ঢাকা     সোমবার   ২২ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৯ ১৪৩১

‘ঘরের বাজার’র অনুপ্রেরণামূলক যাত্রা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৫২, ২৯ জানুয়ারি ২০২৪   আপডেট: ১১:৫৬, ৩১ জানুয়ারি ২০২৪
‘ঘরের বাজার’র অনুপ্রেরণামূলক যাত্রা

করোনা মহামারির কারণে ২০২০ সালের মাঝামাঝিতে সরকারের ঘোষিত লকডাউনে জনজীবন কার্যত স্থবির ছিল। মানসম্মত খাদ্যপণ্য ছিল দুষ্প্রাপ্য। মৌলিক চাহিদা পূরণই তখন একপ্রকার চ্যালেঞ্জিং ছিল। সেই বিরূপ সময়ে কাছের মানুষগুলোকে নির্ভেজাল ও রাসায়নিকমুক্ত খাবার খাওয়ানোর পরিকল্পনা করেন দুই স্বপ্নবান যুবক।

স্বল্প কিছু পুঁজি দিয়ে শুরু সেই স্বপ্নযাত্রার। প্রাথমিক কর্মপরিকল্পনা শুরু বগুড়ার বিখ্যাত দই দিয়ে।

নিরাপদ খাদ্যপণ্য সহজলভ্য করার সেই স্বপ্ন ও আবেগ বর্তমানে প্রতিষ্ঠিত এবং নির্ভরশীল ব্র্যান্ড ‘ঘরের বাজার’। বিস্ময়যাত্রার শুরু চট্টগ্রামের বিশ্ব কলোনির দুই তরুণ মো. নাজমুস সাকিব ও জামশেদ মজুমদারের হাত ধরে।

অনন্য দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে এগিয়ে আসা জামশেদ মজুমদার সৌদি আরবে জীবনের উল্লেখযোগ্য একটি সময় কাটিয়েছেন। সৌদি আরবের সাথে তার ব্যক্তিগত সম্পর্ক কেবল তার বোঝাপড়াকে সমৃদ্ধ করেনি বরং দেশটির বাজারে মূল্যবান প্রবেশাধিকার দিয়েছে। ঘরের বাজারের শক্ত ভিত গড়েছে এসব অনুষঙ্গ।

সৌদি আরব থেকে বিখ্যাত আজওয়া খেজুর নিয়ে ফেসবুক লাইভে আসেন জামশেদ মজুমদার। তার ব্যতিক্রমী পাবলিক বক্তৃতার দক্ষতা ও ইমাম হিসেবে তার পটভূমি দর্শকদের সাথে সংযোগ স্থাপনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আজওয়া খেজুরের সাফল্য জামশেদ ও সাকিবকে বাংলাদেশের বাজারে আরও উচ্চমানের খাদ্য পণ্য অন্বেষণ করতে অনুপ্রাণিত করেছিল। তারা বাংলাদেশের স্থানীয় আমদানিকারকদের কাছ থেকে অনুরূপ মানের খেজুর খুঁজতে শুরু করে, যা এখন ঘরের বাজার নামে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছে।

ঘরের বাজার নামটি ভোক্তাদের জন্য শতভাগ নিরাপদ প্রতিদিনের গৃহস্থালির খাদ্যসামগ্রী সরবরাহ করার তাদের দৃষ্টিভঙ্গির প্রতীক। বাংলাদেশের সকল প্রান্ত থেকে পণ্য সোর্সিংয়ের জন্য পরিচিত, ঘরের বাজার বাদাম এবং মধু থেকে প্রিমিয়াম অফার যেমন আপেল, সিডার ভিনেগার, খাঁটি দেশি ঘি, হিমালয় গোলাপি লবণসহ আরও অনেক কিছুর পরিসর বাড়িয়েছে।

শতভাগ নিরাপদ খাদ্য পণ্যের উৎসের প্রতি অটল প্রতিশ্রুতি এবং তাদের তাকে থাকা প্রতিটি পণ্যের সর্বোচ্চ মানের নিশ্চিত করা, ঘরের বাজারকে স্বতন্ত্র আইডেন্টিটি ও স্বীকৃতি দিয়েছে। তাদের যাত্রা উৎসর্গ করা হয়েছে ভোক্তাদের সাথে কেবল পণ্য দিয়ে নয়, বরং নিরাপত্তা এবং শ্রেষ্ঠত্বের প্রতিশ্রুতি প্রদানের মাধ্যমেও।

স্বয়ংসম্পূর্ণতার দিকে একটি উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হিসেবে ঘরের বাজার গত বছর তাদের নিজস্ব পণ্য ‘হানি নাট’ চালু করেছে। এটি খামার থেকে সংগ্রহ করা বাদাম এবং মধু থেকে তৈরি একটি শক্তিশালী মিশ্রণ। গুণমান এবং উদ্ভাবনের প্রতি তাদের প্রতিশ্রুতির প্রমাণ হিসাবে দাঁড়িয়েছে এই ‘হানি নাট’।

ঘরের বাজারের ক্রমবর্ধমান অগ্রগতি উদীয়মান উদ্যোক্তাদের জন্য একটি অনুপ্রেরণা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটি কমিউনিটিতে আবেগ, স্থিতিস্থাপকতা এবং প্রতিশ্রুতি রক্ষার উদাহরণ হিসেবেও ব্র্যান্ডভ্যালু অর্জন করেছে। লকডাউনে একটি ছোট বিনিয়োগ আজ একটি সমৃদ্ধ ব্যবসায়িক যাত্রার উজ্জ্বল উদাহরণ এই ঘরের বাজার। তাদের পণ্য ও যাবতীয় সামগ্রী সহজেই পাওয়া যাচ্ছে তাদের ওয়েবসাইট (www.ghorerbazar.com) আর ফেসবুক পেজে (facebook.com/Ghorerbazarbd.com) ।

ঢাকা/হাসান/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়