Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৮ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

মুলুকান কাকাতুয়া পাখির প্রথম ব্রিডিং বাচ্চা

মেসবাহ য়াযাদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১২, ৩ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ০০:১৪, ৪ অক্টোবর ২০২১
মুলুকান কাকাতুয়া পাখির প্রথম ব্রিডিং বাচ্চা

মুলুকান কাকাতুয়া পাখির সফল ব্রিডিং করে ডিম থেকে বাচ্চা ফুটিয়েছেন রাজধানীর উর্দু রোডের বাসিন্দা মো. রহমতউল্লাহ অমি। তিনি এশিয়া মহাদেশের মধ্যে এই প্রথম পাখি, পশু আর প্রকৃতি প্রেমী লেখক, গবেষক ড. আব্দুল ওয়াদুদের গবেষণা কাজে লাগিয়ে নিজের খামারে সফলভাবে বাচ্চা ফুটিয়েছেন।

রহমতউল্লাহ বলেন, পাখি বিশেষজ্ঞ ড. আব্দুল ওয়াদুদের সঠিক পরামর্শ ও দিকনির্দেশনায় মেল এবং ফিমেলের জন্য প্রজননের উপযুক্ত পরিবেশ দিতে পারায় কাকাতুয়ার ডিম থেকে বাচ্চা ফুটেছে। তা না হলে আমার পক্ষে কোনো দিনও এই কাজ সম্ভব হতো না। মুলুকান কাকাতুয়া কয় রঙের হয়, সেই ধারণাও আমার ছিল না। সেটাও আমি ড. আব্দুল ওয়াদুদের কাছ থেকে জেনেছি। বিশেষ করে জেনেছি, মুলুকান কাকাতুয়ার সারা শরীর দেখতে সাদা। কালো ঠোঁট এবং মাথায় হলুদ রঙ হয়ে থাকে।

পাখি বিশেষজ্ঞ ড. আব্দুল ওয়াদুদ বাংলাদেশে সর্বপ্রথম ব্যয়বহুল ম্যাকাও পাখির সফল ব্রিডিং করেছেন। তার পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা কাজে লাগিয়ে এ দেশে অসংখ্য বেকার যুবক পাখি পালনে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন। পাশাপাশি এসব যুবকরা বেকারত্ব দূরীকরণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন।

পাখি বিশেষজ্ঞ ড. আব্দুল ওয়াদুদ মনে করেন, পাখিও মানুষকে ভালোবেসে সোহাগ করতে পারে। খাঁচায় থেকেও পাখি মানুষের ডাকে সাড়া দিয়ে কথা বলে। পাখির সাথে মানুষের সখ্যও হতে পারে। পাখি প্রেমীদের ভালোবাসায় শিক্ত হয়ে খাঁচাবন্দী হয়েই পাখির জীবন কেটে যায়। খাঁচায় পোষ মানা এসব পাখি আবার মানুষের বাণিজ্যের অংশও হতে পারে।

পাখি গবেষক ড. আব্দুল ওয়াদুদ তার গবেষণালব্ধ ফলাফল কাজে লাগিয়ে আবিষ্কার করেছেন, 'থিউরি ফিকামলি তত্ত্ব'। মানুষের সুস্থ থাকার জন্য ড. আব্দুল ওয়াদুদের যুগান্তরকারী এই থিউরি বিশ্বব্যাপী সমাদৃত হয়েছে।

/মাহি/ 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়