ঢাকা     বুধবার   ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৯ ১৪২৯

মেক্সিকোকে হারিয়ে ঘুরে দাঁড়ালো আর্জেন্টিনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০০:৫৯, ২৭ নভেম্বর ২০২২   আপডেট: ১০:০২, ২৭ নভেম্বর ২০২২
মেক্সিকোকে হারিয়ে ঘুরে দাঁড়ালো আর্জেন্টিনা

শনিবার বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায় লুসাইল স্টেডিয়ামে মেক্সিকোর বিপক্ষে মাঠে নামে আর্জেন্টিনা। সি গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ২-০ গোলে জয় পেয়েছে আলবিসেলেস্তারা। 

মেক্সিকোকে ২-০ গোলে হারিয়ে বিশ্বকাপে টিকে থাকলো আর্জেন্টিনা। ৩৬ ম্যাচে অপরাজিত থাকার পর শঊদির কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু হয়েছিল মেসিদের। ঘুরে দাঁড়াতে প্রয়োজন ছিল একটি জয়ের। সেটি এলো গ্রুপ সির দ্বিতীয় ম্যাচেই। প্রথমার্ধে গোলের দেখা পায়নি কেউই। দ্বিতীয়ার্ধের ৬৪ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে দারুণ শটে পার্থক্য গড়ে দেন মেসি। আর দ্বিতীয় গোলটি আসে ফার্নান্দেজের পা থেকে। মেসির পর আর্জেন্টিনার হয় বিশ্বকাপে সর্বকনিষ্ঠ গোলদাতা ফার্নান্দেজ। ডিফেন্সিভ ফুটবল খেলছিল মেক্সিকো। পুরো ম্যাচে আর্জেন্টিনা মাত্র ৩টি শট নেয়, দুটিই গোল। আর মেক্সিকোও সমান ৩টি শট নেয় যার ১টিও গোল হয়নি। 

মেসির পর মেক্সিকোর জালে ফার্নান্দেজের গোল 

মেসির পর মেক্সিকোর জালে ফার্নান্দেজের গোল। ২-০ গোলে এগিয়ে আর্জেন্টিনা। ৮৭ মিনিটে শট কর্ণার থেকে বাঁ দিক দিয়ে বল আসে ফার্নান্দেজের পায়ে। তিনি গুটিরেজকে ফাঁকি দিয়ে কোনাকুনি তুলে দিয়ে বল জড়ান মেক্সিকোর জালে। 

অবশেষে মেসির গোল, এগিয়ে আর্জেন্টিনা

ডান দিক থেকে ডি মারিয়া দারুণ পাস দেন মেসিকে। বল নিজের নিয়ন্ত্রণে নিয়েই ডি বক্সের বাইরে থেকে মাটি গড়ানো নিচু শটে বল জড়ান মেক্সিকোর জালে। উল্লাসে ফেটে পড়ে আর্জেন্টিনা শিবির। ৬৪ মিনিটে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায় আর্জেন্টিনা। 

এবার বারের উপর দিয়েই মারলেন মেসি  

২২ গজ দূর থেকে ফ্রি কিক নেওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন মেসি। এর আগে গোলরক্ষক ওচোয়া একটি ফ্রি কিক রুখে দিয়েছিলেন, এবার তার কোনো কষ্ট হয়নি, মেসি নিজেই মারেন বারের উপরে। 

প্রথমার্ধে আর্জেন্টিনাকে রুখে দিয়েছে মেক্সিকো

প্রথমার্ধে আর্জেন্টিনাকে রুখে দিয়েছে মেক্সিকো। গোল শূন্য ড্রতে বিরতিতে গিয়েছে দুই দল। প্রথমার্ধে আর্জেন্টিনাকে খেলতে দেয়নি মেক্সিকো। মেক্সিকান ডিফেন্সে বারবার পরাস্ত হয়ে দিশেহারা দেখাচ্ছিল তাদের। মেসিরা বল হারিয়েছেন মাঝ মাঠেও। দুই দল শক্তির লড়াইয়ে যেন মেতেছিল। ফাউল হয়েছে ৯টি। মেক্সিকো বারবার কাউন্টার অ্যাটাকে আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করছে। প্রথমার্ধে আর্জেন্টিনা মাত্র ১টি শট নেয়, তাও লক্ষ্যহীন। আর মেক্সিকোর ৩টি শটের মধ্যে ১টি ছিল অন টার্গেট। তবে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল আর্জেন্টিনা। তাদের কাছে বল ছিল ম্যাচের ৬৮ শতাংশ সময়। 

অল্পের জন্য রক্ষা পেলো আর্জেন্টিনা

৪৫ মিনিটে ফ্রি কিক পায় মেক্সিকো। দারুণ একটি শট নেন ভেগা। আর্জেন্টাইন দেয়ালকে ফাঁকি দিয়ে বল যাচ্ছিল জালে। গোলরক্ষক ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে বল নিজের নিয়ন্ত্রণে রেখে দেন। একটু এদিক সেদিক হলেই গোল পেয়ে যেতো মেক্সিকো। 

