ঢাকা     শুক্রবার   ০১ মার্চ ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৮ ১৪৩০

মেসির ছোঁয়ায় বদলে গেলেন মায়ামির যে ফুটবলার

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৫৭, ২১ আগস্ট ২০২৩   আপডেট: ১৪:০৬, ২১ আগস্ট ২০২৩
মেসির ছোঁয়ায় বদলে গেলেন মায়ামির যে ফুটবলার

নেইমারের সঙ্গে মেসির যোগসুত্রের শুরুটা বার্সেলোনা থেকে। মূলত ক্যারিয়ার উঁচুতে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি মেসির সঙ্গে একই দলে খেলাটাও নেইমারের স্বপ্ন ছিল। মেসির ছোঁয়ায় নেইমার কতটা বদলে গেছেন সেটার সবচেয়ে বড় উদাহরণ তাদের বন্ধুত্ব। এবার আর্জেন্টাইন তারকার সান্নিধ্যে এসে বদলে গেলেন ফিনল্যান্ডের অখ্যাত তরুণ রবার্ট টেলর।

মেসির সঙ্গে টেলরের সম্পর্কটা একই ক্লাবে খেলা সতীর্থ। দুজনই যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকারের (এমএলএস) দল ইন্টার মায়ামির হয়ে খেলেন। দুজনের পজিশন অবশ্য ভিন্ন। মেসি আক্রমণভাগের, টেলর মাঝমাঠের। আর এখানেই যোগসুত্রের শুরু। মেসিকে কাছে পেয়ে এই তরুণও নিজেকে বদলে ফেলেছেন। 

মায়ামির আক্রমণভাগে মেসির সঙ্গে আছেন জোসেফ মার্টিনেজ। এই দুজনকে বলের যোগান দেন টেলর। জোসেফ মার্টিনেজ পরিচিত হলেও টেলর ছিলেন অপরিচিত। ইংল্যান্ডের দশম টায়ার থেকে মায়ামিতে এসে জায়গা করে নেওয়া চাট্টিখানি কথা নয়। টেলর সেটাই করেছেন। কিন্তু ফর্মে ছিলেন না।

মেসি আসার পর বদলে গেলেন ফিনল্যান্ডের এই তরুণ। দর্শনটাই বদলে গেল। যে কিনা শেষ সাত ম্যাচে চার গোল করার পাশাপাশি চারটি অ্যাসিস্টও করেছেন। মায়ামির লিগস কাপ জয়ের পেছনে বেশ অবদান রেখেছেন। মেসির সঙ্গে এই যোগসূত্র টেলরকে আরো অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে।

সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ীর সান্নিধ্য এসে টেলরের খেলার ধরনই শুধু বদলে যায়নি। পরিচিতও বেড়ে গেছে। যেখানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আগে তার ছবি মোটে হাজার খানেক মানুষ পছন্দ করতো, সেখানে এখন লক্ষাধিক মানুষ পছন্দ করছে। বেড়ে গেছে ফলোয়ার।

অথচ ফিনল্যান্ডের তারকা এখনো বিনয়ী। মেসির সঙ্গে একই ড্রেসিংরুম শেয়ার করছেন, সেটা যেন বিশ্বাস হচ্ছে না, ‘কয়েক বছর আগেও কেউ যদি আমাকে বলতো আমি মেসির সঙ্গে একসাথে খেলতে যাচ্ছি, তাহলে সেটা হেসেই উড়িয়ে দিতাম।’ 

মায়ামিতে আসার আগে সেই অধ্যায়ের আক্ষেপের গল্পটুকুও শোনালেন টেলর। তিনি বলেন, ‘আমি বেঞ্চে বসে ছিলাম (আগের ক্লাবে), একটা মিনিটও পাইনি। কোচ আমাকে বলেছিলেন যে আমি যথেষ্ট শক্তিশালী নই। আমি বেঞ্চে বসে শুধু খেলা দেখছিলাম।‘

মেসির সঙ্গে থেকে কতোটা বদলে গেছেন টেলর? এমন প্রশ্নের জবাবে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে টেলর বলেন, ‘মেসি বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়। আমি কখনোই বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়ের সাথে খেলিনি। এটাই পার্থক্য। মেসি সবার জন্য অনেক জায়গা তৈরি করে। সবকিছুই করতে পারে। তার বড় গুন হলো সঠিক সময়ে সতীর্থকে খুঁজে নেয়। তার সঙ্গে খেলার স্বপ্ন সত্যি হয়েছে।’

টেলরের জীবনে মেসি কতটা প্রভাব ফেলতে পারবেন সেটা এখনো পুরোপুরি দেখা যায়নি। কিন্তু একজন মানুষের জীবনের বাকবদলের পেছনে আরো একজনের অবদান থাকে, সেটা টেলর পেয়ে গেছেন; এটুকু বলা যায়।

ঢাকা/বিজয়

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়