ঢাকা     শনিবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১১ ১৪৩০

জীবিত নারীর শরীর থেকে মাংস তুলে নির্যাতন, গ্রেপ্তার ৩

কক্সবাজার প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৩০, ১৭ জুলাই ২০২৩   আপডেট: ১৭:৫১, ১৭ জুলাই ২০২৩
জীবিত নারীর শরীর থেকে মাংস তুলে নির্যাতন, গ্রেপ্তার ৩

কক্সবাজারের চকরিয়ায় ইসমত আরা বেগম (৩৮) নামের এক নারীকে বিবস্ত্র করে শরীর থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাংস তুলে নিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মামলা হলে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

ভুক্তভোগী ইসমত আরা বেগম চকরিয়ার কাকারা ইউনিয়নের ইসলাম নগর এলাকার বাসিন্দা।

মঙ্গলবার (১১ জুলাই) ভোর ৭টার দিকে চকরিয়ার কাকারা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইসলাম নগর এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।  পরে ভুক্তভোগী পরিবার মামলা করলে শনিবার (১৫ জুলাই) তিন জনকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

র‌্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবু সালাম চৌধুরী এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তারকৃতর হলেন, প্রধান অভিযুক্ত চকরিয়ার কাকারা ইউনিয়নের ইসলাম নগর এলাকার মৃত ছৈয়দ হোছন ওরফে বুদু ড্রাইভারের ছেলে আবুল হোছন (৫০), আরিফ পুতিয়া (৪০) ও একই এলাকার আবু তাহেরের স্ত্রী ডলি আক্তার (৩০)।

সহকারী পরিচালক মো. আবু সালাম চৌধুরী জানান, তুচ্ছ ঘটনার জেরে গত ১১ জুলাই প্রতিবেশী আবুল হোছন, সেলিম, মোহাম্মদ আরিফ পুতিয়া ও ডলি আক্তারসহ আরও কয়েকজন ইসমত আরাকে বিবস্ত্র করে নৃশংসভাবে নির্যাতন করেন। নির্যাতনকারীরা দা, কিরিচ ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে ভুক্তভোগী ইসমত আরাকে এলোপাতাড়ি কোপান। একপর্যায়ে পায়ের রান ও শরীরের বিভিন্ন অংশের মাংস ধারালো অস্ত্র দিয়ে তুলে ফেলেন। এতে ওই নারী অচেতন হয়ে পড়েন। পরে মৃত ভেবে ইসমত আরাকে টেনে হিঁচড়ে মহাসড়কের পাশে ফেলে রেখে আসেন অভিযুক্তরা। 

ঘটনার পরপরই স্বজনরা ইসমত আরাকে উদ্ধার করে প্রথমে চকরিয়া এবং পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন।

তিনি আরো জানান, ঘটনাটির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার হলে মুহূর্তে ভাইরাল হয়। এ ঘটনায় চারজনের নাম উল্লেখ এবং নাম না জানা ৫-৬ জনকে আসামি করে ১৫ জুলাই চকরিয়া থানায় মামলা করেন ইসমত আরার বোন জিন্নাত আরা। পরে অভিযান চালিয়ে প্রধান অভিযুক্ত আবুল হোছনসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা ঘটনার সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন, তাদের চকরিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।

তারেকুর/ মাসুদ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়