Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ৩০ ১৪২৭ ||  ২৯ শা'বান ১৪৪২

যশোরে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর ধর্ষণ মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:০৫, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১২:৩৯, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১
যশোরে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর ধর্ষণ মামলা

যশোরে তালাকনামা গোপন করে শারীরিক সম্পর্ক করায় স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেছেন এক নারী। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন তিনি।

ওই আদালতের বিচারক মো. সাইফুদ্দীন হোসাইন অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে নির্দেশ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম আব্দুর রহমান। তিনি যশোর শহরের নাজির শংকরপুরের সাদেক দারোগার মোড় এলাকার আব্দুল ওহাবের ছেলে।

বাদী মামলার অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, তিনি সদর উপজেলার একটি ইউনিয়ন ভূমি অফিসে অফিস সহায়ক পদে কর্মরত। ২০০৪ সালের ২৪ ডিসেম্বর আসামি আব্দুর রহমানের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তাদের একটি ছেলেসন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে তাকে নির্যাতন করতেন স্বামী। কিন্তু ছেলের ভবিষ্যতের কথা ভেবে নির্যাতন সহ্য করে তিনি সংসার করতে থাকেন। আর স্বামীর চাহিদামতো যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় তাকে মারধরের পর তাড়িয়ে দেন। তার আশ্রয় হয় বাবার বাড়িতে। এদিকে, দ্বিতীয় বিয়ে করেন আব্দুর রহমান। এরপর ২০২০ সালে স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক নিরোধ আইনে মামলা করেন বাদী। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ওই মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে এসে স্ত্রীকে তালাক দেওয়া হয়েছে বলে তালাকের কপি আদালতে উপস্থাপন করে আব্দুর রহমান।  

মামলার এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ওই তালাকনামা অনুযায়ী ২০১৩ সালের ২০ জানুয়ারি তাকে তালাক দেওয়া হয়েছে। অথচ তালাকের কোনো নোটিস বাদীকে বা সংশ্লিষ্ট পৌরসভায় দেওয়া হয়নি। তালাকনামা উপস্থাপনের পর ওইদিন বিকেল ৪টার দিকে আব্দুর রহমানকে বাদীর বাবা শহরের খড়কির বাড়িতে ডেকে নেন। এ সময় তার কাছে তালাকের বিষয় জানতে চাওয়া হলে সদুত্তর দিতে পারেননি। 

অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, ২০১৮ সালের ২২ ডিসেম্বর, ২০১৯ সালের ১৬ জানুয়ারি ও ১৬ মার্চ বাদীকে চিকিৎসা করানোর জন্য ঢাকায় নিয়ে যান আব্দুর রহমান। ওই সময় ঢাকার নয়াপল্টনে একটি হোটেলে আব্দুর রহমান তার সঙ্গে রাতযাপন করেন। এছাড়াও ২০১৯ সালের ২৭ এপ্রিল ও ২৩ জুন ভারতে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। সেখানেও তার সঙ্গে রাতযাপন করেন আব্দুর রহমান। ফলে 'ইচ্ছাকৃতভাবে তালাকনামা গোপন রেখে শারীরিক সম্পর্ক করা ধর্ষণের শামিল' উল্লেখ করে ন্যায়বিচার পেতে আদালতে মামলা করেন ওই নারী।  

জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের পেশকার আব্দুল হালিম বলেন, বিচারক মামলার অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পিবিআই-কে নির্দেশ দিয়েছেন।

রিটন/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়

শিরোনাম

Bulletলকডাউন: ১৪-২১ এপ্রিল। যা যা চলবে: ১. বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল বন্দর এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিস। ২. পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না ৩. শিল্প-কারখানা ৪. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন, কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরগুলোর (স্থল, নদী ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বর্হিভূত থাকবে। ৫. ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ৬. খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কেবল খাদ্য বিক্রয়/সরবরাহ করা যাবে। ৭. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে || যা যা বন্ধ থাকবে: ১. সব সরকারি, আধাসরকারি, সায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ২. সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে ৩. শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ থাকবে