ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ মাঘ ১৪২৬, ২৮ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

আমরা বাস্কেটবল খেলতে নামছি না : সুলশার

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-০৭ ৫:১৩:৫৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-০৭ ৬:০০:৪৫ পিএম

ইতিহাদ স্টেডিয়ামে আজ রাতে মাঠে গড়াচ্ছে ১৭৯তম ম্যানচেস্টার ডার্বি। মুখোমুখি হবে দুই নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটি ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

ডার্বিতে আগের ১৭৮ বারের দেখায় ৭৩ ম্যাচে জয় পেয়েছে ইউনাইটেড। পক্ষান্তরে সিটির জয় ৫৩টি। তবে ২০১৩ সালে স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের বিদায়ের পর থেকে ১৫ ম্যাচের মধ্যে মাত্র ৪টি জিতেছে ইউনাইটেড। ৯ ম্যাচ জিতেছে সিটি। এছাড়া শেষ পাঁচ মৌসুমে সিটির তিন লিগ শিরোপার বিপরীতে শূন্যহাত ইউনাইটেডের।

এবারের মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগের প্রথম ১৫ ম্যাচ শেষে দুই দলের পয়েন্ট পার্থক্য ১১। ৩২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তৃতীয় স্থানে আছে টানা দুইবারের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন সিটি। আর ওলে গুনার সুলশারের ইউনাইটেড ২১ পয়েন্ট নিয়ে আছে তালিকার ষষ্ঠ স্থানে। তবে ‘রেড ডেভিল’দের কোচ সুলশারের বিশ্বাস, এখনো ম্যানচেস্টার সিটির চেয়ে বড় দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

ডার্বির আগে লন্ডনের এক সংবাদমাধ্যমকে সুলশার বলেন, ‘অবশ্যই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে বড় দল। রেড ডেভিলরা এখন পর্যন্ত টানা প্রিমিয়ার লিগ খেলেছে। অথচ আমি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জার্সি গায়ে জড়ানোর অনেক বছর (৫ বছর, ১৯৯৫-৯৬ মৌসুমে ম্যানচেস্টার সিটি প্রিমিয়ার লিগ থেকে ছিটকে যায়, ২০০০-০১ মৌসুমে ফিরে আসে) পর ম্যানচেস্টার ডার্বি খেলতে নামি।’

‘অবশ্য ঠিক এই মুহূর্তে তারা আমাদের থেকে ভালো অবস্থানে আছে। তবে আমি মনে করি, ম্যানচেস্টার ডার্বিকে এখনো বড় ম্যাচ হিসেবে দেখা উচিত। আমরা তাদের চেয়ে পিছিয়ে আছি। তার অর্থ কিন্তু এই না যে, আমরা মাঠে বাস্কেটবল খেলতে নামছি। আর আমরা প্রস্তুত আছি এই ম্যাচের জন্য’- যোগ করেন ইউনাইটেড কোচ।

প্রিমিয়ার লিগ থেকে শীর্ষ চারটি দল সরাসরি জায়গা করে নেয় চ্যাম্পিয়নস লিগে। সেই হিসেবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবার ভালোই পিছিয়ে আছে। ২৯ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার চতুর্থ স্থানে আছে চেলসি। ইউনাইটেডের থেকে ৮ পয়েন্ট এগিয়ে তারা।

তবে সুলশার বিশ্বাস করেন, তার দল তালিকার ওপরের দলগুলোকে টপকানোর সামর্থ্য রাখে, ‘আমার বিশ্বাস আমাদের যে লক্ষ্য আছে, আমরা সেটি অর্জন করতে পারব। কারণ, আমাদের সে ধরনের খেলোয়াড় আছে। আর ক্লাবের মতো আমাদের সমর্থকরাও সেটি বিশ্বাস। তাহলে, কেন নয়? আমাদের ক্লাব এই পথ পাড়ি দেবে আর ওপরের সারির দলগুলোকে টপকে যেতে পারবে বলে আমি মনে করি। এর জন্য আমাদের জয়ের ধারায় থাকতে হবে।

‘আর আমরা যতদিন সঠিক পথে থাকব, আমরা ততই আমাদের লক্ষ্যের কাছাকাছি পৌঁছাতে পারব। এই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে জয়ের ক্ষুধা রয়েছে। আশা করি, তারা আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছানোর সেই আনন্দের দিন উপহার দেবে- বলেন সুলশার।


ঢাকা/ইমন/পরাগ