ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৬ ১৪৩১

ঢাকা-ভাঙ্গা কমিউটার ট্রেন উদ্বোধন

ভাঙ্গা-বরিশাল নতুন রেলপথ নির্মাণ করা হবে: রেলমন্ত্রী

মাদারীপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৪৭, ৪ মে ২০২৪   আপডেট: ১৫:৪৯, ৪ মে ২০২৪
ভাঙ্গা-বরিশাল নতুন রেলপথ নির্মাণ করা হবে: রেলমন্ত্রী

রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম বলেছেন, ‘ট্রেন সুবিধায় আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল দক্ষিণবঙ্গ। আজ (শনিবার) ঢাকা-ভাঙ্গা রুটে চালু হলো আরও একজোড়া ট্রেন। অল্পদিনের ব্যবধানে আরও কয়েকটি ট্রেন চালু হবে এই রুটে। খুব দ্রুত ভাঙ্গা থেকে বরিশাল পর্যন্ত নতুন রেলপথ নির্মাণের কাজ শুরু হবে।’

শনিবার (৪ মে) দুপুরে মাদারীপুরের শিবচর রেলস্টেশনে ঢাকা-ভাঙ্গা নতুন কমিউটার ট্রেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

জানা গেছে, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর উন্মুক্ত হচ্ছে রেলের দখিনা দুয়ার। এবার দক্ষিণবঙ্গের ঢাকা-ভাঙ্গা রুটে চালু হলো আরও একজোড়া ট্রেন। নতুন ট্রেন উদ্বোধন উপলক্ষে পদ্মা পাড়ের রেল স্টেশন শিবচরে ছিল সাজ সাজ রব। নতুন ট্রেনের যাত্রায় উচ্ছ্বাসিত মানুষ। অল্প সময়ে ঢাকা যেতে পারার সুযোগ পেয়ে খুশি তারা। শনিবার সকাল থেকেই শিবচর স্টেশনে ভিড় করেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানায়, শুধু যাতায়াত নয়, এই অঞ্চলের ব্যবসা বাণিজ্য ও কৃষিতেও ভূমিকা রাখবে ট্রেন। তারা বলছেন, ট্রেন যোগাযোগের কারণে নতুন নতুন শিল্প ও বিভিন্ন কারখানা গড়ে উঠবে এলাকায়। ফলে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।

ট্রেন উদ্বোধন উপলক্ষে শিবচর রেল স্টেশন চত্বরে সমাবেশের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে যোগ দেন রেলের মহাপরিচালক, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নুর-ই-আলম চৌধুরীসহ প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রেলমন্ত্রী বলেন, অল্প দিনের মধ্যে ভাঙ্গা থেকে বরিশাল পর্যন্ত রেল লাইন নির্মাণের কাজ শুরু হবে। পরে অতিথিদের সঙ্গে নিয়ে ফিতা কেটে নতুন ট্রেনের উদ্বোধন করেন তিনি। দুপুর ১২টার পর শিবচর রেলস্টেশন থেকে ঢাকা অভিমুখে যাত্রা শুরু করে ভাঙ্গা কমিউটার।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ী থেকে ভাঙ্গা ননস্টপ চন্দনা কমিউটার সার্ভিস রাজবাড়ী স্টেশন থেকে ছাড়বে ভোর ৫টায়। ভাঙ্গা স্টেশনে পৌঁছাবে ভোর ৬টা ১৫ মিনিটে। এরপর এই ট্রেনটি ভাঙ্গা কমিউটার নামে ভাঙ্গা স্টেশন থেকে ছাড়বে সকাল ৭টা ১৫ মিনিটে। আর ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে পৌঁছাবে সকাল ৯টায়। ফিরতি যাত্রায় ভাঙ্গা কমিউটার ঢাকার কমলাপুর থেকে ছাড়বে সন্ধ্যা ৬টায়। ভাঙ্গায় গিয়ে পৌঁছাবে রাত ৮টায়। এরপর এই ট্রেনটি চন্দনা কমিউটার নামে ভাঙ্গা থেকে ছেড়ে যাবে রাত ৮টা ১০ মিনিটে। আর রাজবাড়ী স্টেশনে গিয়ে পৌঁছাবে রাত ৯টা ৩০ মিনিটে। ট্রেনটিতে ৫২৮টি শোভন শ্রেণির আসন আছে।

বেলাল/মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়