Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৮ ||  ১৭ সফর ১৪৪৩

রংপুর বিভাগে লকডাউন বাস্তবায়নে তৎপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

মঈনুদ্দীন তালুকদার হিমেল, ঠাকুরগাঁও || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৩১, ২৩ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১৯:১৭, ২৩ জুলাই ২০২১
রংপুর বিভাগে লকডাউন বাস্তবায়নে তৎপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল ৬টায় শুরু হয়েছে কঠোর লকডাউন। রংপুর বিভাগের আট জেলায় লকডাউন কার্যকরে তৎপর আছে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

পুলিশের পাশাপাশি সেনাবাহিনী, র‌্যাব, আনসার ও বিজিবির সদস‌্যদের টহল দিতে দেখা গেছে রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলায়। অবাধ চলাচল রোধ ও স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন নিশ্চিত করতে অভিযান চালাচ্ছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রাইজিংবিডির রংপুরের সংবাদদাতা আমিরুল ইসলাম জানান, শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল থেকে রংপুর শহরে ২০টির বেশি চেকপোস্টে পুলিশ সদস‌্যদের দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে। জরুরি সেবা ছাড়া অন‌্য যানবাহন চলাচলে বাধা দিচ্ছে পুলিশ। শহরের শাপলা চত্বর, জাহাজ কোম্পানি মোড়, ডিসির মোড়, মেডিক‌্যাল মোড়, বাস টার্মিনাল, বাংলাদেশ ব্যাংক মোড়, সাত মাথাসহ বিভিন্ন স্থানে পুলিশের তৎপরতা চোখে পড়েছে।

তবে, জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে চলাচলে নিরুৎসাহিত করা হলেও রাস্তায় লোকজনের ভালো উপস্থিতি দেখা গেছে। রংপুর শহরের সিটি বাজার, কামাল কানা বাজার, ধাপ সিটি বাজারসহ বেশকিছু কাঁচাবাজারে ছিল ক্রেতা-বিক্রেতার সরব উপস্থিতি।

রাইজিংবিডির দিনাজপুর প্রতিনিধি মোসলেম উউদ্দিন জানিয়েছেন, লকডাউনের প্রথম দিনে দিনাজপুরে কঠোর অবস্থানে আছে প্রশাসন। কেউ বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বের হলেই পুলিশের জেরার মুখে পড়তে হচ্ছে। জরুরি পরিসেবা ও ওষুধের দোকান ছাড়া সব শপিংমল ও দোকানপাট বন্ধ আছে।

নীলফামারী প্রতিনিধি ইয়াছিন মোহাম্মদ সিথুন জানিয়েছেন, এ জেলায় প্রথম দিনে কঠোরভাবে পালিত হচ্ছে লকডাউন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর নজরদারির কারণে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ‌্যের দোকান ছাড়া সব ব‌্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। সব ধরনের যানবাহন বন্ধ থাকলেও চলাচল করেছে রিকশা।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিমের সঙ্গে কথা বলে রাইজিংবিডির প্রতিনিধি বাদশা সৈকত জানিয়েছেন, কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে জেলা শহরে চারটি ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করছে। উপজেলা শহরসহ গ্রামের হাটবাজারগুলোতে লকডাউন কার্যকরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বন্ধ আছে সকল শপিংমল ও গণপরিবহন।

ঠাকুরগাঁওয়ে লকডাউনের প্রথম দিনে প্রশাসনের তৎপরতা কিছুটা কম দেখা গেলেও রাস্তাঘাট জনমানবশূন্য রয়েছে। তবে, লকডাউনে আটকে পরা ঢাকাফেরত কিছু মানুষের ভিড় দেখ গেছে আন্তঃজেলা বাস কাউন্টারগুলোর সামনে।

পঞ্চগড় প্রতিনিধি আবু নাঈম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান শাওনের সঙ্গে লকডাউন পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন। আবু নাঈম জানান, বৃহস্পতিবার রাত থেকে বিভিন্ন হাট-বাজার ও সড়কে টহল জোরদার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। কেউ বিনা কারণে বাড়ির বাইরে বের হলে অথবা সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ক্রমাগত বাড়ছে। তাই, সরকার এ ভাইরাসের সংক্রমণের রোধে আবারও কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী সবাইকে চলতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং মাস্ক পরিধান করে প্রয়োজনে বের হতে হবে। বিনা প্রয়োজনে কেউ বাড়ির বাইরে যেতে পারবেন না। লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশ সব সময় তৎপর আছে।’

/রফিক/

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়