ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

৮৯ হাজার টাকার জন্য লড়াই ১৬ বছর

মামুন খান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১০-১২ ৭:৩৭:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১০-১৩ ৮:২৭:৩৯ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : ৮৯ হাজার টাকার জন্য ১৬ বছর আদালতে লড়াই করে মামলায় জয়ী হয়েছেন কাজি হুমায়ুন সিদ্দিক নামের এক ব্যবসায়ী।

বৃহস্পতিবার আইএফআইসি ব্যাংক, প্রধান কার্যালয়ের আইন কর্মকর্তা মো. মারুফ হাসান ৮৯ হাজার টাকার ১৬ বছরের সরল সুদসহ ১ লাখ ৯৮ হাজার ৯৬৪ টাকার পে অর্ডার আদালতে জমা দিলে মামলাটি নিষ্পত্তি হয়।

ঢাকার সিনিয়র সহকারী জজ প্রথম আদালতের বিচারক তোফাজ্জল হোসেন হিরু পে-অর্ডার গ্রহণ করে মামলা নিষ্পত্তি করেন।

বাদীর আইনজীবী অমিত দাশ গুপ্ত জানান, ২০০২ সালে ব্যবসায়ী কাজি হুমায়ুন সিদ্দিক তার আইএফআইসি ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের হিসাবের একটি দশ পাতার চেকবই গ্রহণ করেন। কিছুদিন পর তিনি লক্ষ করেন যে, তার ওই চেক বইয়ের দুটি পাতা কম।

এ বিষয়ে তিনি ব্যাংকে লিখিত অভিযোগ করার পর দেখতে পান যে, তার ওই চেক দুটি ব্যবহার করে তার হিসাব থেকে ৮৯ হাজার টাকা তোলা হয়ে গেছে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানায় চেক দুটি বাদীই ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন করেছেন। পরবর্তী সময়ে বাদী এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে অভিযোগ করলে তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখে মামলা করার পরামর্শ দেয়।

এরপর ২০০৪ সালে বাদী ব্যাংকের বিরুদ্ধে ঢাকার সিনিয়র সহকারী জজ প্রথম আদালতে ক্ষতিপূরণ মামলা দায়ের করেন। আদালতে বাদীর স্বাক্ষর ও চেক দুটিতে থাকা স্বাক্ষর মিলিয়ে দেখার জন্য হস্তলিপি বিশারদের কাছে মতামত চেয়ে পাঠান। হস্তলিপি বিশারদ চেকের স্বাক্ষর ও বাদীর স্বাক্ষর এক নয় বলে মতামত দেন।

আদালত সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে বাদীর পক্ষে রায় দেন। ওই রায়ের বিরুদ্ধে ব্যাংক আপিল করে কিন্তু আপিলে হেরে যায়। এরপর বাদী রায়ের টাকা আদায়ের জন্য ডিক্রি জারি মামলা করেন। উক্ত মামলায় ব্যাংককে সুদসহ ১ লাখ ৯৮ হাজার ৯৬৪ টাকা প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়।

ওই নির্দেশ অনুযায়ী ব্যাংক বৃহস্পতিবার আদালতে ওই টাকার পে-অর্ডার জমা দিলে মামলা শেষ হয়।

এ সম্পর্কে বাদী হুমায়ুন সিদ্দিক বলেন, ‘আমি ১৬ বছর মামলা চলাতে ৮৯ হাজার টাকার বেশি খরচ করেছি। কিন্তু এতে আমার কোন দুঃখ নেই। কারণ, আমি এটা প্রমাণ করতে পেরেছি যে, ব্যাংক থেকে চেক জালিয়াতি হয়েছিল।’




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ অক্টোবর ২০১৭/মামুন খান/শাহনেওয়াজ

Walton
 
   
Marcel