Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৩ ১৪২৮ ||  ০৯ সফর ১৪৪৩

স্মার্টফোনে ফ্ল্যাশ চার্জিং প্রযুক্তির নতুন মাইলফলক

প্রকাশিত: ১৮:৫০, ২৮ জুলাই ২০২১   আপডেট: ২৩:০৪, ২৮ জুলাই ২০২১
স্মার্টফোনে ফ্ল্যাশ চার্জিং প্রযুক্তির নতুন মাইলফলক

বিশ্বব্যাপী স্মার্টফোনে ফ্ল্যাশ চার্জিংয়ের পথিকৃত অপো সম্প্রতি পালন করেছে ‘ফ্ল্যাশ চার্জ ওপেন ডে’। ‘ফ্ল্যাশ চার্জের পর কি’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দিবসটি পালিত হয়। সেখানে ফ্ল্যাশ চার্জ প্রযুক্তির সর্বশেষ নানা অগ্রগতির কথা তুলে ধরে প্রতিষ্ঠানটি।

ভুক ফ্ল্যাশ চার্জের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জেফ ঝাং এ প্রযুক্তি সম্পর্কে বলেন, অপো চার্জিং অ্যাডাপটর, ক্যাবল, পিএমআইসি, ব্যাটারিসহ পুরো দ্রুত চার্জিং পদ্ধতিতে একটা পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। তারবিহীন বা তারযুক্ত মানুষ যে চার্জিং পছন্দ করুক না কেন ভুক ফ্ল্যাশ চার্জ প্রযুক্তি মানুষের সব ধরনের চাহিদা মেটাতে সক্ষম। আর সেটা যেকোনো কঠিন পরিস্থিতিই হোক না কেন।

ফ্ল্যাশ চার্জ প্রযুক্তি উদ্ভাবনের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি এ প্রযুক্তির নিরাপদ ব্যবহারের উপরও জোর দিয়েছে। ভুক ফ্ল্যাশ চার্জ প্রযুক্তিতে পাঁচস্তর বিশিষ্ট সুরক্ষিত নিরাপত্তা পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির দাবি, তাদের নতুন ফ্ল্যাশ চার্জ প্রযুক্তি কেবল চার্জিং গতিই বাড়াবে না, পাশাপাশি ব্যাটারির জীবনকাল বাড়িয়ে দেবে।

উদাহরণস্বরূপ: এ প্রযুক্তিতে স্মার্টফোনের ব্যাটারি ১৫০০ বার চার্জ সাইকেল পূর্ণ করার পর ব্যাটারির কার্যক্ষমতা মাত্র ২০ ভাগ হ্রাস পাবে, ৮০ ভাগ সক্ষমতা অটুট থাকবে। এছাড়া ৬৫ ওয়াটের সুপার ভুক চার্জিং গতি এখন ২০ শতাংশ দ্রুততর করা হয়েছে, মাত্র ৩০ মিনিটে ৪৫০০ এমএইচের ব্যাটারি পরিপূর্ণ চার্জ হবে। এমনকি প্রচণ্ড শীতের মতো বৈরি পরিবেশে ফ্ল্যাশ চার্জ প্রযুক্তি স্মার্ট অ্যালগরিদম ব্যবহার করে চার্জিংয়ের আগে তাপমাত্রা বাড়িয়ে নিতে সক্ষম। পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে যে, এ প্রযুক্তি মাত্র কয়েক সেকেন্ডে মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে তাপমাত্রা বাড়িয়ে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নিয়ে আসতে পারে। তারপর স্বাভাবিকের মতো চার্জ হতে পারে।

২০১৪ সালে ভুক ফ্ল্যাশ চার্জ যাত্রা শুরুর পর থেকেই নিরাপত্তা, দক্ষতা ও ব্যবহার উপযোগীতা এই তিনটি বিষয় সর্বধিক গুরুত্ব পেয়েছে ব্যাটারি ও চার্জিং প্রযুক্তি নিয়ে অপোর গবেষণা ও উন্নয়নে। ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত অবধি প্রতিষ্ঠানটি দ্রুত চার্জ প্রযুক্তি সম্পর্কিত ৩ হাজারের বেশি প্যাটেন্টের জন্য আবেদন করেছে। এবং বিশ্বব্যাপী প্রায় ১৯৫ মিলিয়ন মানুষের কাছে দ্রুত চার্জিং পদ্ধতি সহজ ও নিরাপদ হিসেবে তুলে ধরেছে।

ভবিষ্যতে কিভাবে ফ্ল্যাশ চার্জিংয়ে এআই অ্যালগরিদম, চার্জিং আর্কিটেকচার এবং অন্যান্য বিষয় সংযুক্ত করা যায় সেটা নিয়ে বর্তমানে কাজ করছে অপো।

ঢাকা/ফিরোজ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়