ঢাকা     সোমবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

শেষ ম্যাচ জিতে কোয়ালিফায়ারও নিশ্চিত করলো সিলেট

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫৬, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩   আপডেট: ১৭:৪৩, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
শেষ ম্যাচ জিতে কোয়ালিফায়ারও নিশ্চিত করলো সিলেট

সবার আগে প্লে’অফ নিশ্চিত করেছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বাধীন সিলেট স্ট্রাইকার্স। এবার লিগপর্বের শেষ ম্যাচ জিতে নিশ্চিত করলো প্রথম কোয়ালিফায়ারও।

বুধবার মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নামা খুলনাকে প্রথমে আটকে রাখে ১১৩ রানে। এরপর জাকির হাসানের ফিফটি ও মুশফিকুর রহিমের ৩৯ রানের ইনিংসে ভর করে ১৫ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখেই জয় তুলে নেয় সিলেট।

এই জয়ে ১২ ম্যাচের ৯টিতে জিতে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে লিগপর্ব শেষ করলো সিলেট। ১১ ম্যাচ থেকে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে কুমিল্লা আছে দ্বিতীয় স্থানে। সমান ম্যাচ থেকে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে সাকিবের ফরচুন বরিশাল তৃতীয় ও ১০ ম্যাচ থেকে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে রংপুর রাইডার্স আছে চতুর্থ স্থানে।

১১৪ রানের মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১০ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে বসে সিলেট। দলীয় ৬ রানের মাথায় তৌহিদ হৃদয় ৫ রানে ও ১০ রানের মাথায় নাজমুল হোসেন শান্ত ফিরেন ৩ রান করে।

সেখান থেকে দলের হাল ধরেন জাকির ও মুশফিক। তৃতীয় উইকেট জুটিতে তারা দুজন ৯০ রান তুলে দলের জয় এক প্রকার নিশ্চিত করেন। জাকির হাসান ৪৪ বলে ৫টি চার ও ১ ছক্কায় ফিফটি তোলেন। কিন্তু দলীয় ১০০ রানের মাথায় এই রানেই ফিরেন তিনি মুরাদ হাসানের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে নাহিদুল ইসলামের হাতে তালুবন্দি হয়ে।

একই ওভারে এবং দলীয় একই রানে রানআউট হন মুশফিক। ৩৫ বলে ৪টি চারে ৩৯ রান আসে তার ব্যাট থেকে।

এরপর রায়ান বার্ল ও গুলবাদিন নাইব দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। বার্ল ৬ বলে ১ চার ও ১ ছক্কায় ১২ রানে ও গুলবাদিন ২ রানে অপরাজিত থাকেন।

তার আগে ব্যাট করতে নেমে খুলনার ব্যাটসম্যানরা অবশ্য সুবিধা করতে পারেননি। ব্যাট হাতে মাহমুদুল হাসান জয় ৪১ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন। নাহিদুল ইসলাম ১৭ বলে ৩ চারে করেন ২২ রান। আর ইয়াসির আলীর ব্যাট থেকে আসে ১৫ বলে ২ চারে ১২ রান। বাকিদের রান ছিল টেলিফোন নম্বরের মতো ৩৭৯৬৬১১।

বল হাতে সিলেটের তানজিম হাসান সাকিব ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেন। ইমাদ ওয়াসিম ৪ ওভারে মাত্র ১০ রান দিয়ে নেন ২টি উইকেট। রুবেল হোসেন ৪ ওভারে ২৪ রান দিয়ে নেন ২টি উইকেট। মোহাম্মদ আমির ছিলেন ব্যয়বহুল। তিনি ৪ ওভারে ৩২ রান দিয়ে নেন ১টি উইকেট।

৪ ওভারে মাত্র ১০ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন সিলেটের ইমাদ ওয়াসিম।

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়