ঢাকা     বুধবার   ০৬ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২২ ১৪২৯ ||  ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

প্রতিবন্ধী ভাতা বাড়ছে ১০০ টাকা

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫২, ২৮ মে ২০২২  
প্রতিবন্ধী ভাতা বাড়ছে ১০০ টাকা

ফাইল ফটো

আগামী ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেটে প্রতিবন্ধী ভাতা ১০০ টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হচ্ছে। বর্তমানে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা প্রতি মাসে ৭৫০ টাকা পাচ্ছেন। এটা বেড়ে ৮৫০ টাকা হচ্ছে। তবে, সামাজিক নিরাপত্তা খাতে অন্যান্য সুবিধাভোগীদের ক্ষেত্রে কোনো পরিবর্তন এখন পর্যন্ত নেই।

অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ব অর্থনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকার বিভিন্ন খাতে কৃচ্ছতাসাধনের নীতি গ্রহণ করছে। এ অবস্থায় অর্থ সংকটের কারণে আগামী অর্থবছরের বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ তেমন একটা বাড়ছে না। অন্যান্য ভাতার হার অপরিবর্তিত রাখা হচ্ছে। এমনকি সামাজিক নিরাপত্তা খাতের উপকারভোগীর সংখ্যাও বাড়ানো হচ্ছে না।

একমাত্র প্রতিবন্ধী ভাতা ছাড়া আর কোনো ভাতা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হচ্ছে না। সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রতিবন্ধী ভাতা বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা করার প্রস্তাব করেছিল। প্রতিবন্ধীদের জীবনমানের কথা বিবেচনা নিয়ে তাদের ভাতা ১০০ টাকা বাড়িয়ে ৮৫০ টাকা করা হচ্ছে।

প্রথম দিকে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ ১ লাখ ১৩ হাজার কোটি টাকা করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু, পর্যাপ্ত অর্থ জোগাড় অনিশ্চিত হওয়ায় অবশেষে এ খাতে বরাদ্দ ৩ হাজার কোটি টাকা কমিয়ে ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকা করার প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে। 

এ বিষয়ে বাজেট সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা বলেছেন, ‘সাধ ও সাধ্যের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টির কারণে এবার সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ বাড়ছে না। বিদ্যমান বৈশ্বিক পরিস্থিতির কারণে আগামী অর্থবছরে অর্থ প্রাপ্তিতে সমস্যায় পড়তে হতে পারে। তাই, বিভিন্ন খাতে বরাদ্দ কমানো হচ্ছে।’

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী, চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরে সুবিধাভোগী প্রতিবন্ধী মানুষের সংখ্যা ২০ লাখ ৮ হাজার জন। এ খাতে ব্যয়ের জন্য চলতি বাজেটে ১ হাজার ৮২০ কোটি টাকা বরাদ্দ আছে।

অর্থ বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, দেশে সামাজিক নিরাপত্তাবেষ্টনী খাতের আওতায় ১২৩টি কর্মসূচি বা বিষয় আছে। এগুলো বাস্তবায়নের দায়িত্ব পালন করছে ২৪টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ। এগুলোর মধ্যে ৮টি কর্মসূচি হচ্ছে নগদ ভাতা, আর ১১টি খাদ্য সহায়তা।

সামাজিক নিরাপত্তাবেষ্টনী কর্মসূচির আওতায় অসচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা ছাড়াও বয়স্ক ভাতা, স্বামী নিগৃহীতা ও বিধবা ভাতা, দরিদ্র মা’র মাতৃত্বকালীন ভাতা, শহীদ পরিবার ও যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ও সম্মানি ভাতা, হিজড়া, বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন ভাতা প্রভৃতি দেওয়া হচ্ছে। এসব ভাতার পরিমাণ বাড়ছে না। গত তিন অর্থবছর ধরে উপকারভোগীরা মাসে ৫০০ টাকা করে ভাতা পাচ্ছেন। আগামী অর্থবছরেও একই পরিমাণ ভাতা দেওয়া হবে।

নতুন বাজেটে ছয় খাতে ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব করা হচ্ছে। এ ছয় খাত হলো—খাদ্য নিরাপত্তা, সামাজিক কল্যাণ, মানবসম্পদ উন্নয়ন, কর্মসৃজন, অবসর ও পারিবারিক ভাতা এবং অন্যান্য। আগামী অর্থবছর খাদ্য নিরাপত্তায় ১৯ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি বাজেটে এ খাতে ১৮ হাজার ৪৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ আছে। সে হিসাবে বরাদ্দ বাড়ছে ৫৭০ কোটি টাকা। খাদ্য নিরাপত্তায় ওএমএস, ভিজিডি, ভিজিএফ, কাবিখা, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি আছে।

সূত্র জানায়, বাজেটে সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে সামাজিক কল্যাণ খাতে—২৪০ কোটি টাকা বাড়ছে। এ খাতে ৩৩ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি বাজেটে ৩২ হাজার ৭৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ আছে। এ খাতের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্যকেন্দ্র এবং বেদে, হিজড়া, অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে সাহায্য করা হয়।

মানবসম্পদ উন্নয়নে ৬ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি বাজেটে আছে ৫ হাজার ৯২১ কোটি টাকা। প্রতিবন্ধীদের শিক্ষা উপবৃত্তি, প্রাথমিক ছাত্র-ছাত্রী উপবৃত্তি, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক উপবৃত্তিতে এ টাকা খরচ করা হবে।

কর্মসৃজন খাতে আগামী বাজেটে ১৯ হাজার ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হচ্ছে। চলতি বাজেটে ১৮ হাজার ৮৪৩ কোটি টাকা বরাদ্দ আছে। কাবিখা, উন্নয়ন প্রকল্প বা কর্মসূচিতে বরাদ্দের টাকা ব্যয় হয়।

অবসর ও পারিবারিক ভাতায় নতুন বাজেটে ২৭ হাজার ৮০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হচ্ছে। চলতি বাজেটে ২৬ হাজার ৬৯০ কোটি টাকা বরাদ্দ আছে। বয়স্ক, বিধবা, অসচ্ছল প্রতিবন্ধী, মাতৃত্বকালীন ভাতা, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি দিতে এ টাকা ব্যয় করা হবে।

এছাড়া, নতুন বাজেটে ক্ষুদ্র ঋণ কর্মসূচি বাস্তবায়নে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রস্তাব করা হচ্ছে। চলতি বাজেটে এ খাতে ৪ হাজার ৯৭০ কোটি টাকা বরাদ্দ আছে।

হাসনাত/রফিক

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়