ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৪ ১৪৩১

‘মাঝে মাঝে ক্লান্ত লাগে’

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:১১, ২২ আগস্ট ২০২৩   আপডেট: ২৩:২৬, ২২ আগস্ট ২০২৩
‘মাঝে মাঝে ক্লান্ত লাগে’

চোখে-মুখে কিছুটা ক্লান্তির ছাপ। কালো চুলের মাঝে দেখা যাচ্ছে পাক ধরা সাদা চুল। একটি দুটি নয়, গায়ে তিনটি নম্বরে অঙ্কিত লাল সবুজ রঙের বিজ্ঞাপনি জার্সি। সবুজে ঘেরা শুটিং স্পটের মাঝে মিনিট খানেক দাঁড়িয়ে ফোন চাপতে চাপতে সাকিব আল হাসান বলেন, ‘এবার শুরু করা যায় নাকি?’

শুরু হয়েছে তবে সেটি সাকিবের মন মতো হয়নি।  ‘এই উত্তর দিতে হবে আমাকে এখন?’-বিশ্বকাপের আগে ওয়ানডে নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্নে এভাবে প্রতিক্রিয়া দেখান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

সোমবার (২১ আগস্ট) বিকেলে দুবাই থেকে ঢাকা আগমন। মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) সকালে হেলিকপ্টার যোগে বরিশাল। উপলক্ষ হাসপাতাল উদ্বোধন। জনসামগমের মধ্যে সেটি শেষ করে বিকেলে হাজির রাজধানীর একটি স্টুডিওতে। এবার সাকিব বিজ্ঞাপনের মডেল। ক্রিকেটের বাইরেও ভীষণ ব্যস্ত সাকিবের বাস যেন অন্য ভুবনে।

তারও ৩৫ দিন আগে সাকিব উড়াল দেন কানাডায়। সেখানে গ্লোবাল টি-টোয়েন্টিতে ৫ ম্যাচ খেলে তার গন্তব্যস্থল শ্রীলঙ্কায়। দ্বীপরাষ্ট্রে লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে (এলপিএল) ১০ ম্যাচ খেলে উড়াল দেন মরুর দেশে। সেখানে রাতে বাণিজ্যিক কাজে অংশ নিয়ে আসেন ঢাকা।

কিভাবে সম্ভব? রাইজিংবিডিকে প্রতিক্রিয়ায় বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘ম্যানেজ হয়ে যায়, ম্যানেজ করতে করতে এখন এটাতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। সো খুব বেশি একটা কঠিন হয় না।’

তবুও প্রশ্ন থেকে যায়, জিজ্ঞাসা রয়ে যায়। একটু বেশি দৌড়ঝাঁপ হয়ে যাচ্ছে না? সাকিবের কণ্ঠে এবার ক্লান্তির কথা, ‘মাঝে মাঝেতো একটু ক্লান্ত লাগে। কিন্তু আসলে কিছু করার নেই।’

‘এটা আমাদের ম্যানেজ করে চলতে হয়। পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে আমার মনে হয় এগুলো ম্যানেজ করে চলার দায়িত্বটা আমাদের। কিভাবে আমরা টাইমটা ম্যানেজ করবো, সেই জায়গা থেকে খুব বেশি একটা কঠিন হয় সেটা আমি বলবো না’-আরও যোগ নাম্বার সেভেন্টি ফাইভ।

এখানেই শেষ নয়। দিন চারেক পরে আবার উড়াল দেবেন এশিয়া কাপ খেলতে শ্রীলঙ্কায়। হাইব্রিড মডেলের এশিয়া কাপে দু’বার যাতায়ত করতে হবে পাকিস্তানেও। এশিয়া কাপ খেলে দেশে এসে নিউ জিল্যান্ড সিরিজ, এরপর ভারতে শুরু হবে বিশ্বকাপ। এক শহর থেকে আরেক শহরে উড়ে দুই মাস ধরে খেলতে হবে বিশ্বকাপ। সাকিবতো বলেই দিয়েছেন, পেশাদার হিসেবে ম্যানেজ করে খেলতে হবেই!

ক্রিকেট মাঠে সাকিব অনন্য, সেরাদের কাতারে। যে কোনো অবস্থায় জ্বলে উঠতে সিদ্ধহস্ত। বিজ্ঞাপনের মডেল সাকিবও কি এমন? এক্ষেত্রে সাকিব জানান নতুন কিছু করার সময় মাঝে মাঝে নার্ভাস লাগে। তবে সেটিও মানিয়ে নেন দ্রুত।

‘এরকম কিছু কিছু অবস্থান (শুটিং) থাকে সেটা সাবলীল হয়, কোনো সময় অনেক নার্ভাস, যে জিনিসটা একদম নতুন করে করছি সেই জিনিসটা একটু নার্ভাস লাগে, অস্বস্তির লাগে’-এভাবে বলেছেন সাকিব।

শুটিংয়ে মডেল সাকিবের কথা বলতে গিয়ে প্রযোজক এ বি এম মোতাহেরুল ইসলাম রন্টু রাইজিংবিডিকে জানান, এখানেও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের সঙ্গে কারও তুলনা নেই। 

‘ব্যক্তি (মডেল) হিসেবে বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে সে খুবই ভালো। কো-অপারেট করে আমাদের সাথে। যতটুক টাইম চাই সে ঠিকভাবে আমাদের দেয়ার চেষ্টা করে, যেটা আমাদের চাহিদা থাকে। অনেক ক্ষেত্রে একটা শর্ট অনেকবার নেয়া লাগে, অনেকে দিতে চান না, সাকিবের ক্ষেত্রে এটা আমরা পাই না। সে খুব হেল্পফুল।’

‘সে যখন যে কাজটা করে এটা খুব প্রায়োরিটি দিয়ে করে। সে এই কাজটাকে সম্মান করে। এটা অন্যদের থেকে আলাদা। খেলার সময় যেমন তার মাথায় অন্য কিছু থাকে না, এখানেও তাই’-আরও যোগ করেন সাকিবের বিজ্ঞাপনের এই প্রযোজক। 

সাকিবতো এমনই, একজনই, সেটা খেলার মাঠে হোক কিংবা বিজ্ঞাপনের মডেলিং হোক, সবখানেই!

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়