ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৪ ১৪৩১

সৌদিতে দুর্ঘটনায় নিহত নোয়াখালীর হেলাল-শহীদুলের বাড়িতে মাতম

নোয়াখালী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:২৩, ২৯ মার্চ ২০২৩   আপডেট: ১২:৪৯, ২৯ মার্চ ২০২৩
সৌদিতে দুর্ঘটনায় নিহত নোয়াখালীর হেলাল-শহীদুলের বাড়িতে মাতম

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত নোয়াখালীর শহীদুল ও হেলালের বাড়িতে চলছে মাতম। তারা ছিলেন তাদের পরিবারের একমাত্র আয়ের উৎস। এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে তাদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ।

নিহতরা হলেন, জেলার চাটখিল উপজেলার নাহারখিল ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম রামনারায়ণপুর গ্রামের ভূঁইয়াজি বাড়ির মৃত মো. হুমায়ুন কবিরের ছেলে মো. হেলাল উদ্দিন (৩৪) ও সেনবাগ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ মোহাম্মদপুর মালেক মোল্লার বাড়ির শরিয়ত উল্লাহর ছেলে মো. শহীদুল ইসলাম শাহেদ (২৭) ।  

জানা যায়, এক বছর আগে পরিবারের বড় ছেলে মো. হেলাল উদ্দিন সৌদি আরবে যান। সেখানে তিনি একটি রোস্তেরাঁয় চাকরি নেন। তার তিন বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে।

নিহতের ছোট ভাই মো. রিপন জানান, ভাইয়াসহ তাদের রেস্তোরাঁর আরও চার জন ওমরা করার জন্য এক সঙ্গে মক্কা নগরীর উদ্দেশে যাত্রা করে। যাত্রাপথে সড়ক দুর্ঘটনায় তিন জনই মারা যান।

আরও পড়ুন: সৌদি আরবে বাস দুর্ঘটনা, ২০ ওমরাহযাত্রী নিহত

নাহারখিল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন জানান, হেলালের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সে ছিলো পরিবারের বড় সন্তান ও প্রধান আয়ের উৎস। তার অকাল মৃত্যুতে পরিবারটি অসহায় হয়ে গেলো।

অপরদিকে, গত বছরের এপ্রিল মাসে শহীদুল ইসলাম শাহেদ সৌদি আরব যান। সেখানে তিনি একটি দোকানে কর্মরত ছিলেন। গতকাল ওমরাহ পালনের উদেশ্যে কর্মস্থল থেকে রওনা হলে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান তিনি।

মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফিরোজ আলম রিগান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরিবারের একমাত্র রোজগার করা ব‌্যক্তিকে হারিয়ে সবাই এখন দিশেহারা। 

উল্লেখ্য, ২৭ মার্চ সৌদি আরবে স্থানীয় সময় বিকেলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ওমরাহযাত্রীদের বহনকারী একটি বাস আকাবা শার এলাকায় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। ওই বাসে ৪৭ জন যাত্রী ছিলেন। তাদের মধ্যে ৩৫ জন বাংলাদেশি। দুর্ঘটনায় ২২ জন মারা যান। নিহতদের মধ্যে ৮ জনই বাংলাদেশি। 

সুজন/ইভা 

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়