ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে হবে কর পরিশোধ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-১২ ১০:২৫:১১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-১২ ১০:৫৩:২৪ পিএম

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পরিশোধ করা যাবে আয়কর। বিকাশ, রকেট, ইউক্যাশ, শিওরক্যাশ ও নগদ যে কোনো মাধ্যমে ঝামেলা ছাড়াই কর পরিশোধে টাকা দেয়ার ব্যবস্থা থাকছে এবারের আয়কর মেলায়।

আয়কর মেলা প্রথম বারের মতো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ই-পেমেন্টে মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) যুক্ত করতে যাচ্ছে। ফলে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে মেলায় পৃথক বুথে সহজেই কর প্রদান করতে পারবে করদাতারা।

মঙ্গলবার এনবিআরের সম্মেলন কক্ষে আয়কর মেলা উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া জানালেন এমন সুবিধার কথা।

চেয়ারম্যান বলেন, ‘মেলায় প্রথমবারের মতো মোবাইল ব্যাংকিংয়ে কর পরিশোধ করা যাবে। বিকাশ, রকেট, ইউক্যাশ, শিওরক্যাশ ও নগদের আলাদা বুথ থাকবে। করদাতারা ২৪ ঘণ্টা যেকোনো জায়গায় বসে কর দিতে পারবেন। এছাড়া মেলায় সোনালী, জনতা ও বেসিক ব্যাংকের বুথ থাকবে, যেখানে করের চালান জমা দেয়া যাবে।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে দেশের কর-জিডিপি অনুপাত ১০ শতাংশ। বাজেটে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা আদায় করতে পারলে অনুপাত ১১ দশমিক ৪ শতাংশে পৌঁছবে।’

অডিটের নামে হয়রানির ঢালাও অভিযোগ অস্বীকার করে মোশাররফ বলেন, ‘হয়রানির অভিযোগ নিয়ে প্রশ্ন আছে। প্রতিবছর যে পরিমাণ রিটার্ন জমা পড়ে তার সর্বোচ্চ ৪ শতাংশ অডিটের জন্য বাছাই করা হয়। তাছাড়া করদাতা স্বনির্ধারণী পদ্ধতিতে যে হিসেব-নিকেষ জমা দেন, তাই গ্রহণ করা হয়।’

কর্পোরেট কর বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পার্শ্ববর্তী দেশের তুলনায় বাংলাদেশে কর্পোরেট কর কম। বিশ্বের অন্যান্য দেশে কর্পোরেট করের সঙ্গে অন্যান্য কর নেয়া হলেও বাংলাদেশে প্রাতিষ্ঠানিক করদাতাদের কাছ থেকে অন্য কোনো কর নেয়া হয় না। ভবিষ্যতে করভিত্তি শক্তিশালী হলে কর্পোরেট কর কমানোর চিন্তা-ভাবনা করা হবে। ’

ক্যাসিনো সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের ব্যাংক হিসাবের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্র‌তিষ্ঠ‌া‌নের ব্যাংক হিসাব তলব করা হয়। ওইসব হিসা‌বে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও নথি পাওয়া গেছে। যা আগামী দিনে রাজস্ব বাড়াতে সহায়তা করবে। তবে যেসব তথ্য পেয়েছি তা জনসমক্ষে বলতে চাচ্ছি না।’

সংবাদ সম্মেলনে এনবিআর সদস্য (কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা) কালিপদ হালদার, সদস্য মেফতাহ উদ্দিন, আলমগীর হোসেন, কানন কুমার রায় প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’-এ স্লোগান এবং ‘কর প্রদানে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ, নিশ্চিত হোক রূপকল্প বাস্তবায়ন’-প্রতিপাদ্যে রাজধানীসহ সব বিভাগীয় শহরে সাত দিন, জেলা শহরগুলোতে চার দিন, ৪৮ উপজেলায় দুই দিন এবং আট উপজেলায় দিনব্যাপী মেলা আয়োজন করা হয়েছে। সব মিলিয়ে এবার দেশের ১২০ স্থানে অনুষ্ঠিত হবে মেলা।


ঢাকা/এম এ রহমান/সনি

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন