ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ জুলাই ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বড় হারে শুরু বাংলাদেশের

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০২-১৩ ৩:৫৩:১৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০২-১৪ ৩:১৭:১২ পিএম
বড় হারে শুরু বাংলাদেশের
Voice Control HD Smart LED

ইয়াসিন হাসান : পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বের হয়ে আসতে পারল না বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডে জয় অধরাই থাকল। তাসমান পাড়ে প্রথম জয়ের সন্ধানে থাকা বাংলাদেশের অপেক্ষা বাড়ল। তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের শুরুটা হলো বড় হার দিয়ে।

নেপিয়ারের ম্যাকলিন পার্কে বুধবার নিউজিল্যান্ড প্রথম ওয়ানডে জিতেছে ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে।

বিরুদ্ধ কন্ডিশন হলেও ‘আত্মসমর্পণ’ করার মতো কোনো মঞ্চ ছিল না। চাইলে যে লড়াই করা যেত, তা বুঝিয়েছেন মোহাম্মদ মিথুন, মেহেদী হাসান মিরাজ ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে ৯৪ রান তুলতেই ৬ ব্যাটসম্যান সাজঘরে। সেখান থেকে সপ্তম উইকেটে মিরাজ ও মিথুন ৩৭ এবং অষ্টম উইকেটে সাইফউদ্দিন ও মিথুন ৮৪ রানের জুটি গড়েন। তাদের দৃঢ়তায় ২৩২ রানের লড়াকু পুঁজি পায় বাংলাদেশ।

কিন্তু নির্বিষ বোলিংয়ে লড়াই হলো সামান্যই। মিরাজ ও মাহমুদউল্লাহ পেয়েছেন উইকেট। তাতেও জয় নাগালের বাইরে বাংলাদেশের। ২২ গজে দোর্দান্ড প্রতাপ দেখিয়ে সেঞ্চুরি পেয়েছেন মার্টিন গাপটিল। ওপেনিংয়ে তাকে সঙ্গ দিয়ে হাফ সেঞ্চুরি তুলেছেন হেনরি নিকোলস। আর গাপটিলের সঙ্গে জয় নিয়ে ফিরেছেন রস টেলর। নিউজিল্যান্ড ৩৩ বল বাকি থাকতে জয় নিশ্চিত করে। সহজ জয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে স্বাগতিকরা।



লক্ষ্য তাড়ায় উদ্বোধনী জুটিতে শতরান পায় নিউজিল্যান্ড। ১০৩ রানে কিউই শিবিরে আঘাত করেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ডানহাতি স্পিনারের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন হেনরি নিকোলস। ৮০ বলে ৫৩ রান করেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। দ্রুতই আউট হন নতুন ব্যাটসম্যান কেন উইলিয়ামসন। নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর বলে এলবিডব্লিউ হন ১১ রানে।

দ্রুত ২ উইকেট হারালেও গাপটিল ছিলেন দুর্দান্ত। জমাট ব্যাটিংয়ে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। তাকে তৃতীয় উইকেটে সঙ্গ দেন রস টেলর। তাদের অবিচ্ছিন্ন ৯৬ রানের জুটিতে হেসেখেলে জয় পায় নিউজিল্যান্ড। ম্যাচসেরা নির্বাচিত হওয়া গাপটিল ১১৭ ও টেলর ৪৫ রানে অপরাজিত ছিলেন।৮ চার ও ৪ ছক্কায় বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিতীয় এবং ওয়ানডেতে ১৫তম সেঞ্চুরির ইনিংসটি সাজান গাপটিল। এর আগে ২০১৫ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে হ্যামিলটনে করেছিলেন ১০৫ রান। টেলর ৪৯ বলে করেন ৪৫ রান।

এর আগে ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারিয়ে শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ। টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ৯৪ রান তুলতেই ৬ ব্যাটসম্যান সাজঘরে। ষষ্ঠ উইকেটে ৩৭ রানের জুটি গড়েন মিরাজ ও মিথুন। বলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ব্যাটিং করা মিরাজ দ্যুতি ছড়াচ্ছিলেন। কিন্তু ভুল শটে শেষ তার ২৭ বলে ২৬ রানের লড়াকু ইনিংস।

