ঢাকা     শনিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৪ ১৪২৭ ||  ৩০ মহরম ১৪৪২

মার্সেল ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে ৬০০ ফ্রিজ ফ্রি (ভিডিও)

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:১৭, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
মার্সেল ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে ৬০০ ফ্রিজ ফ্রি (ভিডিও)

বসুন্ধরায় মার্সেল করপোরেট অফিসের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৬ এর ‘ডিক্লারেশন প্রোগ্রাম’এ উপস্থিত ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা

সারা দেশে শুরু হলো মার্সেল ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৬।

এ ক্যাম্পেইন আওতায় ফ্রিজ, টিভি ও এসি কিনলে ৬০০ ফ্রিজ ফ্রি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে মার্সেল। আছে বিভিন্ন অঙ্কের নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার সুযোগ। এই সুবিধা ফেব্রুয়ারির ২৪ তারিখ থেকে সারা দেশে কার্যকর হয়েছে। চলবে ৩১ মে, ২০২০ পর্যন্ত।

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বসুন্ধরায় মার্সেল করপোরেট অফিসের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৬ এর ‘ডিক্লারেশন প্রোগ্রাম’ এ সংক্রান্ত ঘোষণা দেয় কর্তৃপক্ষ। এর আওতায় দেশের যেকোনো মার্সেল শোরুম থেকে ফ্রিজ, টিভি ও এসি কিনে রেজিস্ট্রেশন করলে ডিজিটাল বাছাইয়ে ক্রেতাদের জন্য রয়েছে ৬০০ ফ্রিজ ফ্রি পাওয়ার সুবিধা। প্রত্যেক ক্রেতার জন্য আছে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিভিন্ন অঙ্কের নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। এছাড়া, মার্সেল এসির ক্রেতারা পেতে পারেন সর্বোচ্চ ১২ বছরের বিদ্যুৎ বিল ফ্রি।

উল্লেখ্য, মার্সেলের বিক্রয়োত্তর সেবা অনলাইনের আওতায় আনা হয়েছে। ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে ক্রেতাদের ডাটাবেজ তৈরি হচ্ছে। এ প্রক্রিয়ায় ক্রেতাদের উদ্বুদ্ধ করতে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে মার্সেল। সরকারের ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এর লক্ষ্য পূরণে এ কার্যক্রম সহযোগিতার ভূমিকা পালন করছে বলে জানিয়েছে মার্সেল কর্তৃপক্ষ।

ডিক্লারেশন প্রোগ্রামে উপস্থিত ছিলেন সেলস ও বিপণন বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক ইভা রিজওয়ানা, নির্বাহী পরিচালক এমদাদুল হক সরকার, এসএম জাহিদ হাসান, উদয় হাকিম ও আরিফুল আম্বিয়া, ফ্রিজ বিভাগের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) গোলাম মুর্শেদ, এসি বিভাগের সিইও তানভীর রহমান, টিভি বিভাগের সিইও প্রকৌশলী মোস্তফা নাহিদ হোসেন, মার্সেলের হেড অব সেলস ড. মো. সাখাওয়াৎ হোসেন, ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ফিরোজ আলম ও মো. কামরুজ্জামান, ডেপুটি অপারেটিভ ডিরেক্টর মফিজুর রহমানসহ আরো অনেকে।  অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর রবিউল ইসলাম মিলটন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, পণ্যের গবেষণা ও মানোন্নয়নের পাশাপাশি বিক্রয়োত্তর সেবা কার্যক্রমকে অনলাইনের আওতায় আনতে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে মার্সেল। এর মাধ্যমে ক্রয়কৃত মার্সেল পণ্যের বারকোড, ক্রেতার নাম, মোবাইল নম্বর, ঠিকানা ও ফোন নাম্বার মার্সেল সার্ভারে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ফলে পণ্যের ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে ফেললেও গ্রাহকরা দেশের যেকোনো মার্সেল সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত কাঙ্খিত বিক্রোত্তর সেবা নিতে পারছেন। অন্যদিকে সার্ভিস সেন্টারের প্রতিনিধিরাও গ্রাহকের ফিডব্যাক জানতে পারছেন।

মার্সেল ফ্রিজে এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টির পাশাপাশি কম্প্রেসরে দেয়া হচ্ছে ১২ বছরের গ্যারান্টি সুবিধা। এসিতে ১ বছরের রিপ্লেসমেন্টসহ কম্প্রেসরে ১০ বছর পর্যন্ত গ্যারান্টি সুবিধা দিচ্ছে মার্সেল। এদিকে টিভিতে আছে ৬ মাসের রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি, টিভির প্যানেলে ৪ বছর পর্যন্ত গ্যারান্টি ও ৫ বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি সুবিধা। গ্রাহককে দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে আইএসও স্ট্যান্ডার্ড সার্ভিস ম্যানেজমেন্টের সিস্টেমের আওতায় সারা দেশে রয়েছে ৭৩টি সার্ভিস সেন্টার। সেখানে কাজ করছেন আড়াই হাজারের বেশি সার্ভিস এক্সপার্টস।




ঢাকা/ইভা

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়