ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৫ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ১০ ১৪৩১

বাজেটে শ্রমজীবী মানুষের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধির আহ্বান

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৩৬, ২৮ জুন ২০২১  
বাজেটে শ্রমজীবী মানুষের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধির আহ্বান

২০২১-২২ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে শ্রমজীবী মানুষের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধির আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ-বিলস।

এছাড়া শ্রমজীবী মানুষের একটি পূর্ণাঙ্গ ডাটাবেস তৈরির জন্য সুনির্দিষ্ট বাজেট পরিকল্পনা ও প্রয়োজনীয় বাজেট বরাদ্দসহ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ মহার্ঘ্যভাতা প্রদানের ব্যবস্থা, একটি সার্বজনীন পেনশন স্কিম প্রণয়ন, শ্রমিকের পূনঃকর্মসংস্থান এবং শ্রমিকদেরকে টিকা দেওয়ার জন্য একটি সম্পূর্ণ বাজেট পরিকল্পনা গ্রহণের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

সোমবার (২৮ জুন) বিলস্ সেমিনার হলে এবং ভার্চুয়ালি ‘২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত জাতীয় বাজেটের উপর বিলস্ এর সুপারিশমালা’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সুপারিশমালা উপস্থাপনকালে বিলস্ উপ পরিচালক (গবেষণা) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, করোনাকালে শ্রমিক ও শ্রমজীবী মানুষের জন্য বিভিন্ন দাবি থাকলেও প্রস্তাবিত বাজেটে তা উপেক্ষিত রয়ে গেছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউ সর্বোচ্চ পর্যায় চলছে।  অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক উভয় ধরনের চলাচলে বিধিনিষেধ রয়েছে।  ইতিমধ্যে ১  লাখ ২৮ হাজার ৪৪১ কোটি টাকার ২৩টি পুনরুদ্ধার প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে, যা জিডিপির প্রায় ৪.২ শতাংশ।  সাম্প্রতিক সময়ে জিডিপি প্রবৃদ্ধিও উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।  ২০২০-২১ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৬.১ শতাংশ। তারপরও কোভিডের কারণে শ্রমিকের আয় কমেছে। অনেক শ্রমিক চাকরি হারিয়েছেন। তারা সঞ্চিত অর্থ ব্যয় করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করছেন। অনেক শ্রমিক চাকরি নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন।  অন্যদিকে বিদেশে শ্রম অভিবাসনও উল্লেখযোগ্যহারে কমে বছরে মাত্র ২ লাখ জনে দাঁড়িয়েছে, বিগত বছরগুলোতে যা গড়ে প্রায় ৮ লাখ ছিল। এর মধ্যে কোভিডের কারণে বিগত কয়েক মাসে অনেক অভিবাসী শ্রমিক দেশে ফিরে এসেছেন।

স্বাগত বক্তব্যে বিলস্ মহাসচিব ও নির্বাহী পরিচালক নজরুল ইসলাম খান বলেন, কোভিডের কারণে চাকরি হারিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের বহু শ্রমিক বেকার হয়ে গেছে, তাদের সহায়তায় সামাজিক সুরক্ষাসহ অন্যান্য বিষয়গুলো বাজেটে থাকা উচিত। 

তিনি বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে কর্মসংস্থানের নিরাপত্তা, উৎপাদনশীল কর্মসংস্থান, শ্রমিকের সামাজিক নিরাপত্তাসহ বাজেট প্রক্রিয়ায় শ্রমিক প্রতিনিধির অংশগ্রহণের বিষয়টি উপেক্ষিত হয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে বিলস্ উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য নইমুল আহসান জুয়েল বলেন প্রস্তাবিত বাজেট শ্রমিকবান্ধব নয়, এটি ব্যবসাবান্ধব বাজেট।  তারপরও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য বাজেটে প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা ও বরাদ্দ নেই।

তিনি শ্রমিকদের সহায়তার জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ ডাটাবেস থাকার দরকার বলে গুরুত্বারোপ করেন। নইমুল আহসান জুয়েল শ্রমিকের দূর্ভোগের কথা বিবেচনা করে বিলস্ এর সুপারিশগুলো বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোর প্রতি আহ্বান জানান।

এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন বিলস্ উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন সভাপতি কামরূল আহসান, বিলস্ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ।  এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিলস্ পরিচালক কোহিনূর মাহমুদ ও নাজমা ইয়াসমীন, উপ-পরিচালক ইউসুফ আল মামুন ও এম এ মজিদ প্রমুখ।

/হাসান/এসবি/

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়