১৩১ রানে ৭ উইকেট নেই বাংলাদেশের। বাড়তি একজন ব্যাটসম্যান নিয়ে আজ মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। সেই বাড়তি ব্যাটসম্যান আর অন্য কেউ নন, পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। শেষমেশ তার ব্যাটেই লড়েছে বাংলাদেশ। অপরপ্রান্তে মিথুন জমাট ব্যাটিং করছিলেন। দুজনের অষ্টম উইকেট জুটিতে বাংলাদেশ পায় ৮৪ রান।



তাদের ব্যাটে আড়াইশ রানের স্বপ্ন দেখছিল বাংলাদেশ। কিন্তু সাইফউদ্দিনের পর মিথুন আউট হলে বেশিদূর যায়নি বাংলাদেশের রান। মিচেল স্যান্টনারকে তুলে মারতে গিয়ে সাইফউদ্দিন আউট হন ৪১ রানে। ৫৮ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ইনিংসটি সাজান সাইফউদ্দিন। আর নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরা মিথুনের ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ৬২ রান। ৯০ বলে ৫ বাউন্ডারিতে রান করা মিথুনকে থামান ৪ উইকেট পাওয়া লোকি ফার্গুসন। মুস্তাফিজুর রহমান ট্রেন্ট বোল্টের বলে বোল্ড হলে মাশরাফি অপরাজিত থাকেন ৯ রানে।

ইনিংসের শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। প্রথম বলে চার মেরে শুরু করা তামিম বোল্টের দারুণ সুইং ডেলিভারিতে ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে। শুরু থেকেই নড়বড়ে থাকা লিটন আউট হন দৃষ্টিকটুভাবে। বাট-প্যাডের ফাঁক দিয়ে বল দিয়ে আঘাত করে তার অফ স্টাম্পে।

মাঠে নেমে পাল্টা আক্রমণ চালান সৌম্য। তার ব্যাটে বাড়ছিল দলের রান। কিন্তু পুরোনো ভুলে আটকা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ম্যাট হেনরির শর্ট বল বোঝার আগেই ব্যাট চালিয়ে ফিরতি ক্যাচ দেন। ২২ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় করেন ৩০ রান। মাঝে মুশফিক বোল্টের বল ভেতরে টেনে বোল্ড হন ৫ রানে।

৪২ রানে ৪ উইকেট হারানো বাংলাদেশ মাহমুদউল্লাহ ও মিথুনের ব্যাটে লড়াইয়ের আশা করেছিল। কিন্তু প্রস্তুতি ম্যাচে হাফ সেঞ্চুরি পাওয়া মাহমুদউল্লাহ হতাশ করেন। ফার্গুসনের দ্রুতগতির বলে কাট করতে গিয়ে ১৩ রানে ক্যাচ দেন স্লিপে। দলে ফেরা সাব্বির রহমানের ব্যাট হাসেনি। ‘আনলাকি থার্টিনে’ পৌঁছার পর সাব্বির স্টাম্পড হন স্যান্টনারের বলে।



পরের বীরত্বগাঁথা গল্প মিথুন, মিরাজ ও সাইফউদ্দিনের। দলকে তারা লড়াইয়ের পুঁজি এনেদিলেও শেষ হাসিটা হাসতে পারেননি। স্যান্টনার ও বোল্ট পেয়েছেন ৩টি করে উইকেট। আগুন ঝরা বোলিংয়ে ফার্গুসনের শিকার ৪ উইকেট।

তিন ফরম্যাট মিলিয়ে মাশরাফি আজ শততম ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন। তার মাইলফলক ছোঁয়ারম্যাচটিতে বড় পরাজয় সঙ্গী হয়েছে। ১৬ ফেব্রুয়ারি ক্রাইস্টচার্চে হবে দ্বিতীয় ওয়ানডে। দেখার বিষয় মাশরাফির হাত ধরে পরাজয়ের বৃত্ত ভাঙতে পারে কিনা বাংলাদেশ।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/ইয়াসিন/পরাগ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge