ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৪ ১৪৩১

থানার পতিত জমিতে সবজি চাষ, মিটছে চাহিদা

এ‌কে আজাদ, খাগড়াছ‌ড়ি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৫১, ৩১ অক্টোবর ২০২২   আপডেট: ১১:৫৭, ৩১ অক্টোবর ২০২২
থানার পতিত জমিতে সবজি চাষ, মিটছে চাহিদা

থানা চত্বরের পতিত জমিতে চাষ করা হয়েছে বিভিন্ন শাক-সবজির। ফলনও হয়েছে বাম্পার। চারিদিকে যেন সবুজের সমারোহ। পতিত জমির সদ্ব্যবহার ও সবুজ শ্যামল মনোরম পরিবেশ তৈরি করে বেশ সুনাম কুড়িয়েছে খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা থানা।

করোনা ভাইরা‌সের সংক্রমণের আগেও থানার সামনের জায়গা পতিত অবস্থায় ছিল। বর্তমানে ওই জায়গায় বিভিন্ন ধরনের শীতকালীন সবজির চাষে হচ্ছে। যার কারণে বদলে গেছে থানার বা‌হি‌রের দৃশ্য। চিরচেনা এ সবুজ দৃশ্য থানায় সেবা নিতে আসা মানুষের নজর কেড়েছে। এতে সেবা প্রত্যাশীরা তাদের বসতবাড়ির পতিত জমিতে সবজি চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা গেছে, চারদিকে ইট পাথরে ঘেরা থানা চত্বর এখন ফসলের মাঠ। সেখানে শিম, টমেটো, মুলা, বেগুন, ওলকপি, বাঁধাকপি, ফুলকপি, লাউ, লালশাক, ডাটাশাক, পুঁইশাক, ধনিয়া পাতা, পেঁপে, পুদিনাসহ নান রকমের সবজির বাগান রয়েছে। এই সবজি থানায় কাজ করা পুলিশ সদস্যদের খাবারের চাহিদা অনেকাংশে পূরণ করছে।

গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুর রশিদ রাই‌জিং‌বি‌ডি’কে ব‌লেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা ও আইজিপি মহোদয়ের নির্দেশনায় থানার পতিত জমিতে শীতকালীন সবজি চাষের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিষমুক্ত এসব সবজি বাজারের তুলনায় অনেক ভালে। পুলিশ কোয়ার্টার ছাড়াও আশেপাশের এলাকার লোকদের এসব সবজি বিতরণ করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশের সব সরকারি-বেসরকারি অফিসের প্রচুর পরিমাণে পতিত জমি রয়েছে। এসব জমিতে যদি চাষ করা যায় তাহলে সবজির উৎপাদন অনেক বাড়বে। যা দেশের সবজির চাহিদা পূরণে কিছুটা হলেও ভূমিকা রাখবে।’

মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়