ঢাকা     সোমবার   ২২ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৯ ১৪৩১

রাইজিংবিডিতে সংবাদ প্রকাশের পর দৃষ্টিহীন দম্পতির পাশে ব‌্যবসায়ী

নরসিংদী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৪৪, ২ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ০৮:৫৯, ২ অক্টোবর ২০২০
রাইজিংবিডিতে সংবাদ প্রকাশের পর দৃষ্টিহীন দম্পতির পাশে ব‌্যবসায়ী

উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হলেও তাদের নেই কোনো কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা। নরসিংদীর রফিকুল ইসলাম ও শাহিদা আফরোজ মীম দম্পতির কষ্টগাঁথা জীবন নিয়ে গত ১৩ জুলাই রাইজিংবিডিতে ‘উচ্চশিক্ষিত এক দৃষ্টিহীন দম্পতির কষ্টগাঁথা’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এই সংবাদটি রাফায়েত হোসেন মজুমদার নামে এক ব্যবসায়ীর দৃষ্টিগোচর হলে তিনি নরসিংদী সুইড বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জসিম উদ্দিন সরকারকে ফোন করে ওই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী দম্পত্তির খোঁজ-খবর নেন। পরে ওই দম্পত্তির দুই মাসের খাবারের দায়িত্ব নিয়ে বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে চাল,ডাল,তেল,লবণ,চিনি,পেঁয়াজ,রসুন, আদা, হলুদ, মরিচ, মসলা, আলু ও সবান সবজি বাজারের জন্য নগদ ৩ হাজার টাকাসহ অন্যান্য খাদ্যসামগ্রী তাদের বাড়িতে পৌঁচ্ছে দেন। এর আগেও তিনি ওই দম্পতিকে খাদ্যসামগ্রী দিয়েছেন।

দৃষ্টিহীন রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘প্রথমে মহান আল্লাহর কাছে হাজারো শুকরিয়া জানাচ্ছি। দোয়া করি রাফায়েত হোসেন মজুমদার ভাই ও রাইজিংবিডির জন্য। যারা আমাদের মতো এমন অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমি তাদের প্রতি চির কৃতজ্ঞা থাকব।’

শাহিদা আফরোজ মীম বলেন, ‘রাইজিংবিডিতে আমাদের কষ্ঠ গাঁথা জীবন কাহিনীর প্রতিবেদন দেখে আমাদের মতো এ অসহায় পরিবারের প্রতি সদয় হয়ে রাফায়েত হোসেন মজুমদার ভাই খাদ্যসামগ্রী ও নগদ টাকা দিয়েছেন। আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ। দোয়া করি রাইজিংবিডি ও রাফায়েত হোসেন মজুমদার ভাইয়ার জন্য। যার জন্য আজ  আমরা দুই সন্তান নিয়ে দু-মুঠো ভাত খেতে পাচ্ছি।’

রাফায়েত হোসেন মজুমদার বলেন, ‘সমাজে অনেক বিত্তবান মানুষের বসবাস। সবাই যদি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতো, খোঁজ খবন নিতো তাহলে এই সমাজ, দেশ আরও সুন্দর হতো।’

নরসিংদী সুইড বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো জসিম উদ্দিন সরকারক বলেন, ‘মজুমদার ভাইয়ের ইচ্ছা শক্তি ও মানুষের প্রতি ভালোবাসা আমাকে অনুপ্রাণিত করছে। বিশেষ করে এই পরিবারটির জন্য কাজ করতে গিয়ে যতটা কষ্ঠ হয়েছে,তার সবটুকু সফলতা আমি পেয়ে গেছি। এ পৃথিবীতে রাফায়েত হোসেন মজুমদারের মত মানুষ আছেন বলেই আমরা কাজ করতে সাহস পাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, রফিকুল ইসলাম ও শাহিদা আফরোজ মীম দৃষ্টিহীন দম্পতি। দু’জনই উচ্চশিক্ষিত। একজন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও অপরজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্পন্ন করেন অনার্স-মাস্টার্স। বিয়ে করেছেন ভালোবেসে। এখন এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে ছোট একটি সংসার তাদের। তবে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হলেও তাদের নেই কোনো কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা। তাই এই দম্পতিকে পরনির্ভশীল হয়ে চলতে হয়। 
বর্তমানে নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের দাসপাড়ায় ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন তারা। 

মাহমুদ/বুলাকী 

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়