ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৬ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

সিলেটে ‘হাজারো বাঘের’ গর্জন

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০২-১৮ ৭:২৮:২৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০২-১৮ ৭:৪৩:৫০ পিএম

ক্রীড়া প্রতিবেদক, সিলেট থেকে : সৌম্য সরকারের বলে লং অফে গুনাথিলাকার ক্যাচ নিলেন তামিম ইকবাল। সঙ্গে সঙ্গে গর্জে উঠল পুরো সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

এমন গর্জনের সুযোগ যে এই 'প্রথম' পেল সিলেটের মানুষজন! পাহাড়ের কোলে নয়নাভিরাম এই মাঠে প্রথমবারের মতো খেলছে বাংলাদেশ দল।

যদিও সিলেটে আন্তর্জাতিক ম্যাচ এটিই প্রথম নয়। ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ছয়টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই মাঠে। খেলেছিল খর্বশক্তির জিম্বাবুয়ে, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। দীর্ঘ বিরতির পর রোববার আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরল সিলেটে। সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা।



মুশফিক, মাহমুদউল্লাহরা অবশ্য এই মাঠে আগেও খেলেছেন। তবে সেটা ঘরোয়া ক্রিকেটে। এই তো গত বিপিএলে সিলেটে ৮টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তবে বাংলাদেশের হয়ে সিলেটে এই প্রথম মাঠে নামার সুযোগ পেয়েছেন মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, তামিমরা। বাংলাদেশ দলের খেলা দেখে গর্জন করার সুযোগ তো তাহলে এই প্রথমই পেল সিলেটের দর্শকরা।

এত বড় একটা উপলক্ষ সামনে রেখে ম্যাচের আগে সিলেটে যদিও তেমন একটা উন্মাদনা দেখা যায়নি। তবে মাঠে উত্তেজনা ছড়িয়েছে ভালোই। বিকেল ৫টায় ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে থেকেই দর্শকরা আসতে শুরু করেন মাঠে। ম্যাচের শুরুর দিকে দর্শক কম থাকলেও সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সেটি বেড়েছে।

মাঠের দক্ষিণ পাশের দুই তলা গ্যালারি দর্শকে ভরে গেছে। তামিম, সৌম্যদের কোনো ভালো ফিল্ডিং, মুস্তাফিজদের ভালো বোলিং কিংবা শ্রীলঙ্কার উইকেট পতনের পর গর্জে উঠছে গ্যালারি।



মাঠের উত্তর পাশের একটা অংশকে বলা হয় 'গ্রিন গ্যালারি'। যদিও মরা ঘাসের কারণে 'গ্রিন গ্যালারি'কে ঠিক সবুজ মনে হবে না। সেখানেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা দর্শকসংখ্যা কম নয়। উত্তরের আরেক পাশে ডিজিটাল স্ক্রিনের নিচের গ্যালারি দর্শকে ভরা। পশ্চিম পাশে প্রেস বক্স, কমেন্ট্রি বক্স। পূর্ব পাশেও অনেক দর্শক দেখছেন নিজ দলের খেলা।

সিলেটে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ স্মরণীয় রাখতে স্বারক মুদ্রা বানিয়েছে বিসিবি। এবার তামিম, মুশফিক মাহমুদউল্লাহরা এই মাঠে নিজেদের প্রথম ম্যাচটা জয়ে রাঙিয়ে রাখতে পারে কি না, সেটাই এখন দেখার। লক্ষ্যটা ২১১ রানের।




রাইজিংবিডি/সিলেট/১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/পরাগ/ইয়াসিন