ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৬ ১৪৩০

পর্যটনে সম্ভাবনাময় রাঙামাটির ঘাগড়া-কাউখালী সংযোগ সড়ক

বিজয় ধর, রাঙামাটি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৪২, ২৯ অক্টোবর ২০২৩  
পর্যটনে সম্ভাবনাময় রাঙামাটির ঘাগড়া-কাউখালী সংযোগ সড়ক

দৃষ্টিনন্দন ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের অপার সম্ভাবনাময় স্থান রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া-কাউখালী সংযোগ সড়ক। এই সড়কটির দুই পাশে থাকা সারি সারি সবুজ বৃক্ষের সমারোহ দেখে যে কোনো পর্যটক বিমোহিত হয়ে পড়বেন। পাহাড়ের মাঝখান দিয়ে তৈরী করা সড়কটি এই অঞ্চলের মানুষের চিকিৎসা, শিক্ষা ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি রাঙামাটিসহ দেশের বিভিন্নস্থান থেকে ঘুরতে আসা পর্যটকদের কাছে একটি দর্শনীয় স্থান হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে এমনটাই আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) কাউখালী উপজেলা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঘাগড়া-কাউখালী সংযোগ সড়কটি হচ্ছে ৯ দশমিক ৬ কিলোমিটার। এর মধ্যে ২০২২-২৩ অর্থ বছরে এই সড়কের ৫ কিলোমিটার সংস্কার করা হয়েছে। সড়ক সংস্কারের মোট বাজেট ছিল ২ কোট ৮০ লাখ টাকা।

কাউখালী সড়ক দিয়ে নিয়মিত যাতায়াতকারী সৌরভ তালুকদার বলেন, এই সড়কটি মেরামত হওয়ায় আগের চেয়ে অনেক ভালো হয়েছে। এখন যাতায়াতের ক্ষেত্রে কোনো দুর্ভোগ পোহাতে হয় না। সড়কটি নতুনভাবে সংস্কার হওয়ার ফলে এই এলাকায় যারা কৃষিকাজ করেন এবং ফলজ ও বনজ বাগান করেন তাদের পরিবহন খরচও অনেকাংশে কমে গেছে।

কাউখালী উপজেলার স্থানীয় সাংবাদিক মেহেদী হাসান সোহাগ বলেন, এই সড়কটি দিয়ে রাঙামাটি-কাউখালী স্বল্প সময়ে আসার জন্য খুবই সহজ মাধ্যম।  ঘাগড়া-চেলাছড়া সড়কটি ভবিষ্যতে পর্যটকদের জন্য একটি আকর্ষণীয় স্থান হিসেবে পরিচিতি লাভ করতে পারে। পাশাপাশি এটি রাঙামাটির পর্যটন প্রসারের ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছি।

ঘাগড়ার কাঠ ব্যবসায়ী মো. কবির বলেন, ২০১৮-১৯ সালের দিকে এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে আমাদের খুবই কষ্ট হতো। বর্তমানে এই সড়কটি দিয়ে মালামাল নিয়ে আমরা কম সময়ের মধ্যে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছি। আমরা ঘাগড়া-কাউখালী খুব দ্রত সময়ের মধ্যে চলে যেতে পারি।

ঘাগড়া-কাউখালী- চেলাছড়া সড়কে সিএনজি অটোরিকশা চালক মো. আসু জানান, রাঙামাটি-রানীরহাট সড়ক দিয়ে কাউখালী ডেতে সময় লাগে প্রায় এক থেকে দেড়ঘণ্টা। আর এই সড়ক দিয়ে কাউখালী যেতে সময় লাগে ৪০ মিনিটের মতো। এই সড়কটি আগে থেকে অনেক সুন্দরও হয়েছে।

ঘাগড়া-কাউখালী সড়কের চেলাছড়া এলাকার বাসিন্দা উষাখই মারমা বলেন, এই সড়কটি যখন ভাঙা অবস্থায় ছিল তখন আমাদের চলাফেরা করতে খুবই কষ্ট হতো। বর্তমানে এই সড়কটি আবারো নতুন করে তৈরী করায় আমরা উপকৃত হয়েছি। আগে কেউ অসুস্থ হলে পায়ে হেঁটে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হত। কিন্তু এখন মুহূর্তের মধ্যে অসুস্থ রোগিকে গাড়িতে করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে পারছি।

এলাজিইডি কাউখালী উপজেলা প্রকৌশলী বলেন, এটি হচ্ছে কাউখালী উপজেলার বিকল্প সড়ক। এই সড়কটি দিয়ে যাতায়াত করলে কমপক্ষে আধা ঘণ্টা সময় কম লাগে। এই সড়কটির ৫ কিলোমিটার নতুন করে সংস্কার করা হয়েছে। সড়কটি দৃষ্টি নন্দন হয়েছে।

রাঙামাটি স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আহমদ শফি বলেন, আমরা এই সড়কটি ২ কোটি ৮০ লাখ টাকা দিয়ে সংস্কার করেছি। এখানে অনকেগুলো ড্রেন, প্রতিরক্ষা দেয়াল করা হয়েছে। সড়কটি পর্যটন ক্ষেত্রে বিশাল ভূমিকা রাখবে। এই রাস্তাটি ব্যবহার করে কাউখালী যেতে প্রায় ৩০ মিনিটি সময় কম লাগে। বর্তমানে এই সড়কে স্থানীয় বাসিন্দাদের পাশাপাশি বাইকারদেরও যাতায়াত বেড়েছে অনেক।

মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়