ঢাকা     রোববার   ২৯ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৯ ||  ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩

পটুয়াখালী-কালাইয়া সড়কে পায়রা নদীতে সেতু হচ্ছে

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৩৯, ১৮ জানুয়ারি ২০২২  
পটুয়াখালী-কালাইয়া সড়কে পায়রা নদীতে সেতু হচ্ছে

পায়রা নদী (ফাইল ছবি)

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি পূরণে পটুয়াখালী-কালাইয়া সড়কে পায়রা নদীর ওপর সেতু নির্মাণ হচ্ছে। সেতুটির দৈর্ঘ্য হবে ১৬৯০ মিটার। প্রকল্পে ব্যয় হবে ৬৪০ কোটি ৫৫ লাখ ৩৩ হাজার ৮৪৫ টাকা। প্রকল্পটি যৌথভাবে বাস্তবায়ন করবে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামউহান-মীর আখতার হোসেন প্রাইভেট লিমিটেড।

সেতু বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, পটুয়াখালীর ‘কচুয়া-বেতাগী-পটুয়াখালী-লোহালিয়া-কালাইয়া’ সড়কে পায়রা নদীর ওপর কোনো সেতু না থাকায় মির্জাগঞ্জ উপজেলার সঙ্গে পটুয়াখালী সদরের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। সড়কের পায়রাকুঞ্জ অবস্থানে ফেরির মাধ্যমে স্বল্প পরিসরে যানবাহন চলাচল করে। এতে প্রচুর সময় নষ্ট হয়। অনেক ক্ষেত্রে দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় জীবনের ঝুঁকি নিয়েই নদী পার হতে হয়।

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি অনুসারে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে একটি সেতু নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। গত ২০২০ সালের ১০ মার্চ এক হাজার ৪২ কোটি ২৭ হাজার ৭৯ লাখ টাকা প্রকল্পের ব্যয় নির্ধারণ করে একনেক সভায় ২০২০ সালের ১০ মার্চ থেকে ২০২৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রকল্পের সময় বেঁধে দেওয়া হয়।

সেতু নির্মাণের জন্য সিঙ্গেল স্টেজ টু এনভেলপ মেথড ক্রয় পদ্ধতি অবলম্বন করে ঠিকাদার নিয়োগের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তিনটি প্রতিষ্ঠান দরপত্র দাখিল করেন। প্রতিষ্ঠান তিনটি হলো— চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ করপোরেশন, স্যামউহান-মীর আখতার হোসেন লিমিটেড এবং চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড। এই তিনটি প্রতিষ্ঠানের কারিগরি প্রস্তাব যোগ্য বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠান তিনটির আর্থিক প্রস্তাব খোলার সুপারিশ করে।

সূত্র জানায়, কারিগরি মূল্যায়নে রেসপন্সিভ তিনটি প্রতিষ্ঠানের আর্থিক প্রস্তাব গত ২০২১ সালের ৩ নভেম্বর খোলা হয়। প্রকল্পের প্রাক্কলিত মূল্য (ডিপিপি অনুসারে) ৯৩৮ কোটি ৬৯ লাখ টাকা দাখিল করা আর্থিক প্রস্তাবের মূল্যায়িত দর পাওয়া যায়। এতে চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাক্কলিত দরের ৩০.০৮ শতাংশ কম, স্যামউহান-মীর আখতার হোসেন ৩১.৭৬ শতাংশ কম এবং চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ করপোরেশন ২৫.৩৮ শতাংশ কম দর উল্লেখ করে।

আর্থিক প্রস্তাবের গাণিতিক শুদ্ধতা যাচাই করে আর্থিক প্রস্তাব দাখিলকারী তিনটি প্রতিষ্ঠানকেই এ বিষয়ে চিঠি দেওয়া হয়। প্রত‌্যেক প্রতিষ্ঠানই এই গাণিতিক ত্রুটির সংশোধিত দরের বিষয়ে একমত পোষণ করে। মূল্যায়ন কমিটি দরপত্রে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে কারিগরি ও আর্থিক প্রস্তাবে রেসপন্সিভ সর্বনিম্ন দরদাতা যৌথভাবে স্যামউহান-মীর আখতার হোসাইন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করার সুপারিশ করে। তাদের মূল্যায়িত দর ৬৪০ কোটি ৫৫ লাখ ৩৩ হাজার ৮৪৫ টাকা। দরপত্রটির ভ্যালিডিটি পিরিয়ড ১০ দিন। ২০২২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি দরপত্রটির ভ‌্যালিডিটি পিরয়ড শেষ হবে।

এ অবস্থায় ডিফেক্ট লাইয়াবেলিটি পিরিয়ড (১২ মাস) ছাড়া ৩৬ মাসের জন্য বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ কর্তৃক কচুয়া-বেতাগী-পটুয়াখালী সড়কে পায়রা নদীর ওপর সেতু নির্মাণ কাজের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগের উদ্যোগ নিয়েছে। দরপত্রে সর্বনিম্ন দরদাতা স্যামউহান-মীর আকতার হোসেন এর অনুকূলে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিয়োগ সংক্রান্ত একটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য সরকারি ক্রয় কমিটির সভায় উপস্থাপন করা হবে।

সূত্র জানায়, কচুয়া-কালাইয়া সড়কে পায়রা নদীর ওপর ব্রিজটি নির্মাণ হলে ওই এলাকার যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ হবে। বিষয়টি দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।

ঢাকা/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়