ্যায় পরই মাদারীপুরের যাত্রীবাসী গাড়িগুলো বন্ধ করে দিতেন মালিকরা। বিশেষ করে কাঁঠালবাড়ি ও বাংলাবাজার ফেরিঘাটে রাতে ভোগান্তির কারণে এই সমস্যার সৃষ্টি হতো। কিন্তু এখন ভোগান্তি কাটিয়ে নতুন দিনের স্বপ্ন দেখছে মাদারীপুরবাসী। 

পদ্মা সেতু উদ্বোধনের কারণে মাদারীপুর ও দক্ষিণাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থায় আসবে আমূল পরিবর্তন। মাদারীপুরে তাই নতুন বাস তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন শ্রমিকরা। 

সংশ্লিষ্ঠ একাধিক সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগের অন্যতম রুট মুন্সীগঞ্জের শিবচর উপজেলার শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌরুট। ফেরি স্বল্পতা সহ নানা জটিলতায়, দীর্ঘদিন ধরে ভোগান্তির সম্মুখীন হতে হতো এই রুট ব্যবহারকারীদের। তবে এইবার পদ্মা সেতুর চালুর সঙ্গে সঙ্গে মাদারীপুর থেকে সহজেই বাসে করে ঢাকা যেতে পারবেন এই এলাকার যাত্রীরা। তাই মানুষের যোগাযোগের এক নতুন অধ্যায় যোগ হতে যাচ্ছে পদ্মা সেতুকে ঘিরে। 

জেলা বাস মালিক সমিতি সূত্রে জানা গেছে, পদ্মাসেতু চালু উপলক্ষে মাদারীপুরে টু ঢাকা রুটে মাদারীপুর জেলা বাস মালিক সমিতির ২২টি বাসের সঙ্গে সংযুক্ত করা হবে আরো ২৫টি নতুন বাস। এছাড়া মাদারীপুরের সার্বিক পরিবহনের ৫৭ টি গাড়ির সঙ্গে যুক্ত হবে নতুন ২০ টি চেয়ার কোচ ও ৫ টি এসি গাড়ি। মাদারীপুরের চন্দ্রা পরিবহন, সোনালী পরিবহনের মালিকপক্ষ আরো নতুন বাস সংযোজন করার কথা ভাবছেন।

সরেজমিনে মাদারীপুর পুরান বাসস্টান্ড এলাকা ও সার্বিক পরিবহনের বাস ডিপোতে গিয়ে দেখা যায়ে, ইতোমধ্যে কয়েকটি নতুন বাস তৈরির করা সম্পন্ন হয়েছে। নতুন করে আরো কয়েকটি বাস তৈরির কাজ করছেন শ্রমিকরা। কয়েকজন শ্রমিককে বডি ফিটিং শেষে পেন্টিং ও ডেকোরেশনের কাজ করতে দেখা গেছে। 

মাদারীপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মমসাদ-উজ্জামান মিমুন বলেন, ‘আমাদের সব কাজ ঢাকামুখী। আমাদের প্রতিনিয়ত এই রুটেই যাতায়াত করতে হয়। পদ্মা সেতু চালু হলে যোগাযোগের নতুন মাত্রা যোগ হবে পরিবহনে। আমাদের প্রত্যাশা বাংলাদেশের ভালো ভালো কোম্পানির গাড়িগুলো এইরুটে আসুক এবং স্থানীয় বাস কোম্পানি গুলো নতুন নতুন বাস এইরুটে চালু করুক।’ 

বাস নির্মাণ শ্রমিক সুরেশ চন্দ্র সরকার বলেন, ‘পদ্মা সেতুর চালু হবে, তাই আমাদেরও কাজের চাপ দ্বিগুণ বেড়ে গেছে। আমাদের শ্রমিকরা দিন রাত এক করে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা নতুন নতুন ডিজাইনের গাড়ির বডি তৈরি করছি।’ 

সার্বিক পরিবহনের তত্ত¡াবধায়ক আবুল হোসেন বলেন, ‘পদ্মা সেতুর কারণে আমরা গাড়িতে নতুন নতুন চেসিস সংযোজন করছি। এছাড়াও আমরা নতুন ৬ গাড়ি তৈরি করছি, সামনে আরো তৈরি করা হবে। পদ্মা সেতু চালু উপলক্ষে, পুরাতন গাড়িগুলোকে মেরামত সহ পেন্টিংয়ের কাজ শেষ করে দ্রুত এগুলো রাস্তায় নামানো হবে।’ 

মাদারীপুর জেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান হাওলাদার বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালুর ফলে এ অঞ্চলে প্রসার ঘটবে পরিবহন ব্যবসার। মাদারীপুরের সার্বিক, সোনালী ও চন্দ্রা পরিবহনের বাইরে আমরা জেলা বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ২০ টি নতুন গাড়ি ঢাকামুখী করবো। আমাদের মালিক সমিতির পক্ষ থেকে যাত্রীদের সব ধরনের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হবে।’

মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড.রহিমা খাতুন বলেন, ‘নতুন নতুন গাড়ি আসলে যাত্রী সেবা বাড়বে। এই ব্যবসায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরেন সহযোগীতা করা হবে।’

মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়