ঢাকা     বুধবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৮ ১৪২৭ ||  ০৫ সফর ১৪৪২

রামোসের শরীর নাকি ট্যাটুর যাদুঘর

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:০৫, ৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
রামোসের শরীর নাকি ট্যাটুর যাদুঘর

রিয়াল মাদ্রিদের সুপারস্টার সার্জিও রামোসের ট্যাটুর আসক্তির খবর মোটামুটি সবারই জানা। কিন্তু এটা জানলে অবাক-ই হবেন তার শরীরে ৫০টির বেশি ট্যাটু আঁকা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রায়ই নিজের ট্যাটুগুলি দেখান রামোস। সেগুলি দেখে অনেকেই মুগ্ধ হন। কেউ কেউ করেন সমালোচনা। কিন্তু রামোসের প্রত্যেকটি ট্যাটু তার ব্যক্তিজীবনের সঙ্গে জড়িত। তার সন্তানদের নাম, তার অর্জন, প্রিয় ও স্মরণীয় মুহূর্ত, পছন্দের ব্যক্তি, আদর্শ, প্রত্যেককে জড়িয়ে রেখেছেন নিজের শরীরে।

স্প্যানিশ গণমাধ্যম মার্কার দাবি, রামোসের শরীরের প্রতিটি অঙ্গে ট্যাটু আঁকা। সবশেষ নিজের চতুর্থ ছেলে আদ্রিয়ানোর নামে ট্যাটু করিয়েছেন রামোস। বুকের মাঝে যীশু খ্রিষ্টর ট্যাটু। সাথে যুক্ত করেছেন বিখ্যাত লেখক পাবলো নেডুরোর অমর উক্তি, ‘আমি স্বীকার করি যে আমি বেঁচে আছি।’

কুঁচকির পাশে বিশ্বখ্যাত শিল্পী ব্যাংকসীর ট্যাটু আঁকিয়েছেন এ ডিফেন্ডার। এছাড়া ঘাড়ে ঠাঁই পেয়েছে সালভাদোর ডালি পেইন্টিং। দুই হাতের আঙুলে বিভিন্ন নম্বর দিয়েছেন। সেভিয়াতে তার প্রথম জার্সি নম্বর ৩৫ এবং স্পেনের হয়ে তার প্রথম জার্সি নম্বর ৩২ আঁকিয়েছেন।

বামহাতের মধ্যমায় ৯০+ লিখেছেন। ২০১৪ সালের চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে যোগ করা সময়ে গোল করেছিলেন রামোস। স্মরণীয় সেই মুহূর্ত হাতের মুঠোয় আটকে রেখেছেন রামোস।

এছাড়া বিভিন্ন ডিজাইনের মাধ্যমে সন্ত্রাসী হামলার ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোও হয়েছে, যেমন নিউইয়র্কে ১১-ই সেপ্টেম্বর হামলা বা মাদ্রিদে ১১-ই মার্চ আক্রমণ। তারকা এ ফুটবলারের শরীরের সমস্ত ট্যাটু এঁকেছেন উলকিবিদ রদ্রিগো গালভেজ।

ঢাকা/ইয়াসিন

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়