ঢাকা     শুক্রবার   ০১ মার্চ ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৮ ১৪৩০

বাবাকে ফোনে রেখে মেয়েকে নির্যাতন

ঝিনাইদহ সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:১৫, ২৭ আগস্ট ২০২৩   আপডেট: ১৪:২৪, ২৭ আগস্ট ২০২৩
বাবাকে ফোনে রেখে মেয়েকে নির্যাতন

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার হাকিমপুর গ্রামে যৌতুক না পেয়ে মোবাইল কলে বাবাকে রেখে শামীমা সুলতানা সাথী নামের এক গৃহবধূকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে।

শনিবার (২৬ আগস্ট) রাতে উপজেলার হাকিমপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

অভিযুক্ত হাসানুর জামান রিপন হাকিমপুর গ্রামের জলিল শেখের ছেলে।

ভুক্তভোগী শামীমা একই উপজেলার মহেশপুর গ্রামের শরিফুল ইসলামের মেয়ে। বর্তমানে তিনি ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ভুক্তভোগী সাথী জানান, ৩ মাস রিপনের সঙ্গে তার পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় সাথীর বাবা সোনার গহনাসহ নগদ টাকা যৌতুক দেন রিপনকে। কিন্তু বিয়ের ১ মাস পার হতে না হতেই রিপন টাকার জন্য সাথীকে চাপ দিতে থাকেন। পরিবারের কথা চিন্তা করে সাথী বাড়িতে কিছু বলেননি। ১ সপ্তাহ আগে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেবর ও ননদ সাথীর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এলে রক্ষা পান সাথী। 

এরপর বিভিন্ন সময় টাকার জন্য রিপন ও তার পরিবারের লোকজন চাপ দিতে থাকে সাথীকে। গতকাল শনিবার টাকা আনার কথা বললে সাথী অস্বীকার করে। পরে  শরিফুল ইসলামকে মোবাইল কলে রেখে সাথীকে মারধর করেন দেবর ও ননদসহ পরিবারের সদস্যরা। পরে শরিফুল ইসলাম মেয়েকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সাথীর বাবা শরিফুল ইসলাম বলেন, আমার মেয়েকে হত্যার উদ্দেশ্যে তারা মারধর করেছে। এভাবে নির্যাতন কোনো মানুষ করতে পারে না। আমি এই নির্যাতনের বিচার চাই।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, থানায় অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শরিফুল/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়