ঢাকা     সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৯ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

জালিয়াতিতে জড়িতরা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক পদে অযোগ্য

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৪৯, ২৯ আগস্ট ২০২২  
জালিয়াতিতে জড়িতরা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক পদে অযোগ্য

বাংলাদেশ ব্যাংক বা সরকারের কোনো সংস্থার তদন্ত বা পরিদর্শন প্রতিবেদনে জাল-জালিয়াতি, আর্থিক অপরাধ বা অন্য কোনো অবৈধ কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়ে পর্যবেক্ষণ থাকা ব্যক্তি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক পদে নিয়োগে অযোগ্য হবেন। এছাড়া, পরিচালক পদে একাধারে কোনো ব্যক্তি তিন মেয়াদের বেশি থাকতে পারবেন না।

সোমবার (২৯ আগস্ট) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিচালক নিয়োগ প্রসঙ্গে নির্দেশনায় বলা হয়েছে, আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন, ১৯৯৩ এর উদ্দেশ্য পূরণ করতে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক নিয়োগের যোগ্যতা ও উপযুক্ততার শর্তাবলী পূরণ ও প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হবে। সেগুলো হলো: পরিচালক নির্বাচন বা মনোনয়নের পর নিযুক্তি বা পদায়ন বা পুনঃনিযুক্তি বা পুনঃপদায়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের পূর্বানুমোদন গ্রহণ করতে হবে। নিযুক্ত বা পুনঃনিযুক্ত বা পদায়নকৃত পরিচালককে বাংলাদেশ ব্যাংকের পূর্বানুমোদন ছাড়া অব্যাহতি, বরখাস্ত বা অপসারণ করা যাবে না।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালকদের যোগ্যতা: বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের বিধান অনুযায়ী ন্যূনতম শেয়ার ধারণ করতে হবে, অন্যূন ১০ বছরের ব্যবস্থাপনা বা ব্যবসায়িক বা পেশাগত অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ঋণখেলাপি নয়, এমন ব্যক্তি হতে হবে।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হিসেবে নিযুক্তির অযোগ্যতা হলো:
মনোনীত ব্যক্তি বা মনোনয়ন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের ফৌজদারি অপরাধে দণ্ডিত হওয়া কিংবা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে দেওয়ানি বা ফৌজদারি আদালতের রায়ে কোনো বিরূপ পর্যবেক্ষণ বা মন্তব্য থাকা। মনোনীত ব্যক্তি বা মনোনয়ন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক বা সরকারের কোনো সংস্থার তদন্ত বা পরিদর্শন প্রতিবেদনে জাল-জালিয়াতি, আর্থিক অপরাধ বা অন্য কোনো অবৈধ কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়ে কোনো পর্যবেক্ষণ থাকা, মনোনীত ব্যক্তি বা মনোনয়ন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান যদি আর্থিক খাতসংশ্লিষ্ট কোনো নিয়ন্ত্রক সংস্থার বিধিমালা, প্রবিধান বা নিয়মাচার লঙ্ঘনের কারণে দণ্ডিত হন। কোনো ব্যক্তি কোনো আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক থাকা অবস্থায় তার স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানি যার কোনো পৃথক সত্ত্বা নেই তার পক্ষে আর কোনো পরিচালক উক্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পর্ষদে নিযুক্ত হতে পারবেন না।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানে বহিঃহিসাব নিরীক্ষক, আইন উপদেষ্টা, উপদেষ্টা, পরামর্শক, বেতনভুক্ত কর্মচারী বা অন্য কোনো পদের দায়িত্বে নিয়োজিত আছেন কিংবা বিগত পাঁচ বছরের মধ্যে নিয়োজিত ছিলেন, এরূপ ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পর্ষদে নিযুক্ত হতে পারবেন না।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক পদের মেয়াদ হবে অনধিক তিন বছর। কোনো পরিচালক একাধিক্রমে তিন মেয়াদের বেশি পরিচালক পদে থাকতে পারবেন না। তবে, তিন মেয়াদে পরিচালক পদের মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ থেকে পরবর্তী তিন বছর অতিবাহিত হওয়ার পর তিনি পরিচালক পদে পুনঃনির্বাচিত হওয়ার যোগ্য হবেন।

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড, পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড এবং বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ হাইকোর্ট কর্তৃক পুনঃগঠিত হওয়ায় উক্ত বিধান তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন, ১৯৯৩ এর ১৮(ছ) ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক, যা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

এনএফ/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়