আর্জেন্টিনার সহজ সুযোগ হাতছাড়া

ডান দিক থেকে ডি মারিয়ার কর্ণার কিক ডি বক্সে ভেতরের দিকে আসছিল। মাঝামাঝি জায়গায় থাকা লাউতারো মার্টিনেজ নিখুঁত হেডে জড়াতে পারতেন জালে। কিন্তু কিন্তু মেরে দেন বারের বাইরে। সহজ সুযোগ হারালো আর্জেন্টিনা।  

এবার মেসির ফ্রি কিক রুখে দিলো মেক্সিকান গোলরক্ষক 

৩৪ মিনিটে গোলপোস্টের ডান দিক থেকে নেওয়া ফ্রি কিক রুখে দেন মেক্সিকান গোলরক্ষক ওচোয়া। ডান দিকে ডি পলকে ভেগা ফাউল করলে এই ফ্রি কিক পায় আর্জেন্টিনা। 

আক্রমণের সুযোগ পাচ্ছে না আর্জেন্টিনা

বল নিয়ে উঠতে গেলেই মেক্সিকান দেয়ালে বাধাগ্রস্ত হচ্ছেম মেসিরা। শুরুর দিকে বেশ কয়েকবার যাওয়ার চেষ্টা করলেও এখন উলটো আক্রমণে যাচ্ছে মেক্সিকো। বারবার বল হারাতেও দেখা গেছে আর্জেন্টাইনদের। কাউন্টার অ্যাটাকে আর্জেন্টাইন ডিফেন্স ভাঙার মিশনে বারবার উঠেছেন লোজানোরা। ১৮ মিনিট পর্যন্ত মেক্সিকো ১টি শট নিলেও আর্জেন্টিনা পারেনি। 

আর্জেন্টিনা একাদশ (৪-৪-২)

মার্টিনেজ, মন্টিল, ওটামেন্ডি, লিসান্দ্রো মার্টিনেজ, আকুনা; ডি মারিয়া, ডি পল, রদ্রিগেজ, ম্যাক অ্যালিস্টার; মেসি, লাউতারো মার্টিনেজ। 

মেক্সিকো একাদশ (৫-৩-২)

ওচোয়া, আলভারেজ, আরাউজো, মন্টেস, মোরেনো, গ্যালার্দো; হেরেরা, শ্যাভেজ, গুয়ার্দাদো; লোজানো, ভেগা। 

মেসিদের টিকে থাকাই এখন শঙ্কার মুখে

২০১৯ সালে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে ব্রাজিলের কাছে ২-০ গোলে হারের পর থেকে উড়ছিল আর্জেন্টিনা। ৩৬ ম্যাচ ধরে অজেয় থাকার জাতীয় রেকর্ড গড়ে পা রেখেছিল বিশ্বকাপে। কম করে হলেও কাতারে তারা সেমিফাইনাল খেলবে, এমনটাই ভাবা হচ্ছিল। কিন্তু সৌদি আরবের কাছে অপ্রত্যাশিত হার সব হিসাব ওলট-পালট করে দিলো। বিশ্বকাপে টিকে থাকাই এখন শঙ্কার মুখে।

মুখোমুখি লড়াই

মেক্সিকোর বিপক্ষে আর্জেন্টিনার অতীত পরিসংখ্যান দারুণ। এল ত্রাইদের সঙ্গে শেষ ১০ বারের দেখায় অপরাজিত তারা। তাই দক্ষিণ আমেরিকানরাই ফেভারিট। মেক্সিকানরা আর্জেন্টিনাকে শেষবার হারিয়েছিল ২০০৪ সালের কোপা আমেরিকায়। উত্তর আমেরিকানদের বিপক্ষে দুইবার বিশ্বকাপের দেখায় দুটিতেই জিতেছিল আর্জেন্টিনা।

তবে মেক্সিকোর প্রেরণা সৌদি আরব। দ্বিতীয়ার্ধে আর্জেন্টিনার দুর্বলতা খুঁজে বের করে যেভাবে জিতেছে অ্যারাবিয়ানরা, সেটার পুনরাবৃত্তির চেষ্টা করছে জেরার্ডো মার্টিনো ও তার দল। পোল্যান্ডের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করা মেক্সিকোর বিশ্বাস, এবার পরিসংখ্যান পাল্টে দিয়ে আর্জেন্টিনা ও লিওনেল মেসির দলকে বিদায়ের পথ দেখিয়ে দেবে।

সৌদির চমক 

গত মঙ্গলবার লিওনেল মেসির পেনাল্টিতে এগিয়ে যাওয়ার পর তিনবার অফসাইডে গোল বাতিল। আর দ্বিতীয়ার্ধে বদলে যাওয়া আর্জেন্টিনাকে খোলসবন্দি করে ম্যাচ জিতে নেয় সৌদি আরব। ১৯৯০ সালের পর প্রথমবার আলবিসেলেস্তেদের বিশ্বকাপ শুরু হার দিয়ে।

ঢাকা/রিয়াদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়