ঢাকা     সোমবার   ১৫ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ৩১ ১৪৩১

কুয়াকাটা সৈকতে পর্যটকের ঢল

পটুয়াখালী (উপকূল) প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:২৫, ১৯ জুন ২০২৪   আপডেট: ১০:৫৩, ১৯ জুন ২০২৪
কুয়াকাটা সৈকতে পর্যটকের ঢল

ফাইল ফটো

ঈদুল আজহার ছুটিতে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের ঢল নেমেছে। পর্যটকের পদচারণয় সাগর কন্যা কুয়াকাটা এখন মুখরিত। সমুদ্রের ঢেউয়ের তালে নেচে-গেয়ে আনন্দ উৎসবে মেতে উঠছে শিশুসহ নানা বয়সী পর্যটকরা।

বুধবার (১৯ জুন) সরেজমিনে দেখা গেছে, সৈকতের বেঞ্চিতে বসে পর্যটকরা নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করছেন। কেউ মেতেছেন বন্ধুদের সঙ্গে হইহুল্লোড়ে। অনেকে আবার ঘোড়া, ওয়াটার বাইক ও মোটরসাইকেল চড়ে ঘুরে দেখছেন দর্শনীয় সব স্থান।

তিন নদীর মোহনা, লেম্বুর বন, ঝাউবাগান ও গঙ্গামতি সৈকতসহ সব স্পটে পর্যটকদের ভিড় দেখা গেছে। পর্যটকদের ঢলে আবাসিক হোটেল-মোটেল, খাবার ঘর ও শপিংমলসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বেড়েছে বেচা-কেনা।

এদিকে, কুয়াকাটায় আগত পর্যটকদের নিরাপত্তায় ট্যুরিস্ট পুলিশ, নৌ পুলিশ, থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে।

ঢাকার কামরাঙ্গীরচর থেকে আসা নাঈম-সাবিনা দম্পতি বলেন, ঈদের ছুটিতে এখানে এসেছি। কুয়াকাটার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আমাদের বিমোহিত করেছে। সমুদ্রের বড় বড় ঢেউয়ের সঙ্গে সাঁতার কাটা আসলেই অন্যরকম এক অনুভূতি।

ঢাকার সভার থেকে আসক বকুল মিয়া বলেন, ১৬ বন্ধু মিলে কুয়াকাটা এসেছি। এখানে সকাল থেকেই আকাশ মেঘলা। একটু পর পর বৃষ্টি হচ্ছে। সব মিলিয়ে দারুণ এক পরিবেশ। সমুদ্রের মোহনীয় গর্জন প্রাণ শীতল করেছে।

কুয়াকাটা সৈকত সংলগ্ন চা দোকানী ইদ্রিস মিয়া বলেন, গতকাল এবং ঈদের দিন পর্যটক কম ছিল। তবে গতকাল বিকেল থেকে পর্যটকের সংখ্যা বাড়তে থাকে। আশা করছি শুক্রবার পর্যন্ত কুয়াকাটায় ব্যাপক পর্যটকের আগমন ঘটবে এবং আমাদের বিক্রি আরও বাড়বে।

কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ জোনের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ বলেন, পর্যটকদের নিরাপত্তায় বিভিন্ন স্পটে ট্যুরিস্ট পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া মাঠে নৌ পুলিশ, থানা পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরাও রয়েছেন। আশা করছি পর্যটকরা নিরাপদে তাদের ভ্রমণ উপভোগ করতে পারবেন।

ইমরান/কেআই

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়