ঢাকা, সোমবার, ১৬ চৈত্র ১৪২৬, ৩০ মার্চ ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ওয়ানডে ইতিহাসের বাঁক বদল শুরুর দিন

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৭ ৯:৩২:৩১ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৭ ১২:০৫:৪৩ পিএম

রীতিমত কঠিন সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন ভারতের অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দীন। তাঁর ওই সিদ্ধান্তে শুধু ভারতের ইতিহাস নয়, ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসের বাঁক বদল শুরু হয়েছিল।

শচীন টেন্ডুলকার তখন ভারত দলের হার্টথ্রুব তারকা। প্রায় পাঁচ বছর কাটিয়ে দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। ১৯৯৪ সালে তাঁর অধিনায়ক ছিলেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দীন। কোনো এক অজানা কারণে আজহারউদ্দীনের মনে হলো টেন্ডুলকারকে ব্যাটিংয়ে ওপেনিং করানো যায়।

যেই চিন্তা সেই কাজ। ভারত তখন ছিল নিউজিল্যান্ড সফরে। চার ওয়ানডে খেলতে এশিয়ার দলটি নিউজিল্যান্ডের মাটিতে। প্রথম ওয়ানডেতে বেশ বাজেভাবে হার। ২৭ মার্চ দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টেন্ডুলকারকে ওপেনিংয়ে পাঠালেন আজহারউদ্দীন। অকল্যান্ডের সবুজ গালিচায় সেবার প্রথমবারের মতো ওয়ানডেতে ওপেনিংয়ে ভারতের ব্যাটিং ঈশ্বর। 

নভজিত সিধুর সঙ্গে ইনিংস শুরু করলেন টেন্ডুলকার। সেই শুরু। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ওপেনিং ম্যাচে করলেন ৪৯ বলে ৮২ রান। ২০১২ সালের ১৮ মার্চ ক্যারিয়ার শেষ করেছেন ওপেনিংয়ে নেমেই। মাঝে অনেক উত্থান-পতন থাকলেও টেন্ডুলকারের ওপেনিংয়ের রেকর্ডই ছিল সবথেকে ঐশ্বর্যপূর্ণ।

ওয়ানডের ৪৫২ ইনিংসের ৩৪৪ ইনিংসে ওপেনিং করেছেন টেন্ডুলকার। ইনিংস শুরু করে রান করেছেন ১৫,৩১০ রান। ব্যাটিং গড় ৪৮.২৯ । ওয়ানডেতে পাওয়া ৪৯ সেঞ্চুরির ৪৫টি পেয়েছেন ওপেনিংয়ে।

এখানেও টেন্ডুলকার সবার ওপরে। ওপেনিংয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেছেন সনাৎ জয়াসুরিয়া (১২৭৪০)। তালিকার তিন নম্বরে আছেন ক্রিস গেইল (১০১৭৯)। 

ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন ৫ নম্বরে। এরপর ৬, ৭ নম্বরেও ব্যাটিং করেছেন। এক সময় ৪ নম্বরে থিতু হয়েছিলেন। কিন্তু ২৬ বছর আগে আজকের দিনে তাঁর নতুন পথ চলা শুরু হয়। সেখান থেকে পাল্টে যায় ইতিহাস। টেন্ডুলকার হয়ে উঠেন ক্রিকেটের সবথেকে বড় ধ্রুবতারা।

 

ঢাকা/ইয়াসিন