ঢাকা     রোববার   ১৬ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ২ ১৪২৮ ||  ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

এনামুলের ব‌্যাটে আফতাবের ছক্কা, গিলেস্পির ঘোর লাগা অনুভূতি

ইয়াসিন হাসান || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৭:৫৮, ১৮ জুন ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
এনামুলের ব‌্যাটে আফতাবের ছক্কা, গিলেস্পির ঘোর লাগা অনুভূতি

বাংলাদেশের ক্রিকেটে যে কয়েকটি ছক্কা বিখ‌্যাত হয়ে আছে সেগুলির মধ‌্যে অন‌্যতম আফতাব আহমেদের কার্ডিফের সেই ছক্কা।

২০০৫ সালের ১৮ জুন অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে শেষ ওভারে আফতাব জেসন গিলেস্পিকে যে ছক্কা মেরেছিলেন তা ক্রিকেটপ্রেমিদের স্মৃতিতে আজও তরতাজা। অম্লান হয়ে থাকবে আজীবন। কোথায় আছে আফতাব আহমেদের সেই স্মৃতি জড়িয়ে থাকা ব‌্যাটটি?

জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি দিলেন চমকপ্রদ তথ‌্য। জানালেন ওই ব‌্যাটটি তাঁর ছিল না! কোথায় আছে তা এখন জানেনও না! ‘ব‌্যাটটা আমার ছিল না। আমি এনামুল হক জুনিয়রের ব‌্যাট নিয়ে মাঠে গিয়েছিলাম। এখন কোথায় আছে সত্যিই তা মনে করতে পারছি না। আমার কাছে নেই এটা জানি। এখন আর এটা খুঁজে পাই না।’–হাসতে হাসতে বললেন আফতাব।

শেষ ওভারে বাংলাদেশের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৭ রান। ক্রিজে ছিলেন আফতাব আহমেদ ও মোহাম্মদ রফিক। স্ট্রাইকে ছিলেন আফতাব। শেষ ওভারে জেসন গিলেস্পির করা প্রথম বলেই মিড-উইকেটের ওপর দিয়ে বল সীমানা ছাড়া করেন আফতাব, ছক্কা। আর পরের বলে ১ রান নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ে বাংলাদেশ।

ডিপ মিড উইকেট দিয়ে হাঁকানো সেই ছক্কা আজও চোখের সামনে ভাসে আফতাবের। ১৫ বছর আগের সেই শট নিয়ে জিজ্ঞেস করতেই আফতাব কথার ঝাঁপি খুলে দিলেন, ‘শটটা একদম ওয়েল টাইমিং ছিল। আলহামদুলিল্লাহ। একটু নড়চড় হলেই কিন্তু আর ছয় হতো না। কারণ আমি ফিল্ডারের মাথার ওপর দিয়েই কিন্তু মেরেছিলাম। গিলেস্পি স্লোয়ার দিয়েছিল। আমি হাল্কা সরে গিয়ে শটটা নেই। ব‌্যাটে লাগার সঙ্গে সঙ্গে বুঝে নেই ওইটা ছয়। কেউ আর আটকাতে পারবে না।’

অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ছিলেন রিকি পন্টিং। সর্বকালের সেরা অধিনায়কের ফিল্ডিং সাজানো দেখেই আফতাব বুঝতে পেরেছিলেন স্লোয়ার দেবেন গিলেস্পি। আফতাবের ধারনা অনুযায়ী ওভারের প্রথম বলেই আসলো স্লোয়ার।

‘ওরা ডিপ উইকেট নিয়ে নিয়েছিল। আমরা তখন বুঝেশুনে খেলতে পারি। বোলার, ফিল্ডার এগুলি পড়তে পারি। একজন পেসারের জন‌্য ডিপ মিডউইকেট রাখা কিন্তু খুব বেশি হয় না। ওরা নিয়েছিল। আবার স্কয়ার লেগে কেউ নেই। সাথে থার্ড ম‌্যান ও ফাইন লেগও সার্কেলের ভেতরে। সব মিলিয়ে বুঝতে পারছিলাম স্লোয়ারও দিতে পারে।’ – স্মৃতির জানালা খুলে বলছিলেন আফতাব।

আফতাবের ব‌্যাট থেকে আসা সেই ছক্কায় তবদা খেয়ে যান গিলেস্পি। ক্রিকইনফোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ডানহাতি পেসার বলেন, ‘দারুণ শট ছিল। সীমানার দড়ির খুব বেশিদূর যায়নি। আমি প্রথমে ভেবেছিলাম বল আউটফিল্ডে কেউ ধরছে। কিন্তু ছক্কা হয়েছিল। আমি তখনই বুঝতে পেরেছিলাম আমি যদি বিশেষ কিছু না করি আমরা ম‌্যাচটা হেরে যাবো। শেষ ওভারের প্রথম বলে ছক্কা খেয়ে ঘোরের মধ‌্যে ছিলাম। কিন্তু সত‌্যি বলতে আমি খারাপ বল করিনি কিন্তু।’

তবে বাংলাদেশেরকে সাফল‌্যকে মোটেও অপ্রত‌্যাশিত বলছেন না গিলেস্পি। নিজের বই ‘মাই লাইফ’ –এ কার্ডিফের ম‌্যাচ নিয়ে গিলেস্পি বলেন, ‘বাংলাদেশের জন‌্য অপ্রত‌্যাশিত সাফল‌্য ছিল না মোটেও। প্রতিটি বিভাগে তারা অসাধারণ পারফরম‌্যান্স করেছিল। তাদের নিবেদন ও ক্ষুধা আমাদের থেকে বেশি, শক্তিশালী ছিল। আমরা যখন সাজঘরে ছিলাম তখন আমাদের মিশ্র অনুভূতি হচ্ছিল। আমরা জানতাম, ক্রিকেট বিশ্ব এবং গোটা ইংল‌্যান্ড আমাদের নিয়ে হাসাহাসি করছে। ধ্বংসস্তূপে আছি এরকম অনুভূতি হচ্ছিল। আমাদের নিয়ন্ত্রণে থাকা ম‌্যাচটিতে কিভাবে যে ছিটকে গেলাম বুঝে উঠতে পারিনি।’

 

ঢাকা/ইয়াসিন

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়