ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

তথ্য-প্রযুক্তির মামলায় আরাফাত সানীর বিচার শুরু

মামুন খান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১০-১২ ৫:৫২:৪১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১০-১৩ ৮:২৮:৪০ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানীর বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলায় অভিযোগ গঠন করেছেন ট্রাইব্যুনাল। এ অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আরাফাত সানীর বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হলো।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক সাইফুল ইসলাম অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন। একই সঙ্গে বিচারক আগামী ২১ নভেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ঠিক করেছেন।

শুনানিকালে আসামি আরাফাত সানী এবং ও তার স্ত্রী বাদিনী নাসরিন সুলতানা ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ২২ মার্চ ঢাকা সিএমএম আদালতে আরাফাত সানীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার এসআই মো. ইয়াহিয়া। এরপর মামলাটি বিচারের জন্য সিএমএম আদালত থেকে সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়। অভিযোগপত্রে আরাফাত সানীর সঙ্গে নাসরিন সুলতানার বিয়ে হয় বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা গেছে, আরাফাত সানীর সঙ্গে নাসরিন সুলতানার প্রায় সাত বছর আগে পরিচয়ের সূত্রে উভয়ের ঘনিষ্ঠতা হয়। একপর্যায়ে তারা অভিভাবককে না জানিয়ে ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। নাসরিন বিভিন্ন সময়ে বিয়ের বিষয়টি অভিভাবকদের অবহিত করে আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে তুলে নেওয়ার জন্য বলেন। কিন্তু সানী তার কথা না শুনে বিভিন্ন বিষয়ে ভয়ভীতি দেখায়। গত বছর ১২ জুন রাতে সানী নাসরিনের নাম এবং মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে ফেসবুকে ফেক আইডি খুলে ওই আইডি থেকে নাসরিনের আইডিতে অন্তরঙ্গ অশ্লীল ছবি ফেসবুক মেসেঞ্জারে পাঠায় এবং ভিকটিমকে নানারকম হুমকি দিতে থাকে। এরপর গত ২৫ নভেম্বর রাতে সানী নাসরিনের নগ্ন ছবি তার ফেসবুকে পাঠিয়ে আরো ভয়াবহ অবস্থা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে বলে হুমকি প্রদান করতে থাকে।

ওই ঘটনায় গত ৫ জানুয়ারি আরাফাত সানীর বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মোহাম্মদপুর থানায় মামলাটি দায়ের করেন নাসরিন সুলতানা।

প্রসঙ্গত, আরাফাত সানীর বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন ও যৌতুকের অভিযোগ এনে আরো দুটি পৃথক মামলা দায়ের করেন নাসরিন সুলতানা।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ অক্টোবর ২০১৭/মামুন খান/মুশফিক

Walton
 
   
Marcel