ঢাকা     শনিবার   ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ২১ ১৪২৯

শাহরুখ-জুহির বন্ধুত্বের আড়ালে 

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৩২, ৫ নভেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৭:৫৫, ৫ নভেম্বর ২০২১
শাহরুখ-জুহির বন্ধুত্বের আড়ালে 

বিপদেই যদি বন্ধুত্বের সবচেয়ে বড় পরিচয় হয় তাহলে সেই পরিচয় দিলেন বলিউডের এক সময়ের জোকার গার্ল জুহি চাওলা। গত মাসে শাহরুখ খানের বড় ছেলে আরিয়ান খান মাদক মামলায় গ্রেপ্তার হন। শাহরুখের এই দুঃসময়ে অনেকেই যখন সরে গিয়েছিলেন তখনই এগিয়ে এসেছেন জুহি। আরিয়ানের জামিনদার হন তিনি।

আদালতে এই অভিনেত্রী জানিয়েছেন, পারিবারিকভাবে শাহরুখ ও তিনি বেশ ভালো বন্ধু। এছাড়া তাদের ব্যবসায়ীক সম্পর্ক রয়েছে।

অনেকেই বলেন বলিউডে সম্পর্ক হয় টাকার সঙ্গে; এর পেছনে বড় কাজ করে স্বার্থ। পর্দায় ফেইস ভ্যালু যতদিন আছে সম্পর্কও আছে, তারপর দুজনার দুটি পথ যায় বেঁকে। তাছাড়া একই সময়ের স্টার ইমেজের দুই বিপরীত লিঙ্গের মানুষের মধ্যে ‘বন্ধুত্বের সম্পর্ক’ বলিউডের সঙ্গে ঠিক যায় না। তারপরও শত্রুর মুখে ছাই দিয়ে পরস্পর ভালো বন্ধু হয়ে আছেন শাহরুখ-জুহি।

এই জুটি ‘ইয়েস বস’, ‘ডুপ্লিকেট’, ‘রাজু বান গ্যায়া জেন্টলম্যান’, ‘কাভি ইয়া কাভি না’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন। পেশাগত এই সম্পর্ক এক সময় বন্ধুত্বে রূপ নেয়। ‘ডুপ্লিকেট’ সিনেমার শুটিংয়ের সময় জুহির মা মারা যায়। এরপর তাদের বন্ধুত্ব আরো মজবুত হয়। সেই সময় জুহি অনেক মনমরা থাকতেন। তখন তার পাশে ছিলেন শাহরুখ। এক সাক্ষাৎকারে বিষয়টি নিজেই জানিয়েছেন জুহি।

বন্ধুত্বের সম্পর্ক থেকেই এক সময় ব্যবসায়ীক পার্টনার হন শাহরুখ-জুহি। ‘ড্রিমস আনলিমিটেড’ নামে একটি প্রোডাকশন হাউজ খোলেন তারা। পরে এটির নাম পরিবর্তন করে ‘রেড চিলিস এন্টারটেইনমেন্ট’ রাখা হয়। এই প্রতিষ্ঠানের সিইও জুহির ভাই সঞ্জীব চাওয়া। কিন্তু স্ট্রোক করে ২০১০ সালে কোমায় চলে যান তিনি। পরে ২০১৪ সালে মারা যান। সেই সময়ও জুহির পাশে ছিলেন শাহরুখ। এই অভিনেত্রীর মা মারা যাওয়ার পর তাকে কাছ থেকে দেখেছেন ‘জিরো’খ্যাত এই অভিনেতা। যে কারণে জুহিকে আর কষ্ট পেতে দেননি তিনি।

এক সাক্ষাৎকারে শাহরুখ জানান, জুহির পরিবারের কাছ থেকে তিনিও অনেক সহযোগিতা পেয়েছেন। এই অভিনেতার ভাষায়, ‘অনেক ভালোবাসা ও সম্মান নিয়ে বলছি, আমি যখন হিন্দি সিনেমা জগতে নতুন ছিলাম বন্ধু হিসেবে শুধু জুহি নয়, তার মা, ভাই ও এখন জয় ভাই (জুহির স্বামী জয় মেহতা) আমার দেখাশোনা করেছে। তারা আমার প্রতি খুবই স্নেহশীল। তারা আমার খুবই খুবই খুবই ঘনিষ্ঠ। আমি জুহিকে বলেছি, জনসম্মুখেও যদি কোনো খারাপ আচরণ পাও তবুও আমার সঙ্গ ছেড়ে যেও না। সে জানিয়েছে, ঠিক আছে। তুমি যদি ভদ্র আচরণ নাও করো তোমার পাশে থাকব।’

অন্যদিকে অপর এক সাক্ষাৎকারে জুহি জানান, শাহরুখের দেওয়া একটি পরামর্শ মেনে চলতেন তিনি। এই অভিনেত্রীর ভাষায়, ‘আমার ইগো সবসময় সংযত রাখি। কারণ মনে হয়, অনেক সিদ্ধান্তই ভুল নেই। যখন সিনেমা খুব ভালো চলছিল আমি নিজেকে বড় মনে করতাম। সেই সময় কিছু ভুল করেছি। শাহরুখ আমাকে তখন পরামর্শ দিয়েছিল, মা-বাবার সঙ্গে ভালো আচরণ করবে। আমি তার এই পরামর্শ মেনে চলার চেষ্টা করেছি। ‘ডর’ সিনেমার সময় মা’র সঙ্গে ঝগড়া হয়েছিল। তখন খেয়াল করিনি আমার আশেপাশে মানুষ ছিল। পরে আমার ভুল শুধরে দিয়ে মা-বাবার সঙ্গে ভালো আচরণের পরামর্শ দেয় শাহরুখ।’

বন্ধুত্ব নিয়ে জুহি বলেন, ‘আমরা অনেক চড়াই-উতরাই পাড়ি দিয়েছি। প্রায় একসঙ্গে ক্যারিয়ার শুরু করেছি। শাহরুখ হয়তো ২-৩ বছর পরে শুরু করেছে। সহকর্মী হিসেবে আমরা কাজ করেছি। এরপর প্রোডাকশন হাউজ শুরু করি এবং লোকসান হয়। সেই লোকসান সামলানো সহজ ছিল না। তবে পরে যখন সবকিছু ভালো চলতে থাকে সবাই অনেক খুশি হয়েছে। আমরা লোকসানে পড়েছি কিন্তু সেটি কোনো না কোনোভাবে কাটিয়ে উঠেছি। এটা অনেকটা রোলার-কোস্টার রাইডের মতো। জীবনে সবরকম পরিস্থিতিই মোকাবিলা করেছি। জীবনে কিছু বিশেষ মানুষ থাকেই, যারা একান্ত আপন। শাহরুখ তেমনই একজন।’

তবে শাহরুখ-জুহির মধ্যে প্রেমের গুঞ্জনও চাউর হয়েছে। তবে সেগুলো উড়িয়ে দিয়েছেন শাহরুখ। এ প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘যখনই আমি ম্যাগাজিন কাভারে কোনো নারীর সঙ্গে পোজ দেই তখনই তারা কোনো বাজে কথা সেখানে জুড়ে দেয়। বেশি কপি বিক্রির জন্য ম্যাগাজিনের চটকদার বিষয়ের প্রয়োজন হয়। আর আমি এসব বিষয়ে থেকে নিজেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

জুহির সঙ্গে মাঝে শাহরুখের তিক্ততা নিয়ে গুঞ্জন ওঠে। পরবর্তী সময়ে এই বিষয়ে শাহরুখ বলেন, ‘এগুলো সবই ট্যাবলয়টিজম। আমরা যে কাজ করি এগুলোর সঙ্গেই এটি সংশ্লিষ্ট। দুর্ভাগ্যবশত মাঝে মাঝে কিছু বিষয় নিয়ে লেখা হয় এবং মানুষ সেগুলো বিশ্বাসও করে। পরে যখন এসে আমাদের সেগুলো জিজ্ঞেস করে অবশ্যই তা অনেক বিব্রতকর হয়।’
 

মারুফ/তারা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়