ঢাকা, শুক্রবার, ১০ মাঘ ১৪২৬, ২৪ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

বিশ্বকাপে দ্রুততম গোলের রেকর্ডধারী এখন গাড়িচালক

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-১৪ ১:২৮:৪৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-১৪ ৩:৫৬:১৩ পিএম

২০০২ ফুটবল বিশ্বকাপের তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হয় তুরস্ক-দক্ষিণ কোরিয়া। খেলা শুরুর ১০ সেকেন্ডের মধ্যে কোরিয়ার জালে বল জড়ায় তুরস্ক। দলটির অধিনায়ক হাকান শুকুর গোলটি করেন। আর এর মাধ্যমে গড়েন বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুততম গোলের রেকর্ড। ম্যাচটি ৩-২ গোলে জেতে তুরস্ক।

তবে রেকর্ডধারী তুরস্কের এ কিংবদন্তি ফুটবলার এখন চরম দুর্দশায় জীবন কাটাচ্ছেন। দেশের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা শুকুর নিজের দেশে ব্রাত্য হয়ে পড়েছেন। ৪৮ বছর বয়সী এ তারকা জীবনের হুমকি নিয়ে বাস করছেন আমেরিকায়। বর্তমানে কোনো দলে সুযোগ না পাওয়াতে গাড়ি চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

তুরস্কের কিংবদন্তি ফুটবলার থেকে জীবনের কঠিন বাস্তবতার সামনে দাঁড়িয়ে হাকান শুকুর সব দোষ দেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রেসেপ তায়েফ এরদোগানকে। ২০০৮ সালে সব ধরনের ফুটবল থেকে অবসর নেয়া শুকুর ২০১১ সালে এরদোগানের রাজনৈতিক দলে যোগদান করেন। পরবর্তীতে মতের অমিল হওয়াতে ২০১৩ সালে দলটি থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। এরপর থেকে জীবন নিয়ে ভীত এ ফুটবলার। নিজের সবকিছু হারিয়ে এখন নিঃস্ব।

‘তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগান আমার সব কেড়ে নিয়েছে। আমি দল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর শত্রুতা শুরু হয়। আমার স্ত্রীর দোকানে ঢিল ছোঁড়া হয়। সন্তানকে রাস্তায় অপদস্ত করা হয়। আমার অসুস্থ বাবা-মা এখন গৃহবন্দী। সরকার আমার সব স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে।’-নিজের অবস্থা নিয়ে বলেন তুরস্কের এ ফুটবলার।

 

 

পরবর্তীতে আমেরিকায় পালিয়ে আসেন। কিন্তু এখানেও এরদোগানের লোকজন তাকে জ্বালাতন করেন জানিয়ে বলেন, ‘আমি আমেরিকায় পালিয়ে আসি। ক্যালিফোর্নিয়াতে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা খুলি। কিন্তু সেখানে এরদোগানের লোকজন উৎপাত শুরু করে। এরদোগান আমাকে পুরো বিশ্ব থেকে একা করে দিতে চায়।’

হাকান শুকুরের সঙ্গে দেন-দরবার বা সম্পর্ক রক্ষা করছে এমন সকলে বিপদে আছে জানিয়ে তুরস্কের এ তারকা বলেন, ‘আমার সঙ্গে যাদের কোনো সম্পর্ক আছে, সবাই এখন অর্থ কষ্টে ভুগছেন। এমনকি আমেরিকায় পড়–য়া এক ছেলে আমার সঙ্গে ছবি তোলায় ১৪ মাস জেল খেটেছে।’

তুরস্কের হয়ে সর্বাধিক ৫১ গোলের মালিক হাকান শুকুর। তুরস্কের ক্লাব গালাতাসারের হয়ে ১৩ বছরের ক্যারিয়ারে ২০০ গোল করেছেন। জিতিয়েছেন অনেক শিরোপা। তাই শুকুরকে গালাতাসারের কিংবদন্তি বলা হয়। অথচ সে ক্লাব থেকে তাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘২০১৭ সালে আমার প্রিয় ক্লাব আমাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। বলা হয়েছে ক্রীড়া মন্ত্রী বলায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। কিন্তু আমি নিশ্চিত এর পেছনে এরদোগানের হাত আছে।’

এখন গাড়ি চালিয়ে পরিবারের জন্য জীবিকা নির্বাহ করেন জানিয়ে হাকান শুকুর বলেন, ‘আমি নির্দিষ্ট কোনো জায়গায় টানা অবস্থান করতে পারি না। তাই আমি বর্তমানে আমেরিকায় গাড়ি চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করি।’



ঢাকা/কামরুল