ঢাকা     রোববার   ০২ অক্টোবর ২০২২ ||  আশ্বিন ১৭ ১৪২৯ ||  ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪১৪

মাঠে ‘কুল’ থাকার রহস্য জানালেন ধোনি

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:০৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২  
মাঠে ‘কুল’ থাকার রহস্য জানালেন ধোনি

ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম সেরা অধিনায়ক মাহেন্দ্র সিং ধোনি। যিনি ক্যাপ্টেন কুল নামে পরিচিত। মাঠের পরিস্থিতি, ম্যাচের পরিস্থিতি যাইহোক না কেন, তিনি ছিলেন বরফ-শীতল ঠাণ্ডা মস্তিস্কে। কিভাবে মাঠের বিভিন্ন উত্তেজনাকর মুহূর্তেও এতোটা কুল থাকতে পেরেছেন তিনি? শুক্রবার জানিয়েছেন সেই গোপন রহস্য।

ঠাণ্ডা মেজাজে থাকার বিষয়ে তিনি বলেছেন, ‘আমি সবসময় আবেগকে নিয়ন্ত্রণে রাখা চেষ্টা করি। কারণ, দিনশেষে আমিও একজন মানুষ। আমরা যখন মাঠে নামি, আমরা চাই না কেউ খারাপ ফিল্ডিং করুক, ক্যাচ মিস হোক কিংবা মারাত্মক ভুল হোক। যারা ভুল করে, আমি সব সময় তাদের জায়গা থেকে ভাবি। রাগ দেখিয়ে কোনো লাভ নেই। ৪০ হাজার দর্শক গ্যালারিতে বসে ভুল দেখে ফেলেছে। কোটিরও বেশি মানুষ টিভি, ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সেই ভুল দেখেছে। আমি ভুলটা খোঁজার চেষ্টা করি। ঠিক কি কারণে ভুল হলো, সেটা খতিয়ে দেখি।’

তিনি আরও বলেন, ‘একজন ফিল্ডার মাঠে ১০০ শতাংশ দেওয়ার পরও যদি ক্যাচ মিস করে, আমার কোনও সমস্যা নেই। অনুশীলনে সে কতগুলো ক্যাচ নিয়েছে, আগে সেটা দেখে নেব। কোথায়, কিভাবে, কেন ভুল হচ্ছে— আমি সেগুলো দেখার চেষ্টা করব। হয়তো আমরা ওই একটা ভুলে ম্যাচও হেরে যেতে পারি। কিন্তু তাদের প্রচেষ্টাকে কখনও খাটো করে দেখব না। আমিও মানুষ। তার মনের মধ্যে যে অনুভূতি হচ্ছে, আমাকেও সেটা অনুভব করতে হবে। দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করা ক্রিকেটার যখন এইরকম ভুল করে, তার খারাপ লাগাটা স্বাভাবিক। সেই সঙ্গে কিন্তু আমাদের আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।’

‘মাঠের বাইরে বসে অনেক কিছু বলা সহজ। এটাও বলা সহজ তাদের এভাবে খেলা উচিত ছিল, তাহলে জিততো। কিন্তু মাঠের কাজটা আসলে সহজ নয়। আমরা আমাদের দেশের প্রতিনিধিত্ব করি, বিপক্ষ দলের খেলোয়াড়রা তাদের দেশের প্রতিনিধিত্ব করে। তারাও খেলতে এসেছে, জিততে এসেছে। তাদেরকেও উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে যেতে হয়।’ যোগ করেন তিনি।

ধোনি ভারতের হয়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপ (২০১১), টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ (২০০৭) ও চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিতেছে (২০১৩)।

ভারতের হয়ে ধোনি ৩৫০ ওয়ানডে খেলে ৫০.৫৭ গড়ে রান করেছেন ১০ হাজার ৭৭৩টি। ১০টি সেঞ্চুরির পাশাপাশি ৭৩টি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন। টি-টোয়েন্টি খেলেছেন ৯৮টি। দুই হাফ সেঞ্চুরিতে ৩৭.৬০ গড়ে রান করেছেন এক হাজার ৬১৭টি।

টেস্ট খেলেছেন ৯০টি। ৬ সেঞ্চুরি, ৩৩ হাফ সেঞ্চুরিতে ৩৮.০৯ গড়ে রান করেছেন ৪ হাজার ৮৭৬টি।

উইকেটরক্ষক হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার ঝুলিতে রয়েছে ৮২৯টি ডিসমিসাল। তার মধ্যে ৬৩৪টি ক্যাচ ও ১৯৫টি স্টাম্পিং।

ঢাকা/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়