RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৪ ১৪২৭ ||  ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

খবরটা শোনার পর থেকে স্তব্ধ হয়ে আছি: ফারুকী

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩৫, ২৭ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:২৭, ২৭ নভেম্বর ২০২০
খবরটা শোনার পর থেকে স্তব্ধ হয়ে আছি: ফারুকী

নন্দিত অভিনেতা আলী যাকেরের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ সাংস্কৃতিক অঙ্গন। ৭৬ বছর বয়েসি এই অভিনেতা জীবদ্দশায় তরুণ নির্মাতাদের সঙ্গেও কাজ করেছেন। স্বাভাবিক কারণে অনেকের সঙ্গে জড়িয়ে আছে অসংখ্য স্মৃতি।

গুণী নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী তার নির্মাণ ক্যারিয়ার শুরুর সময়ে পাশে পেয়েছিলেন আলী যাকেরকে। আর সেই অভিনেতার প্রয়াণে শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েছেন তিনি। মোস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন—খবরটা শোনার পর থেকে স্তব্ধ হয়ে আছি! জানি যাকের ভাইয়ের শরীরটা অনেকদিন ধরেই খারাপ। কিন্তু কিংবদন্তিদের বিদায়ের জন্য আমরা কখনোই প্রস্তুত থাকি না! তিনি যাপন করে গেছেন অর্থবহ একটি জীবন। বহু মানুষের জীবনকেও করে তুলেছেন অর্থবহ। তার অভিনয়, লেখালেখি, ছবি তোলা—সব কিছু নিয়েই তিনি আমাদের সংস্কৃতি জগতের মহীরূহ। আমার এই নাতিদীর্ঘ জীবনেও তার কাছে আছে এক বড় ঋণ।

সেই ঋণের কথা স্মরণ করে মোস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন—নাখালপাড়া থেকে উঠে আসা বাইশ-তেইশ বছরের আমি একদিন তাকে ফোন করে বসলাম! একটা ডকুমেন্টারি বানাচ্ছি দুবলার চরের ওপর। তার সঙ্গে দেখা করতে চাই। তখনো আমি কোথাও কিছু নির্মাণ করি নাই। নওরতন কলোনির তার রুমটায় দুপুরে আমি যখন ঢুকলাম, তখন জানালা দিয়ে উনি বাইরের গাছ দেখছিলেন! এমন আগ্রহ ভরে দেখছিলেন যেন খুব গুরুত্বপূর্ণ কিছু। তারপর আমাকে দেখে তার চেয়েও গুরুত্ব নিয়ে তাকালেন, মনোযোগ দিয়ে শুনলেন আমি কি চাই। তিনি তখন বিশাল তারকা। আমার ডকুমেন্টারিতে, আমি চাইলাম, উনি যেন ভয়েস ওভার পাঠ করেন। ছোটলু ভাই সেই অখ্যাত আমার কথায় রাজী হলেন। রাজী হলেন কি, উনি এমন করতে লাগলেন মনে হলো আমি উনাকে নির্বাচন করার মাধ্যমে যেন একটা ফেভার করেছি।

রেকর্ডিংয়ের সময়ের অভিজ্ঞতা জানিয়ে ফারুকী বলেন—রেকর্ডিংয়ের দিন আধা ঘণ্টা আগে চলে গিয়ে আমার সঙ্গে বসলেন রিহার্সেল করতে! আমি যেভাবে চাই সেটা কীভাবে উনি ডেলিভার করবেন সেটা নিয়ে তার যে প্রাণপণ চেষ্টা! কিছুক্ষণ পর পর জানতে চান পরিচালকের মনমতো হচ্ছে কিনা! এই যে বিনয়, এই যে আমার মতো অখ্যাত লোককে পরিচালকের সম্মান দেওয়া, এটা আমার আত্মবিশ্বাস তৈরিতে কত বড় কাজ করেছে এটা বোঝাতে পারব না! আত্মবিশ্বাসের চাকা পাংকচার করে দেওয়ার কালচার যে দেশে চলে, সেখানে এই কাজটা যে একজন তরুণকে কতটা শক্তিশালী করে তুলতে পারে, সেটা নিশ্চয়ই বোঝা যায়। যাকের ভাই, আমি জানি আপনি এরকম আরো বহু মানুষের জীবন অর্থবহ করে তুলেছিলেন। আপনার চিরশান্তির জন্য দোয়া করি।

ঢাকা/শান্ত

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়