Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৩ ১৪২৮ ||  ০৯ সফর ১৪৪৩

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রীদের ভিড় 

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:০৯, ২৬ জুন ২০২১   আপডেট: ০৪:১৩, ২৭ জুন ২০২১

করোনা সংক্রমণ রোধে কঠোর লকডাউন আসছে—এমন খবরে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌপথ দিয়ে হাজার হাজার যাত্রী পদ্মা পার হচ্ছেন।

শনিবার (২৬ জুন) সকাল থেকে বাংলাবাজার এলাকায় ঢাকামুখী যাত্রীদের ভিড় বাড়তে থাকে। অধিকাংশ ফেরিতে স্বল্পসংখ্যক যানবাহনের পাশাপাশি শত শত যাত্রীকে পার হতে দেখা গেছে। শিমুলিয়া ঘাটে দক্ষিণাঞ্চলগামী যাত্রীদের চাপ ছিল তুলনামূলক কম।

কেরানীগঞ্জ থেকে মো. আল আমীন নামে এক যাত্রী ৪ হাজার টাকা দিয়ে পরিবারের চার জনকে নিয়ে সিএনজি অটোরিকশাতে করে শিমুলিয়া ঘাটে এসেছেন। তিনি বলেন, ‘ঘাটে আসতে প্রতিটা চেকপোস্টে আমাদের থামানো হয়েছে। ফেরিতে করে পার হয়ে মাদারিপুর যাবো।’ 


রতন মিয়া নামে একজন বলেন, ‘একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে ঢাকার মিরপুরে গিয়েছিলাম দুদিন আগে। এক হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে শিমুলিয়া ঘাট পর্যন্ত এসেছি। আসতে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে।’

মাওয়া নৌ-পুলিশ কর্মকর্তা সিরাজুল কবির বলেন, ‘গণপরিবহন বন্ধ থাকায় অনেকে পায়ে হেঁটে, অটোরিকশাতে, পণ‌্যবাহী ছোট-বড় গাড়িতে করে ঘাটে আসছেন। বর্তমানে এ নৌরুটে ১৬টি ফেরির মধ্যে ১৪টি ফেরি সচল রয়েছে। এসব ফেরি জরুরি সেবার জন্য পণ‌্যবাহী যানবাহন ও অ্যাম্বুলেন্স পারাপারের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে। তবে মানবিকতা বিবেচনায় আগত যাত্রী ও ব্যাক্তিগত যানবাহনও পারাপার করা হচ্ছে। শুক্রবার বিকেল থেকে ভিড় বেড়েছে। এখন ছোট-বড় গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্সসহ শতাধিক যানবাহন রয়েছে পারের অপেক্ষায়।’ 

মুন্সীগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব বলেন, ‘ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে ট্রাফিক ও জেলা পুলিশের একাধিক চেকপোস্ট রয়েছে। জরুরি সেবাসমূহের দোকান ছাড়া সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। যারা খোলা রাখছেন তাদের বুঝিয়ে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। জেলায় কঠোর লকডাউন পালনে কার্যকর বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

রতন/ইভা 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়