RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৯ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৭ ||  ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

প্রত্যাবর্তনে সাকিব বরাবরই তেজস্বী, এবার!

ইয়াসিন হাসান || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৪২, ২৮ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ০৮:৩৫, ২৯ অক্টোবর ২০২০
প্রত্যাবর্তনে সাকিব বরাবরই তেজস্বী, এবার!

মোহাম্মদ তালহার ফুল টস বল পয়েন্ট দিয়ে পাঠালেন বাউন্ডারিতে। ধারাভাষ্যে অরুণ লাল বলে উঠলেন, ‘ফুল টস এবং চার। তিন ম্যাচে খেলেননি। কিন্তু কিছুই তাকে দমাতে পারেনি। দুর্দান্ত টাইমিং।’ পাশে বসা রাসেল আর্নল্ডও যোগ দিলেন, ‘অনেক স্নায়ুচাপে থাকার কথা। কিন্তু তার মধ্যে কিছুই দেখা যাচ্ছে না।’ তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম বলে চারে শুরু সাকিবের। এরপর মিরপুর মাতোয়ারা সাকিবে। 

কয়েক মাস পর আবার সেই মিরপুর শের-ই-বাংলা। সচরাচর টেস্টের সকালে মিরপুরে দর্শক হয় না। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেদিন সাকিবের জন্য এসেছিলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। ‘বাংলার জান, বাংলার প্রাণ’- তিন মাস পর যে ফিরেছেন ক্রিকেটে। অষ্টম ওভারে সাকিব যখন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের কাছ থেকে নতুন বল পান, তখন মিরপুরে চিৎকার। ওই শ’খানেক দর্শক পুষিয়ে দেন ২৫ হাজারের হর্ষধ্বনি। 

রাজাকেও পথে বসতে হয় মুহূর্তের কিছু ভুলে, ভালোবাসাকে অবজ্ঞার খেসারত দিয়ে! কালের সত্য এমনই। সাকিব ভুল করেছেন একাধিকবার। এজন্য নিষেধাজ্ঞায় পড়েছেন বেশ কয়েকবার। তবে সবচেয়ে বড় ভুল করেছেন ২০১৮ সালে। ২০১৯ বিশ্বকাপ কী দারুণ-ই না কাটিয়েছিলেন। আট ম্যাচে ৬০৬ রান করার পাশাপাশি ১১ উইকেট নেওয়ার মতো অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্স! তাতে বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পাওয়ার দৌড়েও ছিলেন। উঠেছিলেন ওয়ানডে অলরাউন্ডার র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে। অথচ চার মাস পরই সাকিব হারালেন সব। 

২০১৮ সালে তিনবার জুয়াড়িদের কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেলেও আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটকে না জানানোয় এক বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞাসহ দুইবছরের জন্য সব রকমের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম থেকে নিষিদ্ধ করা হয় সাকিবকে। সেই নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে আজ, ২৮ অক্টোবর। সাকিবের মুক্তি বৃহস্পতিবার থেকেই। 

এর আগে নিষেধাজ্ঞা শেষে সাকিব যতবারই ফিরেছেন ততবারই ব্যাটে-বলে মাত করেছেন।  ২০১৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারির ঘটনা। অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে সাকিব নিষিদ্ধ হন তিন ম্যাচ। সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানাও গুনেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সাকিবের আউট বিশ্লেষণ করছিলেন টিভি ধারাভাষ্যকাররা। ড্রেসিংরুমের বিষণ্ন সাকিবকে দেখানো হচ্ছিল পর্দায়। ঠিক তখনই শরীরের গোপন অঙ্গের দিকে ইঙ্গিত করে প্রতিক্রিয়া দেখান। সাকিবকে দেখানো হয়েছিল মোট তিনবার। প্রথম দু'বার কিছু না করলেও, তৃতীয় ও শেষবার ক্ষমার অযোগ্য অপরাধটি করে বসেন তিনি। সেটা মাঠের জায়ান্ট স্ক্রিনেও দেখানো হয়। এর আগে কোনও ক্রিকেটারকেই শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে একসঙ্গে এত ম্যাচ ও এত বেশি অঙ্কের জরিমানা করা হয়নি। ওই সিরিজের শেষ ম্যাচ এবং এশিয়া কাপের আফগানিস্তান ও ভারতের বিপক্ষে খেলা হয়নি সাকিবের। পাকিস্তানের বিপক্ষে এশিয়া কাপে ফিরেছিলেন তিন ম্যাচ নিষেধাজ্ঞা শেষে। ফেরার ম্যাচে সাকিবের রান ১৬ বলে ৪৪। ৬ চার ও ২ ছক্কায় ২৭৫ স্ট্রাইক রেটের ইনিংস। বল হাতে ১০ ওভারে ২ মেডেনে ৫৩ রানে উইকেট একটি। 

কয়েক মাস পর আবার নিষিদ্ধ সাকিব। এবার নিষেধাজ্ঞা ছয় মাসের। যদিও পরবর্তীতে নিষেধাজ্ঞা নেমে আসে তিন মাসে। বোর্ডের অনুমতি না নিয়ে সাকিব উড়াল দিয়েছিলেন ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ খেলতে। সেই সময়ে কোচ ছিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। হাথরুসিংহের নির্দিষ্ট পরিকল্পনায় ছিলেন বাঁহাতি অলরাউন্ডার। সাকিবের অপেশাদারসুলভ আচরণে বোর্ড তাৎক্ষণিক তাকে মাঝপথে ইংল্যান্ড থেকে দেশে ফিরিয়ে এই ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয়। পরবর্তীতে সাকিবের আবেদনে সেই শাস্তি তিন মাসে নেমে আসে। 

বছরের শেষ দিকে জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়ে সাকিব ফেরেন ক্রিকেটে। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে তিনি ব্যাট হাতে হেসেছেন। বল হাতে উড়েছেন। ৬ ইনিংসে এক সেঞ্চুরি ও হাফ সেঞ্চুরিতে সাকিবের রান ২৫১। বল হাতে ২.৫৩ ইকোনমি রেটে সর্বোচ্চ উইকেট ১৮টি। পাঁচ উইকেট পেয়েছেন তিনবার। ওই সিরিজে ওয়ানডেতে পেয়েছিলেন সেঞ্চুরি। সেটাও চার বছর পর। ৫ ম্যাচে রান করেছেন ১৪২। উইকেট ১১টি। 

২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ, জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ত্রিদেশীয় সিরিজে দুবার ও একই বছর এপ্রিলে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের মধ্যকার ম্যাচে একবার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেলেও তা আইসিসিকে জানাননি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব। সবকিছুকেই যেন ছাড়িয়ে গেল এ ঘটনা। এজন্য শাস্তিও পেয়েছেন সবচেয়ে বেশি।  

সাকিব যতবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হয়েছেন, ততবারই ফিরেছেন স্বরূপে, দোর্দণ্ড প্রতাপে। প্রত্যাবর্তনে সে বরাবরই তেজস্বী। আন্তর্জাতিক সূচি নেই, ঘরোয়া ক্রিকেট দিয়ে সাকিব ফিরবেন মাঠে। এবারও কী আলোকোজ্জ্বল পারফরম্যান্সে নিজের অবস্থান জানান দিতে পারবেন সাকিব। প্রশ্নটা না হয় তোলা থাক!

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়