ঢাকা, শনিবার, ২১ চৈত্র ১৪২৬, ০৪ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ডাবল সেঞ্চুরিতে ভাস্বর মুশফিক

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২৪ ৫:০৫:০৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২৪ ৭:২৯:২১ পিএম

ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি। তাইতো উদযাপনটা হবে বাড়তি।

বাঁহাতি স্পিনার এনদোভুকে শর্ট বল কাট করে মুশফিক বাউন্ডারিতে পাঠালেন। ১৯৮ থেকে মুশফিকের রান ২০২। বল বাউন্ডারিতে পৌঁছার আগেই দুই হাত তুলে উদযাপন শুরু। শূন্যে লাফিয়ে ব্যাট ছোঁড়ার পর বামহাতে আরেকটি ঘুষি ছুঁড়লেন।

হেলমেট খুলে দুই হাত ওপরে তুলে সৃষ্টিকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন। তখনও উদযাপন থামেনি। ডানহাতে আবার ঘুষি ছোঁড়া। এরপর গ্লাভস খুলে বাঘের গর্জন। সবশেষে সিজদাহ।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে আবার শোনা গেল মুশফিকুর রহিমের গর্জন। আবার ২২ গজে দ্যুতি ছড়ালেন মুশফিক। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট খেলার সুযোগ হবে কিনা তা নিয়ে কতো কথা, কতো সমালোচনা। কিন্তু সব কিছুকে পাশ কাটিয়ে মুশফিক হয়ে উঠলেন ঢাকা টেস্টের সবথেকে বড় ধ্রুবতারা।

৩১৫ বল, ৪৩৪ মিনিটের অনবদ্য লড়াইয়ে মুশফিক ছুঁয়েছেন আরেকটি ডাবল সেঞ্চুরি। বাংলাদেশের পঞ্চম ডাবল সেঞ্চুরি। মুশফিকুর রহিমের তৃতীয়। রেকর্ড ডাবল সেঞ্চুরিতে ভাস্বর মুশফিক।

আগের দুই ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন উইকেট রক্ষক হিসেবে। এবার কিপিং ছেড়ে তৃতীয় টেস্টেই পেলেন ডাবল সেঞ্চুরির স্বাদ।

৩২ রানে দিন শুরু করে মুশফিক মধ্যাহ্ন বিরতির পরপরই পেয়েছিলেন ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরির স্বাদ। এরপর ব্যাটিং ধারাবাহিকতায় মুশফিক পৌঁছে যান ডাবল সেঞ্চুরিতে।

২০১২ সালে গলে প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে মুশফিক পেয়েছিলেন ডাবল সেঞ্চুরি। ২০১৫ সালে মুশফিকের ক্লাবে যোগ দেন তামিম। খুলনায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ডাবল পেয়েছিলেন তামিম।

২০১৭ সালে সাকিব এ ক্লাবে যোগ দেন এবং তামিম ও মুশফিককে ছাপিয়ে তার ২১৭ রান হয়ে উঠে বাংলাদেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ। সাকিবকে অবশ্য শীর্ষে থাকতে দেননি মুশফিক। ২২ মাস পর ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২১৯ রান তুলে মুশফিক উঠে যান শীর্ষে।

আজ নিজের প্রাপ্তির খাতায় মুশফিক যুক্ত করলেন আরেকটি ডাবল। তাতে মুশফিক হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে উজ্জ্বল ধ্রুবতারা। যার আলোয় রঙিণ বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট।


ঢাকা/ইয়াসিন/কামরুল