ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ৯ ১৪৩০

মুখোরোচক খাবার বিক্রি করে স্বাবলম্বী সোহেল

চাঁদপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১৬, ২৮ জানুয়ারি ২০২৪  
মুখোরোচক খাবার বিক্রি করে স্বাবলম্বী সোহেল

বাজারে দ্রব্য মূল্যের ঊর্দ্ধগতি থাকা সত্ত্বেও মাত্র ৫০ টাকায় আস্ত সেদ্ধ ডিম, সালাদসহ মোরগ পোলাও বিক্রি করেন চাঁদপুরের হাইমচরের মো. সোহেল দেওয়ান। এর সঙ্গে মুখরোচক আরও ২২ প্রকারের খাবার আছে তার। এই ২৩ প্রকারের খাবার বিক্রি করেই সাবলম্বী হয়েছেন তিনি।

স্বল্প মূল্যে খাবার খাওয়ার পাশাপাশি নিরিবিলি পরিবেশে এখানে বসে সময় কাটানো যায় বলে প্রতিনিয়ত দূর দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন ভোজন রসিকরা। এভাবে বেচা-বিক্রিতে দিনে সব খরচ বাদ দিয়ে তার ৩-৪ হাজার টাকা লাভ থাকছে বলে জানিয়েছেন সোহেল।

গতকাল শনিবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুরে চরভৈরবীর ৩নং ওয়ার্ডের টমটম ব্রিজ এলাকায় গেলে সোহেলের দোকানে ৫০ টাকার মোরগ পোলাও খেতে নারী-পুরুষের ভিড় দেখা যায়।

স্থানীয়রা জানান, সেদ্ধ ডিমসহ মোরগ পোলাও সোহেল দেওয়ান নামের এক যুবক বিক্রি করছেন মাত্র ৫০ টাকায়। সঙ্গে দিচ্ছেন সালাদও। শুধু তাই নয়, তার এখানে মোরগ পোলাওয়ের পাশাপাশি নুডলস, ঝাল মুড়ি, চটপটি, ফুচকা, বুট, চাউল ভাজা, চানাচুর মাখাসহ আরও ২২ প্রকারের মুখরোচক খাবার পাওয়া যায়। দ্রব্য মূল্যের ঊর্দ্ধগতিতেও স্বল্প মূল্যে এভাবে খাবার পাওয়া যায় বলেই দূর দূরান্ত থেকে দোকানটিতে খেতে আসেন অনেকেই।

সোহেল ঝালমুড়ি ও ফুচকার দোকানের স্টাফ মো. নিরব জানান, এখানে নারীদের বসার জন্য আলাদা তিনটিসহ মোট পাঁচটি কেবিন রয়েছে। আলগী, জনতা বাজার, খাদেরগঞ্জ, হাইমচর, হাওলাদার বাজারসহ বেশকিছু স্থান থেকে প্রতিনিয়ত নারী-পুরুষ এখানে এসে খাবার খায়। তাছাড়া মহাজনও ভালো, তাই আমি নিজেও আনন্দ নিয়ে কাজ করি।

জানা যায়, টমটম ব্রিজ এলাকার এ দোকানটি প্রতিদিন দুপুর ২টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত চলে। দোকান খোলার পর থেকেই ভিড় লেগে থাকে।
সোহেল দেওয়ান একই এলাকার মো. জহিরুল হক দেওয়ান ও তাছলিমা বেগম দম্পতির চার ছেলেমেয়ের মধ্যে সবার বড়। বর্তমানে তার স্ত্রীসহ ‍দুই ছেলে-মেয়ে রয়েছে। সন্তানরা স্কুলে পড়ালেখা করে।

এ বিষয়ে মো. সোহেল দেওয়ান বলেন, একসময় আমি ঘুরে ঘুরে আচার বিক্রি করতাম। এরপর প্রায় দুই যুগ ধরে এ দোকানটি ভাড়া নিয়ে চটপটি ফুচকাসহ মুখোরোচক খাবার বিক্রি করি। এখন সাবলম্বী হয়েছি। বর্তমানে এই দোকানের ৫০ টাকায় সেদ্ধ ডিমসহ মোরগ পোলাওটি বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আমার দোকানে দুইজন লোক রাখা আছে। খাবারের গুণগত মান ও সুনাম ধরে রেখে ব্যবসাকে সফলতার সঙ্গে এগিয়ে নিতে সবার দোয়া চাচ্ছি।

/অমরেশ/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়